প্রযুক্তিতে ধনকুবের নারীরা

.ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১৩ ১৪২৬,   ২০ শা'বান ১৪৪০

প্রযুক্তিতে ধনকুবের নারীরা

 প্রকাশিত: ১২:৪৬ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১২:৪৬ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

ধনকুবের নারীরা

ধনকুবের নারীরা

টেক ইন্ডাস্ট্রির উন্নয়নে পুরুষদের পাশপাশি নারীদের অবদানও চোখে পড়ার মতই। পুরুষের আধিপত্যের বলয় ভেদ করে নিজ অবস্থান তৈরি করেছেন। আর এজন্যই বিশ্বের শীর্ষধনীর কাতারে তাদের নামগুলোও উঠে এসেছে। পুরুষের পাশাপাশি তারাও প্রযুক্তি শিল্পে আত্মনিয়োগ করে হয়ে উঠেছেন ধনকুবের। বর্তমানে টেক ইন্ডাস্ট্রিতে এমনই সাত নারী রয়েছেন যারা ধনী হিসেবে আখ্যায়িত। তাদের পদচারণা অন্যান্য নারীদের জন্য অনুপ্রেরণারও বটে। চলুন জেনে নেয়া যাক অর্থ-বিত্তে শক্তিশালী পাঁচ নারী সম্পর্কে-

১. ডেনিস কোটস:

অনলাইন ভিত্তিক জুয়া প্রতিষ্ঠান বেট-৩৬৫ এর প্রতিষ্ঠাতা এবং যুগ্ম সিইও ডেনিস কোটস। তিনি একজন ব্রিটিশ বিলিওনিয়ার। প্রযুক্তি শিল্পে ইউরোপের ধনী হিসেবে নজর কেড়েছেন তিনি। তার সম্পত্তির মূল্যমান এক হাজার ১৪০ কোটি ডলার। ৪৬ বছর বয়সী ডেনিস কোটস যুগের সঙ্গে তাল মিলিয়েই প্রযুক্তির সহায়তা নিয়েছেন এবং অধিকতর জনপ্রিয় করে তুলেছেন তার বাবার প্রতিষ্ঠিত বেট থ্রিসিক্সটিফাইভ ব্র্যান্ডটিকে। অনলাইন জুয়া ওয়েবসাইটটির প্রধান নির্বাহী তিনি। বাজির রীতিকে আরো জনপ্রিয় ও সহজ করে তুলেছে ডেনিসের অনলাইন স্পোর্টস প্লাটফর্ম। অনলাইনে জুয়ার সবচেয়ে বড় সাইট বেট থ্রিসিক্সটিফাইভ। এর বদৌলতেই এখন যুক্তরাজ্যের ধনী ব্যবসায়ীদের তালিকা করলে ডেনিসের নাম উঠে আসবে প্রথম দিকেই। এ ব্যবসায়ী নারীর সম্পদের পরিমাণ প্রায় ১৬০ কোটি মার্কিন ডলার।

২. লুসি পেং:

ই-কমার্স সাইট আলিবাবা সম্পর্কে নিশ্চয় শুনেছেন! আলিবাবা গ্রুপ নিয়ন্ত্রিত অ্যান্ট ফিন্যান্সিয়াল সার্ভিসেসের নির্বাহী চেয়ারম্যান এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার দায়িত্ব পালন করছেন লুসি পেং। আলিবাবা গ্রুপের শীর্ষস্থানীয় একাধিক পদে নেতৃত্ব দিয়েছেন তিনি। ২০১৪ সালে স্বল্প পুঁজি নিয়ে ছোটখাট ব্যবসা শুরু করেন লুসি। মাত্র ২ বছরের মাথাতেই বহুজাতিক ই-কমার্স কোম্পানি হিসেবে আলিবাবা জনপ্রিয় হয়ে ওঠে। লুসি পেংয়ের নিট সম্পদের পরিমাণ ১১০ কোটি ডলার।

৩. ঝৌ কুনফি:

লেন্স টেকনোলজি নামে একটি প্রযুক্তি প্রতিষ্ঠানের প্রতিষ্ঠাতা এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা ঝৌ কুনফি। স্যামসাং, অ্যাপল, এলজি, মাইক্রোসফট এবং নকিয়ার মতো প্রতিষ্ঠানগুলোয় স্মার্টফোনের স্ক্রিন সরবরাহ করে ঝৌ কুনফির এ প্রতিষ্ঠানটি। ৭৮০ কোটি ডলার নিট সম্পদের মালিক ঝৌ কুনফি ধনী নারী প্রযুক্তি কর্মকর্তাদের তালিকায় শীর্ষ দশে আছেন।

৪. অ্যাঞ্জেলা আহরেদস:

আমেরিকান ব্যবসায়ী নারী হিসেবে বেশ পরিচিত তিনি। সেইসঙ্গে আমেরিকান মাল্টিন্যাশনাল টেকনোলজি কোম্পানী অ্যাপলের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট তিনি। এর আগে ২০০৬ থেকে ২০১৪ সাল অব্দি ব্রিটিশ ফ্যাশন হাউস বারবেরি গ্রুপের সিইও ছিলেন অ্যাঞ্জেলা। ২০১৫ সালের ফোর্বস ম্যাগাজিনে বিশ্বের ধনী নারীর তালিকায় তার নাম ২৫তম স্থানে উঠে আসে। বিবিসি রেডিও’র দেয়া তথ্যমতে, যুক্তরাজ্যের শীর্ষ নয় ধনী নারীর মধ্যে তিনিও একজন। অ্যাপেলের ২০১৫ সালে দেয়া এক বিবৃতিতে জানানো হয়, অ্যাঞ্জেলার বার্ষিক উপার্জন ৭০ মিলিয়ন ডলার। এছাড়া অ্যাপেল কোম্পানীর ১১ মিলিয়ন ডলার শেয়ারেরও মালিক এই নারী।

৫. সুসান ওয়াজিকি:

২০১৪ সালের ফেব্রুয়ারিতে সুসান ইউটিউবের সিইও হন। তিনি গুগলের ১৬তম কর্মচারি ছিলেন। গুগলের শুরু থেকেই তিনি এর প্রথম মার্কেটিং ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। গুগল ডুডলস, গুগল ইমেজ এবং গুগল বুক সবই সুসানের নেয়া পদক্ষেপ। ক্রমান্বয়ে সুসান তার মেধা দ্বারা গুগলের অ্যাড এবং কমার্সের সিনিয়র ভাইস প্রেসিডেন্ট হিসেবে দায়িত্ব নেন। এরপর ইউটিউব স্টার্ট-আপে নাম লেখান সুসান। সুসানকে বিজ্ঞাপন কর্তা বলা হয়। ২০১৫ সালে শীর্ষ একশ ধনী ব্যাক্তিত্যের মধ্যে তার নামটিও ছিলো। যদিও তিনি ইন্টারনেট জগতের শক্তিশাল ব্যাক্তিত্ব হিসেবেও পরিচিত। এই নারীর নীট সম্পদের পরিমাণ ৪৮০ মার্কিন ডলার।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএ/এসজেড