প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ৮ শতাংশ

ঢাকা, সোমবার   ২৭ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৬,   ২১ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

প্রবৃদ্ধির হার ৭ দশমিক ৮ শতাংশ

 প্রকাশিত: ১৪:০৮ ৭ জুন ২০১৮  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

২০১৮-১৯ অর্থবছরের প্রস্তাবিত বাজেটে মোট দেশজ উৎপাদনে (জিডিপি) প্রবৃদ্ধির হার ধরা হয়েছে ৭ দশমিক ৮ শতাংশ। চলতি বছরের বাজেটে যা ছিল ৭ দশমিক ৪ শতাংশ।

প্রস্তাবিত বাজেটে মূল্যস্ফীতির গড়হার ৫ দশমিক ৬ শতাংশ, চলতি অর্থবছরের বাজেটে যা ৫ দশমিক ৪ শতাংশ রাখা হয়েছে।

জাতীয় সংসদে বৃহস্পতিবার দুপুরে বাজেট প্রস্তাবনায় অর্থমন্ত্রী মুহিত প্রবৃদ্ধির এ হারের কথা তুলে ধরেন। চলতি অর্থ বছরের তুলনায় ২৫ শতাংশ আকার বেড়েছে প্রস্তাবিত বাজেটের। এবারের প্রস্তাবিত বাজেটে কর মুক্ত আয়ের সীমায় কোনো পরিবর্তন রাখা হয়নি। ব্যক্তি শ্রেণির করমুক্ত আয়ের সীমা আড়াই লাখ থাকছে।

অর্থমন্ত্রী বাজেট বক্তব্যে বলেন, গত বছরের জুনে প্রস্তাবিত বাজেটে প্রবৃদ্ধির লক্ষ্যমাত্রা ধরা হয়েছিল ৭.৪ শতাংশ। তবে পরিসংখ্যান ব্যুরোর হিসেব অনুযায়ী এরইমধ্যে প্রবৃদ্ধি হয়েছে ৭.৬৫। অতএব চলতি অর্থবছরের প্রবৃদ্ধির প্রাথমিক হিসাবে বাজেটের লক্ষ্যমাত্রাকেও ছাড়িয়ে গেছে।

এরপরই তিনি ১৫৬ পৃষ্ঠার বাজেট বক্তৃতা শুরু করেন।

চলতি অর্থবছরের মূল বাজেট ৪ লাখ ২৬৬ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরের সংশোধিত বাজেট ৩ লাখ ৭১ হাজার ৪৯৫ কোটি টাকা। অর্থাৎ আগামী বাজেটের আকার সংশোধিত বাজেট থেকে প্রায় ৯৩ হাজার কোটি টাকা বেশি।

বাজেটে ব্যয় মেটাতে সরকারি অনুদানসহ আয়ের পরিমাণ ধরা হয়েছে ৩ লাখ ৪৩ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। এর মধ্যে জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) আয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৯৬ হাজার ২০১ কোটি টাকা। মোট ঘাটতি ১ লাখ ২১ হাজার ২৪২ কোটি টাকা। বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচিতে বরাদ্দ ধরা হয়েছে (এডিপি) ১ লাখ ৭৩ হাজার কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে যা ধরা হয় ১ লাখ ৫৩ হাজার ৩৩১ কোটি টাকা। সরকারের অর্থায়নে অভ্যন্তরীন ব্যবস্থা থেকে ঋণ ধরা হয়েছে ৭১ হাজার ২২৬ কোটি টাকা। চলতি অর্থবছরে যা আছে ৬০ হাজার ৩৫২ কোটি টাকা।

উন্নয়ন বাজেটের মোট আকার ধরা হয়েছে ১ লাখ ৭৯ হাজার ৬৬৯ কোটি টাকা। প্রস্তাবিত অনুন্নয়ন বাজেটে ব্যয় ধরা হয়েছে ২ লাখ ৮২ হাজার ৪১৫ কোটি টাকা।

ডেইলি বাংলাদেশ/ এলকে

Best Electronics