Exim Bank
ঢাকা, বৃহস্পতিবার ২৪ মে, ২০১৮
iftar

প্রত্যাশা আর অপূর্ণতায় শাবিপ্রবির ২৭ বছর

 আহমদ ইমরান, সিলেট ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৪, ১৩ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

৯৬ বার পঠিত

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

মঙ্গলবার ১৩ ফেব্রুয়ারি। শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রমের ২৭ বছর। ১৯৯১ সালের ১৩ ফেব্রয়ারি ৩২০ একর জমির ওপর ৩টি বিভাগে ১২০ জন শিক্ষার্থী নিয়ে আনুষ্ঠানিক শিক্ষা কার্যক্রম শুরু হয়। বর্তমানে ৬টি অনুষদের অধীনে রয়েছে ২৮টি বিভাগ ও ২ টি ইন্সটিটিউট। মোট শিক্ষার্থী ১০,৪০০ জন।

দেশের প্রথম বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের রোল মডেল হিসেবে প্রতিষ্ঠিত হওয়ার স্বপ্ন নিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপন করা হয়েছিল। অর্জনের পাশাপাশি কিছু অস্বস্তিকর ইতিহাসও আছে এর। যা কলঙ্কিত করেছে পবিত্র এ ভূমিকে। তবে সেই ক্ষতচিহ্ন বেশিদিন স্থায়ী হয়নি। এগিয়ে যাচ্ছে বীরদর্পে।

দীর্ঘ ২৭ বছরের আত্মতৃপ্তি যেমন আছে তেমনি আছে অপূর্ণতা। আবাসিক হলের অপ্রতুলতা সংকট, সেশনজট, পরিবহন সংকট কিংবা গবেষণা খাতে খুব একটা অগ্রসর হতে পারেনি বিশ্ববিদ্যালয়টি।

১৯৮৭ সালের বিশ্ববিদ্যালয় আইনে গৃহীত ৩০ বছর মেয়াদী মহাপরিকল্পনা ২০১৬ সালে শেষ হয়ে গেছে। কিন্তু তার অর্ধেকও বাস্তবায়ন হয়নি। সময় শেষ হওয়ায় শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের আশ্বাসে নতুন করে পরিকল্পনা প্রণয়ণের প্রস্তুতি নিচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়টি।

এদিকে, বিশ্ববিদ্যালয়ে ছেলেদের ৩টি হলের মধ্যে একটি অপূর্ণাঙ্গ। মেয়েদের ২টি হল আছে, যা চাহিদার তুলনায় খুবই অপ্রতুল। এছাড়া রয়েছে একাডেমিক ভবনের স্বল্পতা।

কলেবর বাড়লেও বাড়ছে না একাডেমিক বিল্ডিংয়ের সংখ্যা।

এছাড়া গবেষণাধর্মী কাজের জন্য পর্যাপ্ত গবেষণাগার ও ক্লাসরুম নেই। শিক্ষক ও ছাত্রদের জন্য খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা নেই বললেই চলে। একটা নামমাত্র ক্যাফেটেরিয়া, ভাঙা ক্যান্টিন ও খুপরি টং দিয়ে কোনোমতে চলছে খাওয়া-দাওয়ার ব্যবস্থা।

বর্তমানে এ বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষকের সংখ্যা চার শতাধিক। সেখানে আবাসন সুযোগ আছে একশ’রও কম। শিক্ষকদের জন্য দরকার ডরমিটরি ও পর্যাপ্তসংখ্যক কোয়ার্টার।

এছাড়া সেশনজট, ছাত্র-ছাত্রীদের নিরাপত্তা ও পরিবহন সমস্যাও রয়েছে বিশ্ববিদ্যালয়টির।

এসব বিষয়ে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের (শাবিপ্রবি) ভিসি অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ বলেন, পরিবহন সমস্যা সমাধানে গত বছরের ডিসেম্বরে শিক্ষক-কর্মকর্তাদের জন্য নতুন বাস আনা হয়েছে। চলতি বছরের জুন মাসে শিক্ষার্থীদের জন্যে আরো দুটি নতুন বাস আনা হবে। এর টেন্ডারও হয়ে গেছে। ডিসেম্বরে আরো নতুন কিছু বাস কেনা হতে পারে।

অধ্যাপক ফরিদ উদ্দিন আহমেদ আরো বলেন, সেশনজট কমিয়ে আনতে প্রত্যেকটি বিভাগের জন্য একাডেমিক ক্যালেন্ডার বাধ্যতামূলক করা হয়েছে। নির্ধারিত সময়ে পরীক্ষা নেয়া, সঠিকভাবে খাতা মনিটরিং ও নির্ধারিত সময়ে ফলাফল প্রকাশ করার উপর জোর দেয়া হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

শিক্ষা ও গবেষণায় শাবিপ্রবিকে রোলমডেল করে তোলার জন্য তিনি কাজ করছেন জানিয়ে আরো বলেন, মাইনর কোর্সে শিক্ষকদের আলাদা করে সম্মানি দেয়া হবে যাতে শিক্ষকরা মাইনর কোর্সগুলোতে আরো বেশী সময় দিতে পারেন। এ সংক্রান্ত অর্ধকোটি টাকার বেশি একটি অনুদান ইউজিসি থেকে আমাদের দেয়া হয়েছে। এছাড়া উন্নত ল্যাবরেটরি নিশ্চিত করাসহ গবেষণায় বাজেট বৃদ্ধি করা হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তার বিষয়ে ভিসি আরো বলেন, নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে সম্পূর্ণ ক্যাম্পাস সিসি ক্যামেরা ও লাইটের আওতায় আনার পাশাপাশি ছাত্রী হলগুলোতে নিরাপত্তা বর্ধিত ও দালান উচুঁ করা হবে।

এছাড়া শিক্ষার্থীদের জন্য নতুন হল, একাডেমিক বিল্ডিং, রাস্তা, মোটরসাইকেল ও গাড়ি রাখার ছাউনি নির্মাণ এবং ক্যাফেটেরিয়া, ডরমেটরি, বিশ্ববিদ্যালয় ক্লাব, উপাচার্যের বাসভবন, কেন্দ্রীয় খেলার মাঠ ও অভ্যন্তরীণ রাস্তা সংস্কারের কাজ শিগগিরই শুরু হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে, প্রতিষ্ঠাবাষির্কী উপলক্ষে মঙ্গলবার বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করা হচ্ছে। এরমধ্যে রয়েছে সকাল ১০টায় জাতীয় ও বিশ্ববিদ্যালয়ের পতাকা উত্তোলন, ১০টা ১০ মিনিটে বঙ্গবন্ধুর প্রতিকৃতিতে পুষ্পস্তবক অর্পণ, বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে আনন্দ শোভাযাত্রা এবং কেক কাটা ও স্মৃতিচারণমূলক আলোচনা সভা।

ডেইলি বাংলাদেশ/আজ/এআর

সর্বাধিক পঠিত