Alexa প্রতিবাদ করলেই ছুরি নিয়ে বের হন প্রধান শিক্ষক!

ঢাকা, বুধবার   ১৩ নভেম্বর ২০১৯,   কার্তিক ২৮ ১৪২৬,   ১৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

প্রতিবাদ করলেই ছুরি নিয়ে বের হন প্রধান শিক্ষক!

চাঁপাইনবাবগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:১৯ ৬ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২২:২১ ৬ নভেম্বর ২০১৯

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সাইফুর রহমান

ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সাইফুর রহমান

চাঁপাইনবাবগঞ্জের শিবগঞ্জ উপজেলার দুর্লভপুর বালুটুঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সাইফুর রহমান। তার বিরুদ্ধে নানা অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে। আর এসব কিছুর প্রতিবাদ করলেই ছুরি বা রড নিয়ে ধাওয়া করেন তিনি।

সাইফুর রহমান সাত বছর ধরে এ বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের দায়িত্বে রয়েছেন। তবে দায়িত্ব পালনের নামে বিভিন্ন ধরনের অনিয়ম দুর্নীতির অভিযোগ করছেন বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক, শিক্ষার্থী, অভিভাবক, বিদ্যালয় কমিটির সাবেক সভাপতিসহ স্থানীয়রা।

বালুটুঙ্গী উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি শহিদুল ইসলাম বলেন, চলতি বছরের জুন-জুলাইয়ে জেলা পরিষদ থেকে বিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য ৪২ হাজার টাকা বরাদ্দ দেয়া হয়। যা বিদ্যালয়ের কাজে না লাগিয়ে আত্মসাৎ করেছেন সাইফুর রহমান। এছাড়া তিনি রুটিন অনুযায়ী ক্লাসে আসেন না। ক্লাস ফাঁকি ও অব্যবস্থাপনার জন্য বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীর সংখ্যা দিন দিন কমছে। ফলাফলেও পিছিয়ে পড়ছে তারা।

জেএসসি পরীক্ষার্থী হাসান, জিসান, আজিম ও নূরনবী বলেন, প্রবেশপত্রের জন্য পরীক্ষার আটদিন আগে থেকেই অফিসে যোগাযোগ করি। কিন্তু আমাদের কাছে প্রধান শিক্ষক অতিরিক্ত ১০০ টাকা চান। টাকা না পেলে প্রবেশপত্র দিবে না বলেও জানান তিনি। এর প্রতিবাদ করতে গেলে ছুরি ও রড নিয়ে আমাদের মারতে আসেন।

এছাড়া উপবৃত্তির টাকা দেয়ার কথা বলে ছয়-সাত মাস আগে অষ্টম শ্রেণির প্রায় সব ছাত্রীর কাছ থেকে ৩৫০ টাকা করে নেন। কিন্তু এখন পর্যন্ত কোনো উপবৃত্তি দিচ্ছেন না। এদিকে নতুন করে উপবৃত্তি করতে হলে আবারো ৩৫০ টাকা দাবি করছেন প্রধান শিক্ষক।

বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক তোহুর আহমেদ বলেন, সব সহকারী শিক্ষক মিলে প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে ইউএনওর কাছে অভিযোগ দিয়েছি।

এ ব্যাপারে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সাইফুর রহমান বলেন, আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্র করা হচ্ছে। আমি কোনো অনিয়মের সঙ্গে জড়িত নয়। 

শিবগঞ্জ ইউএনও চৌধুরী রওশন ইসলাম বলেন, প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে কয়েকজন সহকারী শিক্ষক মৌখিক অভিযোগ দিয়েছেন। তাদের লিখিত অভিযোগ দিতে বলা হয়েছে। মৌখিক অভিযোগের ভিত্তিতে মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তাকে বিষয়গুলো তদন্তের জন্য নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর