প্রকৃতির অমূল পরিবর্তনের মাঝে পরিবেশ দিবস

ঢাকা, সোমবার   ১৩ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ৩০ ১৪২৭,   ২২ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

প্রকৃতির অমূল পরিবর্তনের মাঝে পরিবেশ দিবস

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০৯:৩৮ ৫ জুন ২০২০   আপডেট: ০৯:৪০ ৫ জুন ২০২০

আজ বিশ্ব পরিবেশ দিবস

আজ বিশ্ব পরিবেশ দিবস

করোনাভাইরাসের জেরে বিশ্ববাসী যেন খানিকটা থমকে গেছে। এই সুযোগে প্রকৃতি যেন নিজেকে মেলে ধরেছে। ফিরেছে স্বমহিমায়। অনেক বিশেষজ্ঞ বলছেন, এই ভাইরাসটি মানুষের জন্য আতঙ্কের কারণ হলেও প্রকৃতির বন্ধু!

করোনার জেরে বিশ্বের বিভিন্ন দেশে দফায় দফায় লকডাউন চলছে। এতে দেখা দিয়েছে ঝকঝকে নীল আকাশ, বিশুদ্ধ বাতাস৷ লোকালয়ে ফিরছে বিরল পাখি-কীটপতঙ্গ। বন্ধ হলো কারখানা, কালো ধোঁয়া নেই। পৃথিবী যেন আবার তার আগের রুপে ফিরছে৷

বাংলাদেশের প্রকৃতিতেও করোনার ইতিবাচক প্রভাব পড়েছে। উদাহরণ হিসেবে কক্সবাজারের কথাই বলা যাক। মানুষের পদচিহ্ন নেই। উন্মুক্ত সৈকতে দাঁপিয়ে বেড়াচ্ছে ক্ষুদে লাল কাঁকড়ার দল; যেন লাল কার্পেট বিছিয়ে রেখেছে কেউ। ডিম পাড়তে আসছে নানা প্রজাতির কচ্ছপ। কেঁচোর আলপনা দেখা যাচ্ছে প্রতি কদমে কদমে, বাসা বেঁধেছে গাঙ কবুতরের দল। আর ডলফিনের উচ্ছল নৃত্যে আন্দোলিত সাগরের কথা তো সবারই জানা।

আজ শুক্রবার, ৫ জুন, বিশ্ব পরিবেশ দিবস। করোনা সংকটে বিপর্যস্ত পরিস্থিতিতেই দিবসটি পালিত হচ্ছে। দিবসটি পালনের মূল উদ্দেশ্য হচ্ছে, পরিবেশ সম্পর্কে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়ানো। এ কারণে প্রতিবছরই ভিন্ন ভিন্ন প্রতিপাদ্যে বিশ্ব পরিবেশ দিবস পালিত হয়। এ বছর দিবসটির প্রতিপাদ্য হলো ‘প্রকৃতির জন্য সময়’ (Time for Nature)। এর লক্ষ্য কীভাবে পৃথিবীর বিকাশের সঙ্গে সঙ্গে মানুষের বিকাশ করা যায়, সেই রূপ কাঠামো গঠন।

এবার পরিবেশ দিবসের মূল আয়োজক দেশ কলম্বিয়া। জার্মানির সহযোগিতায় এই অনুষ্ঠানের আয়োজন করবে তারা। গত বছর ছিল চীন। সারা বিশ্বের জীববৈচিত্র্যের ১০ শতাংশই রয়েছে কলম্বিয়াতে। আমাজনের একটি বড় অংশ রয়েছে দেশটিতে। এই আমাজনেই বছরের পর বছর আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। অস্ট্রেলিয়া, আমেরিকার বনভূমিতেও গত বছর বড় রকমের আগুনের সূত্রপাত হয়।

জাতিসংঘ বলছে, জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ না করাতে আমাদের পরিবেশের ভারসাম্যই শুধু নষ্ট হচ্ছে না আমরা এর মাধ্যমে আমাদের জীবনকে ধ্বংস করছি। কোভিড আমাদের সেই শিক্ষা দিচ্ছে উল্লেখ করে জাতিসংঘের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে আমরা জীববৈচিত্র্য রক্ষা করলে শুধু খাদ্যেরই যোগান পাব না বরং ওষুধসহ নির্মল পানি এবং বাতাস পাব। যা মানুষের সুস্থতার বড় অনুষঙ্গ হতে পারে।

বিশ্বের অন্যান্য দেশের মতো বাংলাদেশেও গুরুত্বের সঙ্গে সরকারি ও বেসরকারিভাবে দিবসটি পালিত হয়ে আসছে। কিন্তু করোনা পরিস্থিতির কারণে এবার সেভাবে দিবসটি পালনের মতো কোনো সুযোগই নেই।

প্রসঙ্গত, ১৯৭৪ সাল থেকে জাতিসংঘের মানবিক পরিবেশ সংক্রান্ত আন্তর্জাতিক সম্মেলনে গৃহীত সিদ্ধান্ত অনুযায়ী জাতিসংঘের পরিবেশ কর্মসূচির (ইউএনইপি) উদ্যোগে প্রতিবছর ৫ জুন ‘বিশ্ব পরিবেশ দিবস’ হিসেবে পালন করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে