পৃথিবী মানুষের আদি স্থান নয়!

ঢাকা, রোববার   ৩১ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৮ ১৪২৭,   ০৮ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

পৃথিবী মানুষের আদি স্থান নয়!

 প্রকাশিত: ০২:৩০ ২৪ এপ্রিল ২০১৮   আপডেট: ০৫:০১ ২৯ এপ্রিল ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

সম্প্রতি একটি বই নিয়ে শোরগোল নেট দুনিয়ায়। সে বইয়ের নাম ‘হিউম্যানস আর নট ফ্রম আর্থ’। নাম শুনেই বোঝা যাচ্ছে, লেখক ডঃ এলিস সিলভারের দাবি মানুষ পৃথিবী নয়, অন্য গ্রহ থেকে এসেছে। আর এমন দাবিকে ঘিরে যে বিতর্ক তৈরি হওয়া স্বাভাবিক।

জানা যাচ্ছে, বিবর্তনবাদ নিয়ে বিস্তর গবেষণা করেছেন সিলভার। তার দৃঢ় বিশ্বাস, এই গ্রহে মানুষ যতই নিজেদের গেড়ে বসুক না কেন, তারা এসেছে বাইরের গ্রহ থেকে। নিজের যুক্তির সপক্ষে লেখকের দাবি, সূর্যের প্রখর তাপে মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়। পৃথিবীর পরিবেশে মানুষ বহু ক্ষেত্রে সমস্যায় পড়ে। এমন একজনও মানুষও নেই, যে একশ শতাংশ সুস্থ।

তবে সিলভার যা বলছেন, তা নতুন কিছু নয়। এর আগেও এমন দাবি শোনা গিয়েছে। বিজ্ঞানীরা দাবি করেছেন, মহাজাগতিক ব্যাকটিরিয়াই পৃথিবীতে বয়ে এনেছে প্রাণের বীজ। ১৯৯৮ সালে টেক্সাস ও মরক্কোতে আবিষ্কৃত হয়েছিল দু’টি উল্কাখণ্ড। ৪.৫ বিলিয়ন বছর আগে ওই উল্কা দু’টি পৃথিবীতে আছড়ে পড়েছিল বলে দাবি বিজ্ঞানীদের।

গবেষণায় নেমে বিজ্ঞানীরা জানতে পেরেছিলেন, ওই উল্কাখণ্ডতে রয়ে গেছে পানি ও বিভিন্ন জৈব যৌগ। সেই চিহ্ন থেকেই পৃথিবীর প্রাণ-রহস্য খুঁজছেন তারা। সিলভারের দাবি, সেই গবেষণার কথাই নতুন করে মনে করিয়ে দিল।

সত্যিই কি মহাকাশের অন্য কোণ থেকে এসেছে মানুষ? অন্য এলিয়েনরা আমাদের পৌঁছে দিয়েছে এই গ্রহে? উত্তরটাই এখন তন্নতন্ন করে খুঁজে চলেছেন বিজ্ঞানীরা। হয়ত কোনও দিন তেমনই প্রমাণ মিলে যাবে। সেদিন সিলভারের বইটির কথা আরো বেশি করে আলোচনায় উঠে আসবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ