Alexa পৃথিবীর আদিমতম ও যোগাযোগহীন জনগোষ্ঠী!

ঢাকা, রোববার   ১৮ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৩ ১৪২৬,   ১৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

পৃথিবীর আদিমতম ও যোগাযোগহীন জনগোষ্ঠী!

আঁখি আক্তার ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:২৮ ১৭ জুন ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

দিন যত যাচ্ছে আমাদের জীবন ততোই উন্নত হচ্ছে। মানুষের জানার আগ্রহও বাড়ছে দিন দিন। প্রাচীনকাল থেকে এই পর্যন্ত মানুষের জীবন চলার পথ অনেক আধুনিক ও সহজ হয়ে এসেছে। কিন্তু পৃথিবীর এই ইতিহাসে সবাই মিলে যাননি। আজও এই পৃথিবীতে এমন কয়েকটি জনজাতি রয়েছে, যারা বাইরের পৃথিবীর প্রতি সম্পূর্ণ উদাসীন। বাকি দুনিয়ায় কি হচ্ছে, তার প্রায় কোনো খোঁজ না রেখেই নিজেদের মতো করে আজও দিন কাটাচ্ছেন এরা। চলুন জেনে নেয়া যাক পৃথিবীর এমনই বিচ্ছিন্ন ভাবে বেঁচে থাকা কয়েকটি জনজাতি সম্পর্কে।

পালমেরস্টন দ্বীপ, নিউজিল্যান্ড
নিউ জিল্যান্ড থেকে ৩২০০ কিলোমিটার উত্তর-পূর্বে পালমেরস্টন দ্বীপ। ১৯৭৪ সালে এই ছোট্ট দ্বীপটি আবিষ্কার করেন ক্যাপ্টেন জেমস কুক। এখানে মাত্র ৬২ জন মানুষের বাস। এখানে মানুষের জীবনধারণের সাধারণ সুবিধাটুকুও নেই। যেমন দোকান, বাজার, ব্যাংক এমনকি টাকার প্রচলনও নেই এই দ্বীপে। গোটা দ্বীপে দুটি সাধারণ শৌচাগার আছে এবং সম্প্রতি একটি টেলিফোন বুথ খোলা হয়েছে।

ট্রিস্টান ডা কুনহা, অ্যাটলান্টিক
দক্ষিণ আফ্রিকা থেকে ১৭৫০ মাইল দূরে অবস্থিত ট্রিস্টান ডা কুনহা। যে কোনো রকম আধুনিক প্রযুক্তি থেকে সম্পূর্ণ দূরে এই এলাকা। এখনো বিদ্যুত্‍ পৌঁছয়নি এখানে। ২৬১ বছর আগে এই দ্বীপটির অস্তিত্ব সম্পর্কে জানা যায়। এটি একটি আগ্নেয় দ্বীপ। এখানে মাত্র ২৬৭ জন মানুষের বাস।

উতকিয়াগভিক, অ্যালাস্কা
বিশ্বের উত্তরতম এলাকাগুলোর অন্যতম উতকিয়াগভিক। আর্কটিক বৃত্তের অনেকটাই ওপরে অবস্থিত এই এলাকা। অত্যন্ত ঠান্ডা এবং বাইরের দুনিয়ার সঙ্গে যোগাযোগহীন এই এলাকা। তবে স্কুল, কলেজ, চার্চ, টেলিফোন ব্যবস্থার মতো কিছু আধুনিক সুবিধের সঙ্গে এখানকার মানুষের পরিচয় ঘটেছে।

সুপাই গ্রাম, আরিজোনা
আমেরিকার গ্র্যান্ড ক্যানিয়নের কাছেই সুপাই গ্রাম। পর্যটকদের ভিড় প্রায় সারা বছর লেগে থাকে গ্র্যান্ড ক্যানিয়নে। কিন্তু সুপাই গ্রামের কথা বিশেষ কেউ জানেন না। হাভাসু উপজাতির মানুষেরা এখানে ৮০০ বছর ধরে বাস করছেন। কৃষিকাজ ও শিকার করেই এখনো এদের দিন চলে। এখানে পৌঁছনোর কোনো পরিবহণ ব্যবস্থাই নেই।  

লা রিনকোনাডা, পেরু
সমুদ্রতল থেকে ১৬,০০০ ফুট উপরে লা রিনাকোনাডা গ্রাম। কাছেই একটি সোনার খনি। প্রায় সারা বছরই এখানে হিমাঙ্কের নীচে থাকে তাপমাত্রা। আধুনিক কোনো সুযোগ-সুবিধা ছাড়াই এখানে বাস করেন ৫০,০০০ মানুষ। বাইরের দুনিয়ার সঙ্গে এরা কোনো সম্পর্ক রাখে না।

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ 

Best Electronics
Best Electronics