.ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২১ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৬ ১৪২৫,   ১৪ রজব ১৪৪০

পুঁজিবাজার থেকে আইডিএলসির আয় দ্বিগুণ

 প্রকাশিত: ১৫:৫৭ ২১ জুলাই ২০১৭  

জানুয়ারি-জুন সময়ে শেয়ার ও অন্যান্য সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ থেকে এক বছর আগের তুলনায় প্রায় দ্বিগুণ আয় করেছে ব্যাংকবহির্ভূত আর্থিক প্রতিষ্ঠান আইডিএলসি ফিন্যান্স ও এর সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানগুলো। এ সময় কমিশন, এক্সচেঞ্জ ও ব্রোকারেজ বাবদ দ্বিগুণেরও বেশি আয় করেছে তারা। গতকাল প্রথমার্ধের ফলাফল পর্যালোচনা উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে এ তথ্য দেন প্রতিষ্ঠানটির কর্মকর্তারা। রাজধানীতে নিজস্ব কার্যালয়ে বিনিয়োগকারী, বিশ্লেষক ও সংবাদকর্মীদের সঙ্গে প্রথমার্ধের ফলাফলের পাশাপাশি কোম্পানির পরিকল্পনাসহ নানা দিক নিয়েও আলোচনা করেন আইডিএলসির শীর্ষ কর্মকর্তারা। এ সময় বিনিয়োগকারীদের নানা প্রশ্নের জবাব দেয়া হয়। অনলাইনে বিদেশী শেয়ারহোল্ডাররাও প্রশ্নোত্তর পর্বে অংশ নেন। আইডিএলসি জানায়, জানুয়ারি-জুন সময়ে (প্রথমার্ধে) পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত ও অন্যান্য সিকিউরিটিজে বিনিয়োগ থেকে আইডিএলসির সমন্বিত আয় হয়েছে প্রায় ৫২ কোটি ৬১ লাখ টাকা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ২৭ কোটি ১০ লাখ টাকা। এছাড়া কমিশন, এক্সচেঞ্জ ও ব্রোকারেজ ফি বাবদ আয় ১৭ কোটি ৮৩ লাখ থেকে ৩৬ কোটির ঘরে উন্নীত হয়েছে। অনুষ্ঠানে আইডিএলসি ফিন্যান্স লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) আরিফ খান বলেন, ২০১৭ সালের প্রথম ছয় মাসে একদিকে আমাদের মূল (ঋণ) ব্যবসা ভালো হয়েছে, অন্যদিকে আমাদের সাবসিডিয়ারি প্রতিষ্ঠানগুলোও অসাধারণ ফলাফল দেখিয়েছে। সবমিলে এ সময় কোম্পানির সমন্বিত নিট মুনাফা আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় ৩৩ শতাংশ বেড়েছে। প্রথমার্ধে কোম্পানির সমন্বিত শেয়ারপ্রতি আয় (ইপিএস) হয়েছে ৩ টাকা ২৮ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ২ টাকা ৭২ পয়সা। ৩০ জুন শেয়ারপ্রতি নিট সম্পদমূল্য (এনএভিপিএস) দাঁড়ায় ৩০ টাকা ৪৭ পয়সা। ফলাফল পর্যালোচনায় আইডিএলসি এমডি জানান, বর্তমানে আইডিএলসির সমন্বিত মুনাফার দুই-তৃতীয়াংশেরও বেশি আসে তাদের মূল ব্যবসা (ঋণ) থেকে। বাকিটার উত্স ব্রোকারেজ, মার্চেন্ট ব্যাংকিং ও সম্পদ ব্যবস্থাপনা সংশ্লিষ্ট সাবসিডিয়ারিগুলো থেকে। প্রথমার্ধে আইডিএলসিতে আমানত এক বছর আগের তুলনায় ৭ শতাংশ বেড়ে ৫ হাজার ২১৫ কোটি টাকায় উন্নীত হয়েছে। একই সময়ের ব্যবধানে সুদ আয় ৯ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ২০১ কোটি ৫০ লাখ টাকা। সমন্বিত ফি ও অন্যান্য আয় ৪৯ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ৬১ কোটি ৪০ লাখ টাকা। পরিচালন আয় ২৫ শতাংশ বেড়ে দাঁড়ায় ৩১৫ কোটি ৫০ লাখ টাকা, যেখানে পরিচালন মুনাফা ২৬ শতাংশ বেড়ে হয়েছে ১৯৯ কোটি ৭০ লাখ টাকা। আর্থিক পারফরম্যান্সের বিভিন্ন নির্দেশকেও আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় এগিয়েছে আইডিএলসি। গেল অর্ধবার্ষিকে সম্পদের বিপরীতে মুনাফা (আরওএ) ২ দশমিক ৩৪ থেকে ২ দশমিক ৭৭ শতাংশে উন্নীত হয়েছে। ২২ দশমিক ৩ থেকে ২২ দশমিক ৮৯-এ উন্নীত হয়েছে ইকুইটির বিপরীতে মুনাফা বা আরওই। অনাদায়ী ঋণ (এনপিএল) নিয়ন্ত্রণেও সাফল্য দেখিয়েছে আইডিএলসি। ২০১৭ সালের ৩০ জুন কোম্পানির এনপিএল ২ দশমিক ৮৪ শতাংশ, ২০১৬ সালের ৩১ ডিসেম্বর যা ছিল ২ দশমিক ৯৮ শতাংশ। প্রথমার্ধে সাবসিডিয়ারি আইডিএলসি অ্যাসেট ম্যানেজমেন্টের প্রথম মিউচুয়াল ফান্ড আইডিএলসি ব্যালান্সড ফান্ডের যাত্রা শুরুর কথা জানিয়ে আরিফ খান বলেন, আগামী দিনগুলোয় সম্পদ ব্যবস্থাপনায় জোর দেবে তার প্রতিষ্ঠান। এ লক্ষ্যে বিশেষায়িত জ্ঞান, দক্ষতা ও অভিজ্ঞতাসম্পন্ন একটি কর্মিবাহিনী গড়ে তোলা হয়েছে। দ্রুতই আরো কয়েকটি মিউচুয়াল ফান্ড চালু করতে চায় আইডিএলসি। দীর্ঘমেয়াদি বিনিয়োগের ক্ষেত্রে ফান্ডগুলো দেশের মানুষের জন্য চমত্কার বিকল্প হবে বলে আশা প্রকাশ করেন তিনি। ধস-পরবর্তী নিম্নমুখী বাজারেও আইডিএলসির ব্যবস্থাপনাধীন তহবিল গড়ে ১৭-১৮ শতাংশ হারে রিটার্ন দিয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আগামীতেও এমন রিটার্ন হবে, সেটি নিশ্চিত করে বলা যাবে না। তবে জেনে-বুঝে বিনিয়োগ করলে মন্দা বাজারেও মুনাফা করা সম্ভব, চাঙ্গা বাজারে যার সম্ভাবনা আরো বেড়ে যায়। তবে এজন্য অবশ্যই কোম্পানির সম্ভাবনা, বোর্ড ও ম্যানেজমেন্টের সততা-দক্ষতা, অর্থনীতি ও বাজার পরিস্থিতি ভালোভাবে বিশ্লেষণ করতে হয়। আইডিএলসির প্রতিটি প্রতিষ্ঠানেই সর্বোচ্চ কর্মদক্ষতা ও গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করতে প্রযুক্তিগত অবকাঠামো ও মানবসম্পদ উন্নয়নে জোর দেয়া হচ্ছে জানিয়ে আরিফ খান বলেন, গত ছয় মাসে আইডিএলসি কর্মীদের জন্য ৪ হাজার ৭৩৪ কর্মঘণ্টার প্রশিক্ষণ কর্মসূচি পরিচালিত হয়েছে, যার সুফল প্রতিষ্ঠানের সেবা, আয়, মুনাফা সবক্ষেত্রেই প্রতিফলিত হচ্ছে। গত ছয় মাসে আমাদের গ্রাহক সংখ্যা সাড়ে পাঁচ হাজারের বেশি বেড়ে ৪৭ হাজার ৯৫-এ উন্নীত হয়েছে, যা আমাদের লোন পোর্টফোলিওর আকার ১৩ শতাংশ বাড়াতে সহায়ক হয়েছে। এ সময়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে আমরা কয়েকটি নতুন শাখাও খুলেছি। প্রথমার্ধে আইডিএলসির ঋণ পোর্টফোলিও পর্যালোচনায় দেখা যায়, এসএমই, ভোক্তাঋণ এবং করপোরেট তিন ক্যাটাগরিতেই তাদের ঋণ বিতরণ বেড়েছে। তবে প্রবৃদ্ধিতে সবচেয়ে এগিয়ে ছিল এসএমই ১৮ দশমিক ৬ শতাংশ। এর পর ভোক্তাঋণ ৯ দশমিক ৪ শতাংশ। আগের বছরের একই সময়ের তুলনায় তাদের করপোরেট ঋণ ৪ দশমিক ৯ শতাংশ বেড়েছে। ৩০ জুন কোম্পানির ঋণ পোর্টফোলিওর ৪৫ শতাংশ ছিল এসএমইতে। ভোক্তাঋণ ছিল ৩৪ শতাংশ এবং বাকি ২১ শতাংশ ছিল করপোরেট ঋণ। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই) সূত্রে জানা গেছে, চলতি হিসাব বছরের প্রথম প্রান্তিকে ১ টাকা ৮০ পয়সা ইপিএস দেখিয়েছে আইডিএলসি, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ১ টাকা ১১ পয়সা। দ্বিতীয় (এপ্রিল-জুন) প্রান্তিকে ইপিএস হয়েছে ১ টাকা ৬২ পয়সা, আগের বছর একই সময়ে যা ছিল ১ টাকা ৪৯ পয়সা। ডিএসইতে সর্বশেষ ৭৩ টাকায় আইডিএলসির শেয়ার হাতবদল হয়। ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০১৬ হিসাব বছরের জন্য ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে আইডিএলসি। বার্ষিক ইপিএস ছিল ৭ টাকা ৮ পয়সা। ১৯৯২ সালে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির বর্তমান পরিশোধিত মূলধন ৩৭৭ কোটি ৫ লাখ ১০ হাজার টাকা। কোম্পানির মোট শেয়ারের মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালক ৫৯ দশমিক ৬৬ শতাংশ, প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারী ২১ দশমিক ১৬, বিদেশী ৫ দশমিক ৯৮ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে রয়েছে বাকি ১১ দশমিক ১০ শতাংশ শেয়ার ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই

শিরোনাম

শিরোনামচট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (চাকসু) নির্বাচনের নীতিগত সিদ্ধান্ত নিয়েছে কর্তৃপক্ষ শিরোনামসাফ নারী চ্যাম্পিয়নশিপের সেমিফাইনালে ভারতের কাছে ৪-০ গোলে হেরে বাংলাদেশের বিদায় শিরোনামবাসচাপায় আবরারের মৃত্যুর ঘটনায় ১০ লাখ টাকা ক্ষতিপূরণ দেয়ার নির্দেশ হাইকোর্টের শিরোনামযশোরের শার্শায় পিকআপ ভ্যানচাপায় স্কুলছাত্রীর পা বিচ্ছিন্ন শিরোনামরাজধানীতে সড়ক দুর্ঘটনায় বিইউপির ছাত্র নিহতের প্রতিবাদে প্রগতি সরণিসহ কয়েকটি সড়ক অবরোধ করে শিক্ষার্থীদের বিক্ষোভ; নিরাপদ সড়কের দাবিতে শাহবাগে ঢাবি শিক্ষার্থীদের অবস্থান শিরোনামসিঙ্গাপুরে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের সফলভাবে বাইপাস সার্জারি সম্পন্ন শিরোনামক্রাইস্টচার্চ হামলা: নিহতদের দাফন শুরু; এখনো হস্তান্তর হয়নি সব মরদেহ শিরোনামঢাকা-কলকাতা জাহাজ সার্ভিস চালু ২৯ মার্চ