পুঁজিবাজারে আসছে ‌‘রবি’

ঢাকা, বুধবার   ০১ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ১৮ ১৪২৬,   ০৭ শা'বান ১৪৪১

Akash

পুঁজিবাজারে আসছে ‌‘রবি’

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৯:০৯ ২১ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

সংগৃহীত

সংগৃহীত

দীর্ঘ প্রতীক্ষার পর প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে পুঁজিবাজারে আসছে দেশের দ্বিতীয় বৃহত্তম মোবাইল অপারেটর ‘রবি’। প্রতিষ্ঠানটির মূল কোম্পানি আজিয়াটা শুক্রবার মালয়েশিয়া স্টক এক্সচেঞ্জে এক ঘোষণায় জানিয়েছে, ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জে দশ টাকা অভিহিত মূল্যের ৫২ কোটি ৩৮ লাখ শেয়ার ছাড়ার পরিকল্পনা নিয়েছে তারা। যার মাধ্যমে তারা বিনিয়োগকারীদের কাছ থেকে সংগ্রহ করবে ৫২৩ কোটি টাকা।

বৃহস্পতিবার মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুরে আজিয়াটা গ্রুপের বোর্ড মিটিংয়ে রবি’কে ঢাকা ও চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেইঞ্জে নিবন্ধনের জন্য অনুমতি দেয়ার সিদ্ধান্ত হয়। পরে আজ শুক্রবার মালয়েশিয়ার একটি এক্সচেঞ্জে এ বিষয়ে আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেয়া হয়।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক রবি’র শীর্ষ একজন কর্মকর্তা জানান, শেয়ার বাজারে নিবন্ধনের অনুমোদন পেলেও দুটি শর্ত দিয়েছে আজিয়াটা। এর একটি হল কর্পোরেট ট্যাক্স ১০ শতাংশ কমাতে হবে। বর্তমানে মোবাইল ফোন অপারেটদের জন্য কর্পোরেটর ট্যাক্স আছে ৪৫ শতাংশ।

এছাড়া গত বাজেট থেকে কার্যকর হওয়া মোট রাজস্বের ওপর দুই শতাংশ হারে নূন্যতম ইনকাম ট্যাক্স আরোপ করে সরকার। পুঁজিবাজারে নিবন্ধনের শর্ত হিসেবে এটিও প্রত্যাহার চাইছেন তারা। ওই কর্মকর্তা আরো জানান, বিষয়টি নিয়ে তারা সরকারের সঙ্গে আলোচনা করে পরবর্তী করনীয় ঠিক করবেন।

এদিকে আজিয়াটা জানিয়েছে, ২০২০ সালের চতুর্থ প্রান্তিকের মধ্যে আইপিও এবং নিবন্ধনের কাজ শেষ করতে চায় তারা। গত ডিসেম্বর পর্যন্ত রবির মোট কার্যকর গ্রাহক আছে ৪ কোটি ৭৩ লাখ, যা দেশের মোট কার্যকর মোবাইল সংযোগের প্রায় ৩০ শতাংশ।

এরইমধ্যে আইপিরও জন্য রবি আইডিএলসি ইনভেস্টমেন্ট লিমিটেডকে ইস্যু ম্যানেজার হিসেবে নিয়োগ করেছে। তবে আনুষ্ঠানিকভাবে এখনো তারা নিবন্ধনের জন্য আবেদন করেনি।

সংশ্লিষ্টরা জানিয়েছেন, রবি যে শেয়ার ছাড়বে তার মধ্যে সাধারণ পাবলিক শেয়ার থাকবে ৩৮ কোটি ৭৭ লাখ ৪২ হাজার ৪০০টি। রবির পরিচালক-কর্মীদের জন্য এমপ্লয়ি শেয়ার পারচেজ প্লান (ইএসপিপি) এ থাকছে ১৩ কোটি ৬০ লাখ ৫০ হাজার ৯৩৪টি শেয়ার।

রবির মোট শেয়ার হলো ৪৭১ কোটি ৪১ লাখ ৪০ হাজার ১টি। যার মধ্যে আজিয়াটার হাতে রয়েছে ৩২৩ কোটি ৮৩ লাখ, ভারতী ইন্টারন্যাশনালের হাতে ১১৭ কোটি ৮৫ লাখ এবং জাপানের এনটিটি ডকোমোর কাছে রয়েছে ২৯ কোটি ৭৩ লাখ শেয়ার।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস