পুঁজিবাজারের ২৫ ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ দেবে ২২৬৫ কোটি
SELECT bn_content.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content.ContentID WHERE bn_content.Deletable=1 AND bn_content.ShowContent=1 AND bn_content.ContentID=191641 LIMIT 1

ঢাকা, বুধবার   ০৫ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২১ ১৪২৭,   ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

পুঁজিবাজারের ২৫ ব্যাংক নগদ লভ্যাংশ দেবে ২২৬৫ কোটি

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:০৭ ২ জুলাই ২০২০   আপডেট: ১৫:৩৯ ৩ জুলাই ২০২০

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

তারল্য সংকটের শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ২৫ ব্যাংক থেকে শেয়ারহোল্ডারদের ২ হাজার ২৬৫ কোটি টাকার নগদ লভ্যাংশ দেয়া হবে। এরইমধ্যে ব্যাংকগুলোর পর্ষদ সভায় এই লভ্যাংশ ঘোষণা করা হয়েছে, যা ব্যাংকগুলোর বার্ষিক সাধারণ সভায় (এজিএম) অনুমোদন শেষে বিতরণ করা হবে।

ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) প্রকাশিত তথ্য ও ব্যাংকগুলোর আর্থিক হিসাব বিশ্লেষণে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

জানা গেছে, শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত ৩০টি ব্যাংকের মধ্যে ২৫টি ব্যাংকের পর্ষদ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এই ব্যাংকগুলোর পর্ষদ মোট ২ হাজার ২৬৫ কোটি টাকার নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এ বছর শুধু বোনাস শেয়ার ঘোষণা করেছে এবি ব্যাংক, আইএফআইসি ব্যাংক, রূপালি ব্যাংক ও ফার্স্ট সিকিউরিটি ইসলামী ব্যাংক। আর লোকসানে থাকা আইসিবি ইসলামিক ব্যাংক এ বছরও কোনো লভ্যাংশ ঘোষণা করেনি।

সবচেয়ে বেশি নগদ লভ্যাংশ দেবে ইসলামী ব্যাংক। ব্যাংকটি শেয়ারহোল্ডারদের ১৬১ কোটি টাকার নগদ লভ্যাংশ দেবে। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৫২ কোটি ৮৬ লাখ টাকার নগদ লভ্যাংশ দেবে প্রাইম ব্যাংক। আর সিটি ব্যাংক দেবে তৃতীয় সর্বোচ্চ ১৫২ কোটি ৪৬ লাখ টাকার নগদ লভ্যাংশ।

লভ্যাংশ ঘোষণা করা ব্যাংকগুলোর মধ্যে ৩টির পর্ষদ ১৫ শতাংশের বেশি নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। তবে এই ঘোষণার পর বাংলাদেশ ব্যাংকের এক নির্দেশনায় এ বছর ১৫ শতাংশের বেশি নগদ লভ্যাংশে নিষেধাজ্ঞা দেয়া হয়েছে। যাতে বেশি লভ্যাংশ ঘোষণা করা ব্যাংকগুলোর এজিএম-এ তা কমিয়ে ১৫ শতাংশে নামিয়ে আনা হবে। আর বেশি অংশের জন্য বোনাস শেয়ার দেয়া হতে পারে।    

বাংলাদেশ ব্যাংকের নির্দেশনা জারির আগেই ১৫ শতাংশের বেশি নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে ইস্টার্ন ব্যাংক, ডাচ-বাংলা ব্যাংক ও এনসিসি ব্যাংক। এর মধ্যে ইস্টার্ন ব্যাংক ২৫ শতাংশ, ডাচ-বাংলা ব্যাংক ৩০ শতাংশ ও এনসিসি ব্যাংক ১৭ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। ব্যাংকগুলোকে এজিএম-এ এই বেশি নগদ লভ্যাংশ কমিয়ে আনার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেয়ার পরামর্শ দিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক এবং বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।

নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করা ব্যাংকগুলোর মধ্যে গড়ে উদ্যোক্তা এবং পরিচালকদের মালিকানা রয়েছে ৪০.৩৪ শতাংশ। এ হিসাবে উদ্যোক্তা এবং পরিচালকেরা মোট নগদ লভ্যাংশের ৯১৩ কোটি ৬৬ লাখ টাকা পাবে। বাকি ১ হাজার ৩৫১ কোটি ২৩ লাখ টাকা পাবে প্রাতিষ্ঠানিক ও সাধারণ বিনিয়োগকারীরা।

শেয়ারবাজারের চলমান তারল্য সংকটের মধ্যে ব্যাংকগুলোর এই বিশাল নগদ লভ্যাংশ বড় ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে বলে মনে করছেন বাজার সংশ্লিষ্টরা। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) পরিচালক শাকিল রিজভী বলেন, চলমান সংকটের সময় ব্যাংকের এই নগদ লভ্যাংশ খুবই ইতিবাচক খবর। এটার খুবই দরকার ছিল। ব্যাংকগুলোর নগদ লভ্যাংশে বাজারে গতি আনবে।

বাংলাদেশ মার্চেন্ট ব্যাংকার্স এসোসিয়েশনের (বিএমবিএ) সভাপতি ছায়েদুর রহমান বলেন, কিছু কিছু ব্যাংক প্রত্যাশার থেকে বেশি নগদ লভ্যাংশ ঘোষণা করেছে। এটি শেয়ারবাজারের জন্য সুখবর। তবে করোনাভাইরাসের কারণে ব্যাংক খাতের মুনাফায় ধস নামবে বলে অনেকে দ্বিধা-দ্বন্দ্বে রয়েছে। প্রকৃতপক্ষে ব্যাংকের সুদ গণনা কিন্তু থেমে নেই। আর এটাই ব্যাংকের মুনাফার প্রধান উৎস। তাই মুনাফায় খুব বড় হেরফের হবে না।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এসএস/জেডআর/আরআর