পাহাড়ে পাকা ধানে জুম চাষিদের মুখে হাসি

.ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৫ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১১ ১৪২৬,   ১৯ শা'বান ১৪৪০

পাহাড়ে পাকা ধানে জুম চাষিদের মুখে হাসি

 প্রকাশিত: ১৭:৪৫ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:৪৫ ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৮

rangamati news pic

rangamati news pic

রাঙামাটি পার্বত্য জেলায় পাকা ধানে ছেয়ে গেছে পাহাড়। ধান বাড়িতে তোলার কাজে ব্যস্ত সবাই।  চলছে ধান তোলার কর্ম ব্যস্ততা।  নতুন ধানের গন্ধে তৈরি হয়েছে উৎসবের পরিবেশ। শুরু হয়েছে আউশের জুম ধান কাটা।  গত মৌসুমের তুলনায় ধানের ফলনও ভালো হয়েছে।  জুম চাষিদের চোখেমুখে এখন আনন্দের হাসি। 

পার্বত্য চট্টগ্রামের ক্ষুদ্র নৃ-গোষ্ঠীদের সনাতনী কৃষি হচ্ছে পাহাড়ের ঢালে জুম চাষ।  ফাল্গুন-চৈত্র মাসে আগুনে পুড়িয়ে জুম চাষের জন্য জঙ্গল পরিস্কার করে জমিকে উপযুক্ত করে তোলা হয়।  বৈশাখ-জ্যৈষ্ঠ মাসে প্রস্তুতকৃত মাটিতে দা দিয়ে গর্ত করা হয়।  একসঙ্গে ধান, মারফা, মিষ্টি কুমড়া, তুলা, তিল, ভুট্টাসহ বিভিন্ন সবজি মশলা ও ফল বীজ রোপন করেন জুমিয়ারা।

জুম চাষিরা জানান, অন্যান্য বছরের তুলনায় চলতি বছর জুমের ফসল ভাল হয়েছে।  দীর্ঘ কয়েক মাস পরিশ্রম করে তারা এবার ভালো ফসল পেয়েছে।  ধানের পাশাপাশি মিষ্টি কুমড়া, তিল, আদা, হলুদ, ভুট্টা, শিম, মারফা, কাকন, মরিচ, তুলাসহ নানা প্রকার শাকসব্জির চাষ করা হয়েছে। জুমের নানা ফলফলাদি পেয়ে বন্যপ্রাণিরাও এখন জুমিয়াদের অতিথি হিসেবে জুমে বিচরণ করছেন।

সময় মতো ফসল ঘরে তুলতে পারলে জুম চাষিদের পুরো বছর খাদ্য সংকটে ভুগতে হবে।

রাঙামাটি উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা শান্তিময় চাকমা জানান, পাহাড়ে জুমিয়ারা স্থানীয় জাতের ধান চাষ করেন।  পাশাপাশি উচ্চ ফলনশীল ধান ও সবজির আবাদ করতে চাষিদের পরামর্শসহ যাবতীয় সুবিধা দেয়া হচ্ছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এসকে