সিলেটে নিম্নাঞ্চলের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়কে আশ্রয়কেন্দ্র ঘোষণা

ঢাকা, রোববার   ১২ জুলাই ২০২০,   আষাঢ় ২৮ ১৪২৭,   ২০ জ্বিলকদ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

সিলেটে নিম্নাঞ্চলের সব প্রাথমিক বিদ্যালয়কে আশ্রয়কেন্দ্র ঘোষণা

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৭:৫৫ ২৭ মে ২০২০   আপডেট: ১৮:৩১ ২৭ মে ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

টানা বৃষ্টি ও উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলে সিলেটের গোয়াইনঘাট ও জৈন্তাপুরসহ বিভিন্ন উপজেলার নিম্নাঞ্চল প্লাবিত হয়েছে। আকস্মিক বন্যায় তলিয়ে গেছে অনেক রাস্তাঘাট-বাড়িঘর। নিম্নাঞ্চলের সবকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহকে বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র ঘোষণা করা হয়েছে।

বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়েছে সড়ক যোগাযোগ। পানিবন্দি হয়ে পড়েছে শতাধিক মানুষ। উজান থেকে নেমে আসা ঢলের কারণে গোয়াইনঘাটের পিয়াইন ও সারী নদীর পানির বিপদ সীমার উপর দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে। এছাড়া সিলেটের প্রধান দুই নদী সুরমা ও কুশিয়ারার পানিও বিপদসীমার কাছ দিয়ে প্রবাহিত হচ্ছে । 

এদিকে পাহাড়ি ঢলে তলিয়ে গিয়ে ওসমান আলী নামে এক যুবক নিখোঁজ হয়েছেন। মঙ্গলবার বিকেল সাড়ে ৫টার দিকে উপজেলার রুস্তমপুর ইউপিতে মাটি কাপা রাস্তার ভাঙা অংশ পাড়ি দিতে গিয়ে স্রোতে তলিয়ে যান। নিখোঁজ ওসমান আলী রুস্তুমপুর ইউপির ভেড়িবিল গ্রামের আহমদ আলীর ছেলে। বুধবার সকাল পর্যন্ত তার সন্ধান পাওয়া যায়নি। 

মঙ্গলবার সকাল থেকে টানা বৃষ্টির কারণে সিলেটের গোয়াইনঘাট, জৈন্তাপুর ও কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার নিম্নাঞ্চলে আকস্মিক বন্যা দেখা দিয়েছে। পাহাড়ি ঢলে পানি বৃদ্ধির কারণে সিলেট-সালুটিকর-গোয়াইনঘাট, জাফলং রাধানগর গোয়াইনঘাট-সোনার হাট-গোয়াইনঘাট সড়কে যান চলাচল বন্ধ হয়ে পড়েছে। 

এছাড়া গোয়ানঘাট উপজেলা শহরের  সঙ্গেও সড়ক যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে গেছে। পানিবন্দি হয়ে পড়েছেন শতাধিক পরিবার। পাহাড়ি ঢলে সৃষ্ট বন্যায় উপজেলার ফসলের মাঠে ব্যাপক ক্ষয়ক্ষতির আশঙ্কা করা হচ্ছে। বিশেষ করে আউশের বীজতলা পানিতে তলিয়ে গেছে। পাহাড়ি ঢলে প্লাবিত হওয়ার কারণে ১০ থেকে ১৫ হেক্টর আউশের বীজতলা, প্রায় ৩০ হেক্টর বোনা আউশসহ ৫ হেক্টর সবজিতলা পানিতে নিমজ্জিত রয়েছে।

গোয়াইনঘাটের ইউএনও মো. নাজমুস সাকিব বলেন, উজান থেকে নেমে আসা পাহাড়ি ঢলের সৃষ্ট বন্যায় গোয়াইনঘাটের নিম্নাঞ্চল পানিতে তলিয়ে গেছে। এখন পর্যন্ত বড় ধরণের কোনো ক্ষয়ক্ষতির খবর পাওয়া যায়নি। সবকটি ইউপির সঙ্গে সার্বক্ষণিক যোগাযোগ রয়েছে। উপজেলার নিম্নাঞ্চলের সবকটি প্রাথমিক বিদ্যালয়সমূহকে বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র ঘোষণা করা হয়েছে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এমকে/এআর