Alexa পানির দামে সুপারি

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৪ নভেম্বর ২০১৯,   কার্তিক ২৯ ১৪২৬,   ১৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪১

Akash

পানির দামে সুপারি

খেলাফত হোসেন খসরু, পিরোজপুর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:০৭ ৭ নভেম্বর ২০১৯  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

খরচ কম হওয়ায় সুপারি চাষে ঝুঁকেছিলেন পিরোজপুরের অসংখ্য চাষি। এ বছর সুপারির বাম্পার ফলনও হয়েছে। তবুও হাসি নেই তাদের মুখে।

গত বছরের তুলনায় দাম কম হওয়ায় চাষিদের কপালে চিন্তার ভাজ পড়েছে। নিজেদের চাহিদা মিটিয়ে ঢাকা, কিশোরগঞ্জসহ দেশের বিভিন্ন প্রান্তে  পানির দামে সুপারি সরবরাহ করছেন তারা।

ইন্দুরকানিসহ বিভিন্ন উপজেলার সুপারির হাট ঘুরে এ তথ্য জানা গেছে। এসব হাটে প্রতিদিনই ভিড় জমাচ্ছেন ফড়িয়া-পাইকাররা। কিন্তু ন্যায্য দাম দিচ্ছেন না কেউ।

আড়তদাররা জানান, রপ্তানির জন্য সুপারি মজুদ করা হচ্ছে। শ্রাবণ মাস থেকে শুরু হওয়া এ হাট থাকবে আরো মাসখানেক।

সদর উপজেলার সুপারি চাষি মো. আলী বলেন, আমার বাড়িতে তিন শতাধিক গাছ আছে। প্রতি বছরই সুপারি বিক্রি করি। সুপারি চাষে খরচ-পরিশ্রম কম। কিন্তু এ বছর দাম কম হওয়ায় লাভ আসছে না।

তিনি আরো বলেন, গত বছর এক কুড়ি পাকা সুপারি বিক্রি হয়েছে ৩৫০ টাকায়। এবার ২০০-২৫০ টাকার বেশি দাম উঠছে না। আধপাকা সুপারির দাম আরো কম।

ইন্দুরকানি উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা হুমায়রা সিদ্দিকা বলেন, এ উপজেলার বিভিন্ন হাট-বাজার থেকে প্রতি বছর কয়েক কোটি টাকার কাঁচা-পাকা সুপারি দেশ-বিদেশে পাঠানো হয়। আমাদের সুপারি ভারতসহ দক্ষিণ এশিয়ার কয়েকটি দেশে রফতানি করা হয়।

জেলা কৃষি অফিসার আবু হেনা মো. জাফর বলেন, উপকূলীয় জেলাগুলোর মধ্যে পিরোজপুরে সুপারির উৎপাদন সবচেয়ে বেশি। তবে দাম কম হওয়ায় চাষিদের লোকসান হচ্ছে। সুপারি চাষিদের কারিগরি সহায়তা ও পরামর্শ দিতে মাঠ পর্যায়ে কর্মকর্তারা কাজ করছেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এআর