Alexa ‘পানির দরে’ বিক্রি হচ্ছে গ্রাম

ঢাকা, সোমবার   ১৬ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ১ ১৪২৬,   ১৬ মুহররম ১৪৪১

Akash

‘পানির দরে’ বিক্রি হচ্ছে গ্রাম

ফিচার ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:২৮ ৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

শহুরে ঝামেলা অনেকেরই পছন্দ না। প্রকৃতির মধ্যে জীবন কাটাতে চান অনেকেই। তাই অনেকেই এমন নিরিবিলি স্থানে জায়গা-জমি, বাড়ি অথবা ফ্ল্যাট কিনে থাকেন। কিন্তু এমন যদি হয়, সবুজে ঘেরা পুরো পাহাড়ি গ্রামটিই আপনার? কি স্বপ্ন মনে হচ্ছে? এটি বাস্তব। বিশ্বজুড়ে এমন বহু গ্রাম আছে, যেগুলো বিক্রি হতে চলেছে।

অনেক পুরনো মালিক গ্রাম হস্তান্তর করতে চাচ্ছেন বা গ্রামের উন্নতির স্বার্থে প্রশাসন উদ্যোগী হয়ে কোনো একজনকে গ্রামের মালিকানা দিতে চাচ্ছেন। যদি বাজেটের মধ্যে হয়, আপনিও হতে পারেন এসব গ্রামের মালিক। চলুন জেনে নেয়া যাক সেই গ্রামগুলো সম্পর্কে-

১. আমেরিকার জর্জিয়ার একটি দ্বীপ লিটল হকিনস। প্রকৃতির কাছাকাছি গিয়ে সব সুবিধা নিয়ে নির্জনে দিন কাটানোর একটি উপযুক্ত গ্রাম এটি। এ গ্রামে মোট চারটি বাড়ি আছে। এর মধ্যে একটি বিশাল বাড়ি, দুটি কটেজ ও একটি ক্লাবহাউস। সামনে বিস্তৃত জলাশয়। পুরো গ্রামের মূল্য প্রায় ১৫০ কোটি ২৮ লাখ টাকা।

২. পশ্চিম অস্ট্রেলিয়ার এক মফস্বল এলাকা ‘লট ৮৩ র‌্যাডবার্ন রোড’। সেখানে আছে ২০টি কটেজ, একটি টাউন হল, দুটি টেনিস কোর্ট আর একটি ক্রিকেট মাঠ। ১৯৪৯ সালে গড়ে উঠেছিল এ গ্রাম। ২০০৮ সাল পর্যন্ত বেশ রমরমা ছিল। এখন লোকজন প্রায় নেই বললেই চলে। একটু মেরামতি করলে ফের পর্যটকদের মনের মতো করে ফেলা যাবে। এর মূল্য প্রায় ছয় কোটি ৯০ লাখ টাকা।

৩. উত্তর ফ্রান্সের নরম্যান্ডির একটি ছোট পাহাড়ি গ্রামের নাম হ্যামলেট, নরম্যান্ডি। আছে একটি বিশাল বাড়ি। আশপাশে আছে বেশ কয়েকটি কটেজ। এর মধ্যে পর্যটকদের জন্য বানানো হয়েছে দুটি স্টোন কটেজ। এ পাহাড়ি গ্রাম কিনতে হলে তিন কোটি ৯০ লাখ টাকা খরচ করতে হবে।

৪. ১৮৫১ সালে যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানায় গড়ে উঠেছিল স্টোরি গ্রাম। ১৭.৪ একর জমিজুড়ে গ্রামের বিস্তৃতি। মাত্র কয়েকটি পরিবারই এখানে বাস করতো। তারা ক্রমে গ্রাম ছেড়ে অন্যত্র চলে যাওয়ায় একসময় এটি ‘ঘোস্ট টাউন’ হিসেবে পরিচিত ছিল। ১৯৯৯ সালে প্রায় ৩২ কোটি টাকা দিয়ে এটি কিনেছিলেন বর্তমান মালিক। তবে তিনি এখন এটি বিক্রি করে দিতে চাচ্ছেন।

৫. ওয়েলসে স্লেটখনির কাছে মূলত শ্রমিকদের বসবাসের জন্য গড়ে উঠেছিল অ্যালবারলেফেনি গ্রাম। ১২ কোটি ৬৬ লাখ হাজার টাকায় এই গ্রাম বিক্রি হবে। মোট ১৬টি কটেজ আছে; যার বেশির ভাগই ভাড়া দেয়া হয়েছে।

৬. আমেরিকার রিডাকশন কোম্পানি গড়ে তুলেছিল রিডাকশন গ্রাম। পেনসিলভানিয়ার এ গ্রামে একসময় ৪০০ লোকের বাস ছিল। বর্তমানে সেটি কমে দাঁড়িয়েছে ৬০ জনে। ৯ কোটি ২৮ লাখ টাকায় গ্রামটি কিনতে পারেন। মোট ১৯টি পাকা বাড়ি আছে সেখানে।

৭. জর্জিয়ার একেবারে কেন্দ্রে অবস্থিত টুমসবরো গ্রাম। ৭০০ লোকের বাস এ গ্রামে। প্রায় ১৪ কোটি ৩৫ লাখ টাকায় বিক্রি হচ্ছে এই গ্রাম। একটি পুরনো ব্যাংক, রেল রোড ডিপো ও একটি সিরাপমিল আছে এ গ্রামে। ১৯৭৫ সালে সোয়্যাম্পল্যান্ড অপেরা হাউস এ গ্রামেই গড়ে উঠেছিল। ২০০০ সালে তা বন্ধ হয়ে যাওয়ার পরই গ্রামে লোক কমতে থাকে।

৮. উত্তর স্পেনে ১০০ একর জমির ওপর গড়ে উঠেছিল ও পেনসো গ্রাম। এক দশক আগে সেখানে জনবসতি ছিল। এখন আর কেউ থাকে না। নতুন করে গ্রামটিকে পর্যটনকেন্দ্র হিসেবে গড়ে তোলার জন্য এই বিক্রির সিদ্ধান্ত। চারটি বাড়ি বানানো হয়েছে এর জন্য। পাতকুয়া, বেকারি সহযোগে ১০০ একরের এই গ্রামের মূল্য প্রায় দুই কোটি পাঁচ লাখ টাকা।

৯. ১৯৬০ সালে পুরোপুরি পরিত্যক্ত হয়ে যায় পোগিও সান্টা গ্রাম। ইতালির তাস্কানের এ গ্রামে ৫০টি বাড়ি, দুটি জলাশয়, ২৩ এক জমির ওপর ফলের বাগান এবং ২০০ একর জমিতে জঙ্গল রয়েছে। এর মূল্য প্রায় ৩৭১ কোটি ৫৩ লাখ টাকা।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এএ