পানিতে ভাসছে রংবেরঙের বৃত্ত, এর থেকেই রোগ মুক্তি!

ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২১ ১৪২৬,   ১০ শা'বান ১৪৪১

Akash

পানিতে ভাসছে রংবেরঙের বৃত্ত, এর থেকেই রোগ মুক্তি!

মো: হাসানুজ্জামান ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৩:০১ ১৫ মার্চ ২০২০   আপডেট: ১৩:০৯ ১৫ মার্চ ২০২০

ছবি: স্পটেড লেক

ছবি: স্পটেড লেক

পানির উপর গোল হয়ে ভেসে আছে হলুদ, নীলসহ নানা রং। অবাক করা এক দৃশ্য। যেন মনে হবে আলপনা আঁকা রয়েছে। আসলে এই পুরো দৃশ্যটিই প্রাকৃতিক সৌন্দর্য। এটি একটি লেকের দৃশ্য।

শীত কিংবা বসন্তে লেকটির পানি স্বাভাবিকই থাকে। তবে গ্রীষ্মের সময় বৈচিত্রময় এই সৌন্দর্য চোখে পড়ে। বলছি, স্পটেড লেকের কথা। কানাডার ব্রিটিশ কলোম্বিয়া অংশের ওসোয়াসের উত্তর-পশ্চিম অঞ্চলের ওকানাগান ভ্যালিতে অবস্থিত এই লেকটি। 

এই লেকের পানিতে রয়েছে বিভিন্ন খনিজ লবণ। যা গ্রীষ্মের রোদে বাষ্পীভূত হয়ে লেকের পানির উপরে এসে জমাট বাধে। গোলাকারভাবে এই লবণগুলো জমাট বাধায় এগুলো দেখতে রহস্যময় বলে মনে হয়। পরবর্তীতে এগুলো নানা রঙে রঙিন হতে থাকে। হলুদ, সবুজ ও নীল রঙের অসংখ্য লবণের গোলা পানিতে ভাসতে থাকে। যা দূর থেকে দেখলে মনে হয় যেন আলপনা আঁকা।

স্পটেড লেকের পানিতে অনেক বেশি পরিমাণ খনিজের উপস্থিতির কারণে পানিতে রংবেরঙের স্পট তৈরি হয়। ক্যালসিয়াম, সোডিয়াম সালফেট এবং ম্যাগনেসিয়াম সালফেটের মাত্রাতিরিক্ত উপস্থিতি আছে এই পানিতে। লেকের চারদিকের পাহাড় এসব খনিজ এবং লবণের মূল উৎস। পানির বিভিন্ন রং নির্ভর করে খনিজের উপস্থিতির উপর। 

ব্রিটিশ কলম্বিয়া ভিজিটর সেন্টারের তথ্যানুযায়ী, ওকানাগান জাতির স্থানীয় জনগণ স্পটেড লেকটি দেশের জন্য পবিত্র স্থান হিসেবে বিবেচনা করে। তারা বিশ্বাস করে, প্রতিটি রঙের গোলাকার বৃত্ত স্বতন্ত্র রোগ থেকে আরোগ্য দেয় এবং এগুলোর ওষুধি গুণও রয়েছে। স্থানীয়দের কাছে অবশ্য লেকটি ক্লিলুক নামে পরিচিত। 

লেকের চারদিকের ভূমি একসময় ব্যক্তি মালিকানাধীন ছিল। তবে ২০০১ সালে রাষ্ট্রীয় মালিকানায় আনা হয়। যাতে এর প্রাকৃতিক ভারসাম্যতা নষ্ট না হয়। প্রথম বিশ্বযুদ্ধের সময় এই লেকের খনিজ ব্যবহার করে বিস্ফোরক তৈরি করা হয়েছিল। একসময় শ্রমিকরা প্রতিদিন প্রায় এক টন করে খনিজ লবণ উত্তলন করেছে এই লেক থেকে। 

জানা যায়, খনিজ উত্তোলনের পূর্বে লেকের সৌন্দর্য আরো বেশি ছিল। বর্তমানে দর্শনার্থীদের খুব কাছে যেতে দেয়া হয় না। কারণ এটি এখন পরিবেশগত এবং সংস্কৃতিক অঞ্চল হিসেবে সংরক্ষিত। তবে লেক সংশ্লিষ্ট হাইওয়ে থেকে রংবেরঙের অসংখ্য গোলাকৃতির স্পট দেখা যায়। যদিও বৈজ্ঞানিকভাবে এই দৃশ্যের ব্যাখ্যা মিললেও এই গোলাকার স্পট সৃষ্টির কারণ স্থানীয়দের কাছে এখনো এক রহস্য!

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস