Alexa পাকিস্তানের ঘরের মাঠে জিতল অস্ট্রেলিয়া

ঢাকা, বুধবার   ২৪ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৯ ১৪২৬,   ২০ জ্বিলকদ ১৪৪০

পাকিস্তানের ঘরের মাঠে জিতল অস্ট্রেলিয়া

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:৪২ ২৩ মার্চ ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

পাকিস্তানের বিপক্ষে ওয়ানডে সিরিজও জয়ে শুরু করলো আস্ট্রেলিয়া। অ্যারন ফিঞ্চের সেঞ্চুরিতে শারজার প্রথম ওয়ানডে অস্ট্রেলিয়া জিতেছে ৮ উইকেটে।

হারিস সোহেলের প্রথম ওয়ানডে সেঞ্চুরিতে নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেটে পাকিস্তান স্কোরে জমা করে ২৮০ রান। জবাবে অধিনায়ক ফিঞ্চের শতকে মাত্র ২ উইকেট হারিয়ে ৬ বল আগেই জয় নিশ্চিত করে অস্ট্রেলিয়া। 

এই জয়ে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০তে এগিয়ে গেল সফরকারীরা।

শুক্রবার শারজা স্টেডিয়ামে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে পাকিস্তান উদ্বোধনী জুটি থেকে পায় ৩৫ রান। ১৭ রান করে ইমাম-উল-হক ফিরে গেলে হারায় প্রথম উইকেট। আরেক ওপেনার ওয়ানডে অভিষিক্ত শান মাসুদ করেন ৪০। তাদের আউটের পর বড় জুটি গড়েন হারিস সোহেল ও লম্বা সময় পর ওয়ানডেতে ফেরা উমর আকমল।

নাথান কোল্টার-নাইলের বলে উমর আকমল ৪৮ রান করে ফিরলেও হারিস তুলে নেন ওয়ানডে ক্যারিয়ারের প্রথম সেঞ্চুরি। ওয়ান ডাউনে নেমে ১০১ রানে অপরাজিত থেকে ইনিংস শেষ করেন তিনি।

১১৫ বলের ইনিংসটি হারিস সাজান ৬ বাউন্ডারি ও ১ ছক্কায়। তার সঙ্গে ফাহিম আশরাফের ২৮ ও ইমাদ ওয়াসিমের ১৩ বলে হার না মানা ২৮ রানের ইনিংসে ভর দিয়ে পাকিস্তানের ইনিংস শেষ হয় ২৮০ রানে।

পাকিস্তানের ঘরের মাঠে এই সংগ্রহটা অস্ট্রেলিয়ার জন্য ছিল চ্যালেঞ্জের। যদিও ফর্মে থাকা বিশ্ব চ্যাম্পিয়নদের জয় পেতে খুব একটা বেগ পেতে হয়নি। শেষ দিকে বল ও রানের হিসাব পাশাপাশি হাঁটলেও হাতে উইকেট থাকায় অসুবিধা হয়নি কোনো। আর এই জয়ের ভিতটা গড়ে দিয়েছেন ফিঞ্চ। অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক ওপেনিংয়ে নেমে খেলেন ১১৬ রানের চমৎকার ইনিংস। ১৩৫ বলের ইনিংসে মেরেছেন ৮ চার ও ৪ ছক্কা।

গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখেছেন শন মার্শও। আগেই জয় নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় সেঞ্চুরি পাওয়া হয়নি তার। ফিঞ্চের আউটের পর বাকি কাজ সেরেছেন ৯১ রানে অপরাজিত থাকা মার্শ। ১০২ বলের ইনিংসটি তিনি সাজান ৪ বাউন্ডারি ও ২ ছক্কায়। আর তার সঙ্গে ম্যাচ জিতে মাঠ ছাড়েন ৩০ রানে অপরাজিত থাকা পিটার হ্যান্ডসকম্ব। এর আগে উসমান খাজার ব্যাট থেকে আসে ২৪ রান।

অস্ট্রেলিয়ার ব্যাটসম্যানদের দাপটের সামনে একটি করে উইকেট পেয়েছেন মোহাম্মদ আব্বাস ও ফাহিম আশরাফ। 

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ