Alexa পাঁচ টাকার নোটে মুদ্রিত মসজিদটি ঘুরে আসুন

ঢাকা, সোমবার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ৪ ১৪২৬,   ২২ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

পাঁচ টাকার নোটে মুদ্রিত মসজিদটি ঘুরে আসুন

ভ্রমণ প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৬ ২৩ জানুয়ারি ২০২০  

কুসুম্বা মসজিদ

কুসুম্বা মসজিদ

পাঁচ টাকার নোটে মুদ্রিত মসজিদটির নাম ‘কুসুম্বা মসজিদ’। ঐতিহাসিক এ মসজিদটির অবস্থান নওগাঁ জেলার মান্দা উপজেলায়। প্রতিদিন শত শত দর্শনার্থী আসেন এ মসজিদটি দেখার জন্য।

প্রায় সাড়ে চারশত বছরের ঐতিহ্য ধারণ করে দাঁড়িয়ে আছে কুসুম্বা মসজিদ। সুলতানি আমলের একটি পুরাকীর্তি এটি। মসজিদটি উত্তর-দক্ষিণে ৫৮ ফুট লম্বা, চওড়ায় ৪২ ফুট ও দেয়াল ৬ ফুট পুরু। মসজিদের সন্মুখভাগে তিনটি দরজা রয়েছে। দরজাগুলো খিলানযুক্ত মেহরাব আকৃতির। মসজিদের চার কোনায় চারটি মিনার রয়েছে। ছাদের ওপর আছে মোট ৬টি গম্বুজ।

কুসুম্বা মসজিদের মূল গাঁথুনি ইটের। তবে বাইরের দেয়াল এবং ভেতরের কিছু অংশ পাথর দিয়ে আবৃত। এর স্তম্ভ, ভিত্তিমঞ্চ, মেঝে ও পাশের দেয়ালের জালি-নকশা পাথরের তৈরি। আয়তাকার এ মসজিদ তিনটি ‘বে’ ও দুটি ‘আইলে’ বিভক্ত। পূর্ব দিকে তিনটি এবং উত্তর ও দক্ষিণে একটি করে প্রবেশপথ আছে। কেন্দ্রীয় মিহরাবটি পশ্চিম দেয়াল থেকে সামান্য অবিক্ষিপ্ত। কুসুম্বা মসজিদের মিহরাব নির্মাণ ও অলংকরণে খোদাইকারেরা চরম নৈপুণ্যের পরিচয় দিয়েছেন।

কুসুম্বা মসজিদ

মসজিদসংলগ্ন উত্তর-দক্ষিণ দিকে রয়েছে ৭৭ বিঘার একটি বিশাল দিঘি। লম্বায় প্রায় ১২০০ ফুট ও চওড়ায় প্রায় ৯০০ ফুট এটি। গ্রামবাসী ও মুসল্লিদের খাবার পানি, গোসল ও অজুর প্রয়োজন মেটানোর জন্য দিঘিটি খনন করা হয়েছিল। এ দিঘির পাড়েই নির্মাণ করা হয়েছে ঐতিহাসিক কুসুম্বা মসজিদ।

ইতিহাস বলছে, আফগানী শুর বংশের শাসক গিয়াসউদ্দিন বাহাদুর শাহের আমলে সোলায়মান নামের এক ব্যক্তি ১৫৫৮ খ্রিস্টাব্দে কুসুম্বা মসজিদ নির্মাণ করেন। মসজিদের ভেতরে উত্তর-পশ্চিম দিকে তৎকালীন সময়ে বিচার কার্যপরিচালনার জন্য উঁচু স্তম্ভের উপর একটি আসন দেখতে পাওয়া যায়। প্রবেশপথ থেকে সামান্য দূরে বাক্স আকৃতির একটি কালো পাথর দেখা যায়, যা একটি শিশুর কবর হিসাবে লোকমুখে প্রচলিত আছে। তবে পাথরের গায়ে আরবি হরফে লেখা থেকে নিশ্চিত হওয়া যায় এই প্রস্তুরটি হুসেন শাহের স্মৃতি বিজড়িত।

মসজিদে ঘুরতে আসা সিয়াম হোসেন এক পর্যটক বলেন, এখানে আসার ইচ্ছেটা অনেকদিনের ছিল। কারণ প্রতিদিনই পাঁচ টাকার নোটের উপর এ মসজিদের ছবি দেখি। তবে এখানে এসে মনে হলো বিপুল সম্ভবনা থাকার পরও প্রয়োজনীয় নজরদারির অভাবে কুসুম্বা মসজিদ আকর্ষনীয় স্পট হিসাবে গড়ে উঠছে না।

ঢাকা থেকে রাজশাহীগামী যে কোনো বাসে চড়ে রাজশাহী-নওগাঁ হাইওয়ের কাছে কুসুম্বা মসজিদ দেখতে যেতে পারবেন। থাকার জন্য নওগাঁতে জেলা পরিষদের একটি ডাকবাংলো রয়েছে। এছাড়া বেশকিছু সাধারণ মানের আবাসিক হোটেল রয়েছে। জেলার দেলুয়াবাড়ি বাজারে বেশকিছু মিষ্টান্ন ভান্ডার ও রেস্তোরাঁয় খাবার খেতে পারবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনকে