Alexa পঞ্চাশোর্ধ নারী ১৯ সপ্তাহের গর্ভবতী, বিস্মিত নারী নিজেই

ঢাকা, রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

পঞ্চাশোর্ধ নারী ১৯ সপ্তাহের গর্ভবতী, বিস্মিত নারী নিজেই

নাটোর প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:১৮ ২০ আগস্ট ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

বয়স ৫৫ বছর। বাড়ি নাটোরের সিংড়া উপজেলায়। দুই ছেলে ও দুই মেয়েকে বিয়ে দিয়েছেন কয়েক বছর আগে। জামাতা ও নাতি-নাতনি সহ বিশাল এক পরিবারের গৃহকর্ত্রী তিনি। নারী জনিত শারীরিক সমস্যা দেখা দিলে স্থানীয় এক পল্লী চিকিৎসকের পরামর্শে তিনি যান শহরের একতা ক্লিনিকের মালিক নাটোর স্বাস্থ্য বিভাগের (মাতৃসদনের) গাইনি ও প্রসূতি বিশেষজ্ঞ ডা. মাজেদুল ইসলামের কাছে।

ডা. মাজেদুল ইসলাম ওই রোগীকে দেখে আলট্রাসনোগ্রাম করার জন্য বলেন। রোগী সম্মতি জানালে ডাক্তার মাজেদ সনোলজিস্ট হিসেবে নিজেই রোগীর আলট্রাসনোগ্রাম করেন। ওই রোগীর আলট্র্রোসনোগ্রাম করার পর ডা. মাজেদুল ইসলামের স্বাক্ষরিত রিপোর্ট দেয়া হয়। রিপোর্টে রোগীকে ১৯ সপ্তাহের গর্ভবতী বলে উল্লেখ করা হয়। ওই রিপোর্ট দেখে ওই নারী বিস্মিত হন এবং এই বয়সে গর্ভবতী হওয়ার লজ্জায় পড়েন তিনি।

ছেলে-মেয়ে জামাতা ও নাতি-নাতনিদের সামনে কিভাবে দাঁড়াবেন বা কি জবাব দেবেন এমন চিন্তা পেয়ে বসে তার। এক সময় কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। পরে লজ্জা নিয়েই বাড়ি ফিরে যান। ছেলে-মেয়ে সহ পরিবারের সবাই তার কান্না-কাটি কারণ জানতে চান। এক সময় সব খুলে বললে তাদের চোখ কপালে ওঠে। তারাও বিশ্বাস করতে পারছিলেন না। এক সময় তারা জোর করেই শহরের অন্য দুটি ডায়াগনস্টিক সেন্টারে নিয়ে আবারো আলট্রাসনোগ্রাম করানো হয়। ওই দুটি প্রতিষ্ঠান থেকে দেয়া রিপোর্টে ওই নারীকে গর্ভবতী নন বলে উল্লেখ করা হয়।

তার পরিবারের লোকজন বিষয়টি সম্পর্কে ডা. মাজেদুল ইসলামের কাছে জানতে চাইলে তিনি প্রথমে তাদের কিছুই বলেননি। পরে কড়া ভাষায় জিজ্ঞাসা করলে তিনি বলেন, হয়ত ভুল হয়েছে।

এদিকে, স্থানীয়দের অভিযোগ আগেও বেশ কয়েকজন বৃদ্ধার ক্ষেত্রে ডা. মাজেদুল ইসলামের আলট্রাসনোগ্রাম রিপোর্টে ১৯ সপ্তাহের গর্ভবতী উল্লেখ করা হয়েছে। এনিয়ে তাদেরও বিপাকে পড়তে হয়েছে।

এ বিষয়ে জানতে মোবাইল ফোনে ডা. মাজেদুল ইসলামের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি এই অভিযোগকে ভিত্তিহীন দাবি করে বলেন, রোগী বা তার কোনো প্রতিনিধি তাকে এ বিষয়ে কিছু বলেননি। এছাড়া রোগীকে কি চিকিৎসা দেয়া হয়েছে। সে বিষয়টি তার জানা নেই। তার দেয়া রিপোর্ট ও রোগীকে তার সঙ্গে সাক্ষাতের কথা বলেন তিনি। তবে তিনি এটিকে প্রিন্টিং মিসটেকও হতে পারে বলে জানান।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ