ন্যূনতম মজুরি আট হাজার টাকা প্রত্যাখ্যান শ্রমিকদের

.ঢাকা, শুক্রবার   ২৬ এপ্রিল ২০১৯,   বৈশাখ ১৩ ১৪২৬,   ২০ শা'বান ১৪৪০

ন্যূনতম মজুরি আট হাজার টাকা প্রত্যাখ্যান শ্রমিকদের

 প্রকাশিত: ১৫:১৮ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮   আপডেট: ২০:১২ ১৪ সেপ্টেম্বর ২০১৮

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন

গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন

তৈরি পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি আট হাজার টাকা করার সরকারি ঘোষণা প্রত্যাখ্যান করেছে গার্মেন্ট শ্রমিক ট্রেড ইউনিয়ন কেন্দ্র।

শুক্রবার সকালে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে অবস্থান বিক্ষোভ সমাবেশ কর্মসূচি পালন করেছে কয়েকশ' পোশাক শ্রমিক। এতে অবিলম্বে ঘোষিত মজুরি পুনর্বিবেচনা করে ১৬ হাজার টাকা নির্ধারণের দাবি জানানো হয়। তারা সরকারের সিদ্ধান্তে প্রতিবাদে একটি মিছিলও বের করেন।

শাহবাগ থানার ওসি আবুল হাসান এ কথা জানিয়েছেন।

সমাবেশে সংগঠনের সাধারণ সম্পাদক শ্রমিক নেতা জলি তালুকদার বলেন, সরকারের পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি অন্যায্য ও অগ্রহণযোগ্য। তিনি সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনার অনুরোধ জানান।

সমাবেশে নেতারা বলেন, বর্তমান বাজারে আট হাজার টাকা দিয়ে কারো পক্ষে জীবন ধারণ করা এবং উৎপাদন অব্যাহত রাখা সম্ভব নয়। দেশের সর্বোচ্চ রফতানি আয় করা শ্রমিকরা এই চরম বৈষম্য কখনোই মেনে নেবে না।

এর আগে বৃহস্পতিবার বিকেলে শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মুজিবুল হক চুন্নু জানান, তৈরি পোশাক শ্রমিকদের ন্যূনতম মজুরি আট হাজার টাকা নির্ধারণ করেছে সরকার। আগামী ডিসেম্বরে প্রজ্ঞাপন প্রকাশের পর এই সিদ্ধান্ত কার্যকর হবে।

তিনি জানান, বাংলাদেশ শ্রমিক আইন অনুযায়ী যেহেতু পাঁচ বছর পরে মজুরি পুনঃনির্ধারণের একটি বিধান রয়েছে তাই নতুন মজুরি নির্ধারণ করা হয়েছে। ডিসেম্বরের মধ্যে এই বিষয়ে প্রজ্ঞাপন প্রকাশিত হবে।

'নতুন মজুরি কাঠামোতে মূল বেতন ৪,১০০ টাকা। আগের বারের তুলনায় এই বেতন ৫০ শতাংশ বৃদ্ধি করা হয়েছে। ২০০৬ সালে ন্যূনতম মজুরি ছিল ১,৬৬২.৫০ টাকা, ২০১০ সালে ৩০০০ টাকা এবং ২০১৩ সালে ছিল ৫,৩০০ টাকা’, উল্লেখ করেন শ্রম প্রতিমন্ত্রী।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআরকে