নৌকার প্রচারণায় নেই মহাজোট

ঢাকা, বুধবার   ১৯ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৬ ১৪২৬,   ১৫ শাওয়াল ১৪৪০

সিসিক নির্বাচন

নৌকার প্রচারণায় নেই মহাজোট

 প্রকাশিত: ১৩:০৬ ২১ জুলাই ২০১৮   আপডেট: ১৩:০৬ ২১ জুলাই ২০১৮

ফাইল ফটো

ফাইল ফটো

সিসিকে আওয়ামী লীগের দলীয় মেয়র প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে মহাজোটও সমর্থন দিয়েছে। তবে এখনো মহাজোটের বেশির ভাগ দল তার পক্ষে মাঠে নামেননি। মহাজোটের অন্যতম শরীক দল জাতীয় পার্টিও আনুষ্ঠানিকভাবে প্রচারণা শুরু করেনি।

জোটের নেতারা বলছেন, সিসিক নির্বাচনের প্রচারণা বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেয়া হয়নি। দু-এক দিনের মধ্যে প্রচারণায় নামা কিংবা না নামা নিয়ে সিদ্ধান্ত হতে পারে।

অথচ তফসিল ঘোষণার পর থেকে সিসিক নির্বাচন নিয়ে জাতীয় পার্টি কোনো কার্যক্রমে নেই। মহাজোটের অন্য শরিক দলগুলো নৌকা প্রতীকের পক্ষে প্রচারণায় মাঝে মাঝে অংশ নিলেও জাতীয় পার্টি এ ব্যাপারে উদাসীন। মেয়র এমনকি কাউন্সিলর প্রার্থীও নেই তাদের।

সিসিক নির্বাচনে অন্য রাজনৈতিক দল বিএনপি, আওয়ামী লীগ, জামায়াত, বাসদ, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলন তাদের প্রার্থী ঘোষণা করলেও এসবে নেই জোটের শরীক দলগুলো।

নির্বাচনে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোট থাকলেও ১৪ দলের প্রার্থী হিসেবে মহানগর আওয়ামী লীগের সভাপতি বদর উদ্দিন আহমদ কামরানকে ঘোষণা করা হয়।

জোট-মহাজোটের পক্ষে প্রচার-প্রচারণায় কিছু দল অংশগ্রহণ করলেও মহাজোটের প্রার্থী বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের পক্ষে জাতীয় পার্টিসহ জোটের বেশীর ভাগ দলকেই মাঠে দেখা যায়নি।

ছাত্রলীগ, যুবলীগ কিংবা সেচ্ছাসেবকলীগ মাঠে-ঘাটে, পাড়া-মহল্লায় থাকলেও জোটের শরীক দলগুলো না থাকার কারণ নয় বছরে সিলেটে জোটের পাওয়া-না পাওয়ার হিসাব কষছেন তারা। মহাজোট সরকারের নয় বছরে সিলেটে জোটের নেতাদের অমূল্যায়ন, অসহযোগিতা ও সরকারের বিভিন্ন স্তরে জোটের দলগুলোকে অংশগ্রহণ না করার কারণ বলে মনে করেন অনেকে। আর এর সুযোগ নিতে পারেন বিএনপি-জামায়াতের প্রার্থীরা।

জোটের একাধিক সূত্র জানিয়েছে, মহাজোটে থাকার কারণে বিভিন্ন সময়ে সুযোগ-সুবিধা পাওয়ার দাবিদার তারা। অথচ টানা ২ মেয়াদে ক্ষমতায় থাকলেও শুধুমাত্র ভোটের সময় হলেই তাদের ডাক পড়ে। আর সকল ধরনের সুবিধা আওয়ামী লীগের নেতা, পাতি নেতারা ভোগ করে থাকেন।
সিলেট মহানগর জাপার আহ্বায়ক ইয়াহইয়া চৌধুরী এহিয়া এমপি বলেন, মহাজোটের নেতৃত্বাধীন জাতীয় পার্টি। সিলেট সিটি করপোরেশন নির্বাচন নিয়ে এখনও আমাদের অংশগ্রহণ নিয়ে কোনো সিদ্ধান্ত হয়নি। তবে দু-এক দিনের মধ্যে এ নিয়ে সিদ্ধান্ত হবে।

গণতন্ত্রী পার্টির সভাপতি ব্যরিস্টার আরশ আলী বলেন, জোটের প্রার্থী হিসেবে বদর উদ্দিন আহমদ কামরানের পক্ষে আমাদের পূর্ণ সমর্থন রয়েছে। আগামী ২২ জুলাই জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা সিলেট আসবেন। তখন আমরা পুরো প্রচারণায় নামব।

ওয়াকার্স পার্টির জেলা সভাপতি কমরেড আবুল হোসেন বলেন, আমাদের দলের পক্ষ থেকে নৌকা প্রতীকের জন্য আলাদাভাবে প্রচারণা চালানো হচ্ছে।
সিলেট মহানগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আসাদ উদ্দিন বলেন, সিলেট সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে আমাদের সাথে মহাজোট আন্তরিক রয়েছে। তাদের সঙ্গে আমাদের আলাপ-আলোচনা চলছে। জোটে কোনো ভাঙন নয়, দু-এক দিনের মধ্যে তারাও মাঠে নামবে বলে তিনি আশা প্রকাশ করেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরআর