Alexa নেপালি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সরকার প্রধানদের সাক্ষাৎ

ঢাকা, রোববার   ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৭ ১৪২৬,   ২২ মুহররম ১৪৪১

Akash

নেপালি প্রেসিডেন্টের সঙ্গে সরকার প্রধানদের সাক্ষাৎ

 প্রকাশিত: ১৫:১২ ৩০ আগস্ট ২০১৮   আপডেট: ১৫:৩৩ ৩০ আগস্ট ২০১৮

নেপালি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিমসটেক নেতারা

নেপালি রাষ্ট্রপতির সঙ্গে বিমসটেক নেতারা

৪র্থ বিমসটেক সম্মেলনে যোগ দিতে নেপাল যাওয়া সদস্য রাষ্ট্রগুলোর সরকার প্রধান ও প্রতিনিধিরা দেশটির প্রেসিডেন্ট বিদ্যা দেবী ভান্ডারীর সঙ্গে সাক্ষাত করেছেন। স্থানীয় সময় অনুযায়ী এরই মধ্যে সম্মেলন শুরু হয়েছে।

নেপালি প্রেসিডেন্ট অতিথিদের জন্য মধ্যাহ্নভোজের আয়োজন করেন।

সংবাদ মাধ্যম দ্য হিমালয়ান টাইমস এক প্রতিবেদনে বলেছে, দেশটির প্রেসিডেন্টের সঙ্গে যারা দেখা করেছেন তারা হলেন, বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, ভারতীয় প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি, ভুটানের প্রধান বিচারপতি টিশারিং ওয়াংচুক, মিয়ানমারের প্রেসিডেন্ট উইন মিন্ট, শ্রীলঙ্কার প্রেসিডেন্ট মাইথ্রিপালা সিরিসেনা এবং থাইল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী প্রেউত চান-ও-চা।

নেপালি প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলী, পররাষ্ট্রমন্ত্রী প্রদীপ গায়ালি এবং রাষ্ট্রপতির বাসভবন শীলত নিবাসের কর্মকর্তারা আগত অতিথিদের স্বাগত জানান। 

এর আগে সকালে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সঙ্গে দ্বিপাক্ষিক বৈঠক করেন নেপালি প্রধানমন্ত্রী কে পি শর্মা ওলী। সেখানে দুই দেশের স্বার্থ সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয়ে আলোচনা হয়।

উপ-আঞ্চলিক সংস্থা-বিমসটেক ১৯৯৭ সালের ৬ জুন ব্যাংকক ঘোষণার মধ্যদিয়ে গঠিত হয়। এর সদস্য দেশগুলোর মধ্যে ৫টি দক্ষিণ এশিয়ার। এগুলো হচ্ছে- বাংলাদেশ, ভুটান, ভারত, নেপাল, শ্রীলংকা এবং অন্য দুটি দেশ দক্ষিণ-পূর্ব এশিয়ার মিয়ানমার ও থাইল্যান্ড।

প্রাথমিকভাবে ৪টি সদস্য রাষ্ট্র নিয়ে একটি অর্থনৈতিক জোট গঠিত হয়েছিল। যার সংক্ষিপ্ত নাম ছিল ‘বিআইএসটি-ইসি’ (বাংলাদেশ, ভারত, শ্রীলংকা এবং থাইল্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন)।

১৯৯৭ সালের ২২ ডিসেম্বর থাইল্যান্ডের ব্যাংককে মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে এই জোটে মিয়ানমারের অর্ন্তভুক্তির মাধ্যমে এর নতুন নামকরণ হয় ‘বিআইএমএসটি-ইসি’(বাংলাদেশ, ভারত, মিয়ানমার, শ্রীলংকা এন্ড থাইল্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন)।

৬ষ্ঠ মন্ত্রী পর্যায়ের বৈঠকে (ফেব্রুয়ারি ২০০৪, থাইল্যান্ড) নেপাল এবং ভুটান অন্তর্ভুক্ত হলে জোটের নতুন নামকরণ হয় ‘বে অব বেঙ্গল ইনিশিয়েটিভ ফর মাল্টিসেক্টোরাল টেকনিক্যাল অ্যান্ড ইকোনমিক কো-অপারেশন (বিমসটেক)।’

বিশ্বায়নের আগ্রাসন মোকাবেলা করে আঞ্চলিক সম্পদ এবং ভৌগোলিক সুবিধাদি কাজে লাগিয়ে সবার স্বার্থে পারষ্পরিক সহযোগিতার মাধ্যমে উন্নয়নকে ত্বরান্বিত করার উদ্দেশ্যে জোটটি গঠন করা হয়।

ডেইলি বাংলাদেশ/এলকে