Alexa নিরাপত্তাহীনতায় জিডি করলেন শবনম ফারিয়া

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯,   আশ্বিন ৫ ১৪২৬,   ২০ মুহররম ১৪৪১

Akash

নিরাপত্তাহীনতায় জিডি করলেন শবনম ফারিয়া

বিনোদন প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৫৯ ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯   আপডেট: ২৩:৫৫ ৪ সেপ্টেম্বর ২০১৯

ছবি: শবনম ফারিয়া

ছবি: শবনম ফারিয়া

সাম্প্রতিক সময়ে অনুষ্ঠিত হওয়া ‘কে হবে মাসুদ রানা’ রিয়েলিটি শো নিয়ে এখনো উত্তাপ রয়েছে স্যোশাল মিডিয়ায়। বিচারকদের রীতিমতো তুলোধনা করছেন নেটিজেনরা! দর্শকদের অভিযোগ, প্রতিযোগীদের নিয়ে এক ধরনের তামাশা করা হচ্ছে এই শোতে। এই শোয়ের বিচারকের দ্বায়িত্ব পালন করেছেন ছোট পর্দার অভিনেত্রী শবনম ফারিয়া। তাকে নিয়েও দর্শকরা ট্রল করছেন। যার ফলে নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছেন এ অভিনেত্রী। এ জন্য থানায় জিডিও করেছেন। 

জানা গেছে, শবনম ফারিয়া পল্টন থানায় মেহেদী হাসান ফরহাদ নামের একজনের বিরুদ্ধে  জিডি করেছেন। মঙ্গলবার ফারিয়া এই জিডি করেছেন। জিডির নম্বর ১৮৮।

জিডিতে ফারিয়া অভিযোগ করেন, সাত দিন আগে আমি আমার ফেসবুকে দেখতে পাই আজেবাজে কমেন্টস। এর চার দিন পর মেহেদী হাসান ফরহাদ [ফ্রেন্ডস ফর লাইফ] নামের একটি ফেসবুক আইডি থেকে ‘মেনস ফেয়ার অ্যান্ড লাভলী চ্যানেল আই হিরো-কে হবে মাসুদ রানা’ অনুষ্ঠানের ছবি পোস্ট করে ও আমার ফোন নাম্বার ফেসবুকে দিয়ে দেয়। যার ফলে আমার নম্বরে অনবরত ভিন্ন ভিন্ন নাম্বার থেকে ফোন আসে।

এ ছাড়া অন্যান্য ফেসবুক আইডি থেকে আমার নামে মিথ্যা প্রচার করছে। এ ঘটনার কারণে আমার মান-সম্মানের ক্ষতি হচ্ছে। বর্তমানে আমি নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি।

এই বিষয়ে ফারিয়া জানান, যে নাম্বারটি ব্যবহার করা হয়েছে সেটি তার একমাত্র নাম্বার। পরিবার থেকে শুরু করে মিডিয়ার বন্ধুদের সঙ্গে তিনি এই নাম্বারেই কথা বলেন। কিন্তু নাম্বারটি পাবলিক হয়ে যাওয়ার ফলে এত বেশি কল আসছে যে তার কাজে ব্যাঘাত ঘটাচ্ছে। নাম্বারটি এতই গুরুত্বপূর্ণ যে বদল করাও সম্ভব নয়। এ ছাড়া ওই পোস্টের কারণে ফারিয়ার মান-সম্মানেরও অনেক ক্ষতি হচ্ছে। শেষ পর্যন্ত তিনি বাধ্য হয়ে জিডি করেছেন।

এদিকে, ‘কে হবে মাসুদ রানা’ শোটির বিষয়ে শবনম ফারিয়া বলেন, এ মুহুর্তে বিষয়টি নিয়ে কিছু বলতে চাই না। ‘মাসুদ রানা’ ইভেন্টের সঙ্গে জড়িত সবার সঙ্গে কথা বলতে হবে। তারপর বিষয়টি নিয়ে আনুষ্ঠানিকভাবে প্রতিক্রিয়া জানাব। কিছু না বুঝেই অনেকেই আমাদেরকে ব্যক্তিগতভাবে আক্রমণ করছেন। এটি দুঃখজনক।

ডেইলি বাংলাদেশ/এনএ