Alexa নিজের উপার্জিত টাকা জমিয়েই বিশ্বের সব দেশ ঘুরলেন এই নারী

ঢাকা, সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯,   পৌষ ১ ১৪২৬,   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

নিজের উপার্জিত টাকা জমিয়েই বিশ্বের সব দেশ ঘুরলেন এই নারী

জাবিদ হাসান ফাহিম ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৫৪ ১ ডিসেম্বর ২০১৯  

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

সবচেয়ে কম বয়সী হিসেবে বিশ্ব ঘুরে গিনেস বেুকে নাম লিখিয়েছেন এক নারী। ২১ বছর বয়সী এই নারীর নাম অ্যালেক্সিস অ্যালফোর্ড। তিন বছরেরও বেশি সময়ের মধ্যে মোট ১৯৬ টি দেশে ভ্রমণ করে বিশ্বের মনোযোগ কেড়েছেন তিনি। ফোর্বস ম্যাগাজিনেও উঠেছে তার নাম।

ঘুরতে ভীষণ ভালোবাসেন তিনিচলতি বছরের ৩১ মে। এদিন উত্তর কোরিয়ায় পা রেখে পৃথিবীর সবগুলো দেশ ভ্রমণ সমাপ্ত করেন অ্যালফোর্ড। এর মাধ্যমে তিনি পৃথিবীর প্রতিটি দেশে ভ্রমণ করা সবচেয়ে কম বয়সীর (২৪ বছর) শিরোপা জেতা জেমস আসকিথকেও ডিঙিয়ে যান তিনি। কারণ নারী হিসেবে বিশ্বভ্রমণ সম্পন্ন করায় সর্বকনিষ্ঠ তিনি। তিনি বাংলাদেশেও এসেছেন একবার। ২০১৮ সালের ফেব্রুয়ারীতে তিনি থাইল্যান্ড ও মিয়ানমার হয়ে বাংলাদেশে আসেন। থেকেছিলেন প্রায় তিন দিন। 

বিশ্ব ভ্রমণে সবচেয়ে কনিষ্ঠ নারী হিসেবে রেগর্ড গড়েছেন তিনিঅ্যালফোর্ড বলেন, ভ্রমণ আমার সবচেয়ে পছন্দের। আর এ কারণেই বাবা-মা আমাকে প্রতিবছরই সপ্তাহখানেকের জন্য ঘুরতে নিয়ে যেতেন। তিনি হাইস্কুলের পর মাত্র দু’বছরেই স্নাতক সম্পন্ন করেন। এরপর স্থানীয় কলেজ থেকে ১৮ বছরে অ্যাসোসিয়েটস ডিগ্রি লাভ করেন। 

কেই না অসাধারণ সব স্থান ঘুরেছেন তিনিক্যালিফোর্নিয়ায় থাকাকালীন তিনি পরিবারের ট্রাভেল এজেন্সির গাইড হিসাবে কাজ করেন। ভ্রমণের সময় ফটোগ্রাফার/ ব্লগার হিসাবেও কাজ করতেন তিনি। আগে থেকেই তিনি ভ্রমণ সংক্রান্ত বিভিন্ন বিষয় নিয়ে গবেষণা করতে বরাবরই পছন্দ করতেন অ্যালফোর্ড। তার কোনো উদ্দেশ্য ছিল না বিশ্বরেকর্ড গড়ার। তার শখই হলো এ দেশ থেকে অন্য দেশ ঘুরে দেখা। 

বনে জঙ্গলেও ছিলো তার বিচরণছাত্রকালীন সময়েই তিনি ৭২ টি দেশে ভ্রমণ করেন। আর তখনই তিনি প্রত্যাশায় ছিলেন বিশ্বের সব দেশেই পা রাখবেন। অ্যালফোর্ড বলেন, আমার কোনো স্পন্সর ছিল না। সম্পূর্ণ স্ব-অর্থায়নে এমন বিশ্ব ভ্রমণ করেছি। চাকরি, ব্লগ ও ইউটিউবের বিভিন্ন ভিডিওয়ের মাধ্যমেই তিনি আয় করতেন। তবে সে কখনো সরকারী পৃষ্ঠপোষকতা পায়নি। 

বর্তমানে বই লেখায় ব্যস্ত তিনিঅ্যালফোর্ড আরো বলেন, ছোটবেলা থেকে তিনি যে পরিমাণ অর্থ সঞ্চয় করেছি তা দিয়ে প্রথম দেড় বছর ভ্রমণ চালিয়েছিলাম। বর্তমানে অ্যালফোর্ড তার বিশ্ব ভ্রমণ নিয়ে বই লেখার কাজে ব্যস্ত। এছাড়াও শাররিকভাবে সুস্থ থাকতে বিশ্রামে রয়েছেন এই ভ্রমণপিপাসু নারী।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএমএস