Alexa নিউইয়র্কের আদালতে রিজার্ভ চুরির মামলা

ঢাকা, শুক্রবার   ২৩ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৮ ১৪২৬,   ২১ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

নিউইয়র্কের আদালতে রিজার্ভ চুরির মামলা

নিজস্ব প্রতিবেদক :: staff-reporter

 প্রকাশিত: ১৪:৫৪ ৩০ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৫:০২ ৩০ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

বাংলাদেশ ব্যাংকের রিজার্ভ চুরির ঘটনায় ফিলিপাইনের রিজল কমার্সিয়াল ব্যাংক কর্তৃপক্ষসহ জড়িতদের বিরুদ্ধে বুধবার নিউইয়র্কের আদালতে মামলা করতে যাচ্ছে বাংলাদেশ সরকার। 

বুধবার সকালে মুদ্রানীতি ঘোষণার অনুষ্ঠানে সাংবাদিকদের এ তথ্য জানান বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর ফজলে কবির। এছাড়া আগামী সপ্তাহে আরো একটি মামলা করা হবে বলেও জানিয়েছেন তিনি।

বাংলাদেশ ব্যাংকের গভর্নর বলেন, সব ধরনের প্রস্তুতি নেয়া হয়েছে। বাংলাদেশের একটি প্রতিনিধি দল এখন নিউইয়র্কে অবস্থান করছেন।

জানা যায়, কেন্দ্রীয় ব্যাংকের আইনজীবী আজমালুল হোসেন কিউসিসহ পাঁচ সদস্যের প্রতিনিধি দল নিউইয়র্কে আছেন। তাদের মধ্যে রয়েছেন-বাংলাদেশ ফাইন্যান্সিয়াল ইনটেলিজেন্স ইউনিটের মহাব্যবস্থাপক দেবপ্রসাদ দেবনাথ, একই ইউনিটের যুগ্ম পরিচালক মোহাম্মদ আব্দুর রব এবং অ্যাকাউন্ট অ্যান্ড বাজেটিং ডিপার্টমেন্টের মহাব্যবস্থাপক জাকির হোসেন।

গভর্নর বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্ক থেকে বাংলাদেশের রিজার্ভের চুরি যাওয়া অর্থ ফেরত আনার পাশাপাশি দোষীদের বিচারের মুখোমুখি করাই মামলার উদ্দেশ্য।

তিনি আরো বলেন, রিজর্ভ চুরির ঘটনা থেকে যারা লাভবান হয়েছেন এবং যারা এর সঙ্গে জড়িত ছিলেন, তাদের এ মামলায় আসামি করা হচ্ছে।

২০১৬ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ফেডারেল রিজার্ভ ব্যাংক অব নিউইয়র্কে থাকা বাংলাদেশ ব্যাংকের অ্যাকাউন্ট থেকে ১০ কোটি ১০ লাখ ডলার বা ৮১০ কোটি টাকা চুরি হয়। যদিও এক মাস পরে তা প্রকাশ পায়। সুইফট কোডের মাধ্যমে ৮১০ কোটি টাকা শ্রীলঙ্কা ও ফিলিপাইনে পাঠানো হয়। এর মধ্যে ২৭৩ কোটি টাকা ফেরত পাওয়া গেলেও, বাকি ৫৩৭ কোটি টাকা উদ্ধার হয়নি এখনো।

যুক্তরাষ্ট্রে প্রচলিত নিয়ম অনুযায়ী, এ ধরনের ঘটনার তিন বছরের মধ্যে মামলা না করলে সেটি গুরুত্ব কমে যায়। ফলে আগামী ৩ ফেব্রুয়ারির মধ্যে এ বিষয়ে বাংলাদেশের পক্ষ থেকে আইনি পদক্ষেপ নিতে হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এলকে

Best Electronics
Best Electronics