নারীরা ঘরে নামাজ আদায় করলেও কি মসজিদে পড়ার সওয়াব পাবেন?

ঢাকা, শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

নারীরা ঘরে নামাজ আদায় করলেও কি মসজিদে পড়ার সওয়াব পাবেন?

 প্রকাশিত: ১৭:০৫ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭   আপডেট: ১৯:৩১ ১২ সেপ্টেম্বর ২০১৭

নারী ঘরে নামাজ পড়লে পুরুষদের মতো মসজিদে জামাতে নামাজ পড়ার সওয়াব পাবে কি না, সে সম্পর্কে পাঠকদের উদ্দেশ্যে বিভিন্ন কথা বলেন বিশিষ্ট আলেম ড. আবু বকর মুহাম্মদ জাকারিয়া।

প্রশ্ন: পুরুষদের জন্য মসজিদে জামাতে উপস্থিত হলে মহান আল্লাহ মেহমানদারির ব্যবস্থা রাখেন এবং অনেক সওয়াব দান করেন। কিন্তু আমাদের সমাজে মহিলারা গৃহেই নামাজ আদায় করে থাকেন। এখন মহিলারাও কি গৃহেই পুরুষের মতো মসজিদে গমনের এবং জামাতের সওয়াব পাবেন?

উত্তর : জামাতের ব্যাপারে রাসূল (সা.) মহিলা ও পুরুষদের ক্ষেত্রে আলাদা বিধান দিয়েছেন। আবার নিষেধও করেছেন, তোমরা মহিলাদের জামাতে নামাজ পড়তে নিষেধ করো না। ‘আল্লাহর বান্দিদের মসজিদে যেতে তোমরা নিষেধ করো না।’ যখন এই হাদিসটি আবদুল্লাহ ইবনে ওমর (রা.) বর্ণনা করলেন, তখন তাঁর এক ছেলে বললেন, ‘আমি নিষেধ করব।’ তখন তিনি বললেন, ‘তোমার সঙ্গে আর কথাই বলব না, তুমি আল্লাহর রাসূলের হাদিসের বিপরীতে কথা বলেছ।’ এ জন্য আমাদের উচিত, যখন রাসূল (সা.)-এর হাদিস আসে সেটা আমল করা, আমার মনমতন না হলেও সেটা আমরা আমল করব। আমার মন ভুল করতে পারে, কিন্তু রাসূল (সা.)-এর হাদিসের ওপর আমল করা উচিত। এ জন্য কোনো নারী যদি মসজিদে গিয়ে নামাজ আদায় করতে চান, তাঁকে আমরা নিষেধ করব না।

কিন্তু উত্তম কী, সেটাও আমাদের জানতে হবে। রাসূল (সা.) বলেছেন, ‘মহিলা তাঁর সদর দরজায় নামাজ পড়ার চেয়ে তাঁর ভেতরের ঘরে নামাজ পড়া বেশি উত্তম।’ এর চেয়ে বেশি উত্তম হচ্ছে তাঁর একান্ত ঘর যেখানে, সেখানে নামাজ পড়া। কারণ, নারীদের নামাজ যত বেশি গোপন হবে, তাঁর নামাজ আল্লাহর কাছে তত বেশি কবুল হবে। কিন্তু যেসব নারী বাইরে থাকবেন, তাঁদের নামাজ পড়ার জন্য মসজিদে অবশ্যই সুযোগ থাকা দরকার। দুঃখজনক হলেও সত্য যে, আমাদের মসজিদগুলোতে নারীদের জন্য নামাজের ব্যবস্থা নেই বললেই চলে।

রাসূল (সা.)-এর হাদিসে এসেছে, ‘কেউ যদি মসজিদে যান, তাঁর জন্য আল্লাহতায়ালা মেহমানদারির ব্যবস্থা করেছেন।’ আল্লাহতায়ালা দুনিয়াতে না, আখিরাতের জন্য, যতবার আমরা মসজিদে যাচ্ছি ততবার একটি করে মেহমানদারি জমা করে রাখছেন। ঠিক তেমনিভাবে নারীরা যদি ঘরে নামাজ আদায় করেন, তাহলে আল্লাহতায়ালা এর চেয়েও বেশি সওয়াব দিতে পারেন। সওয়াব আল্লাহর হাতে এবং সেখানে কোনো কমতি নেই।


ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ