নরসিংদীর শিবপুরে সংর্ঘষে নৌকার এজেন্ট নিহত

ঢাকা, শুক্রবার   ২৯ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৫ ১৪২৭,   ০৫ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

নরসিংদীর শিবপুরে সংর্ঘষে নৌকার এজেন্ট নিহত

নরসিংদী প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৪:৫১ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:৩৭ ৩০ ডিসেম্বর ২০১৮

প্রতিকী ছবি

প্রতিকী ছবি

নরসিংদী-৩ আসনের শিবপুরের কুন্দারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে নির্বাচনী সহিংসতায় নৌকা প্রতীকের এজেন্ট মিলন মিয়া নামে একজন নিহত হয়েছেন।

 রোববার দুপুর ১২টার দিকে কুন্দারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্রে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মিলন মিয়া বাঘাব ইউপির কুন্দারপাড়া গ্রামের হজরত আলীর ছেলে। নরসিংদীর  অ্যাডিশনাল এসপি মোহাম্মদ শফিউর রহমান বলেন, নৌকা প্রতীকের প্রার্থী জহিরুল হক ভূঁইয়া মোহন বেলা ১১টার দিকে কুন্দারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ভোটকেন্দ্র পরিদর্শনে যান।

এ সময় তার কর্মীরা ব্যালট নিয়ে নৌকা প্রতীকে সিল যায়। এ নিয়ে একই  আসনে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম মোল্লাও একই কেন্দ্র পরিদর্শন করতে যান। এক পর্যায়ে নৌকার কর্মীরা স্বতন্ত্র প্রার্থী সিরাজুল ইসলাম মোল্লাকে কেন্দ্রের একটি কক্ষে আটক করে রাখে। তখন দুই পক্ষের মধ্যে পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। তারপর মিলন মিয়া নিহত হন। 

পরে এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে কুন্দারপাড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের কেন্দ্র প্রায় ২ ঘন্টা ভোট গ্রহণ স্থগিত থাকে।প্রিজাইডিং অফিসার মো. মাহাবুব মৃধা বেলা ২ টার দিকে পুনরায় ভোট গ্রহণ চালু করেন। 

আওয়ামী লীগের এজেন্ট মিলন নিহতের ঘটনা নিয়ে আওয়ামী লীগের প্রাথী মোহন বলেন, নির্বাচনে পরাজয় জেনে আমার কর্মীকে প্রতিপক্ষরা হত্যা করেছে। 

সিরাজুল ইসলাম মোল্লা বলেন, এ হত্যাকাণ্ড পরিকল্পিত। নির্বাচন বানচাল ও আমাকে ঘায়েল করতে এ হত্যাকাণ্ড ঘটানো হয়েছে। 

নরসিংদী জেলায় ৬টি উপজেলার মধ্যে ৫টি আসন রয়েছে। এ ৫টি আসনে ৩৩ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এর মধ্যে ২ জন স্বতন্ত্র রয়েছে। নরসিংদী সদর উপজেলা চেয়ারম্যান পদে থেকে নির্বাচন করায় হাই কোর্ট নরসিংদী-৩ আসনের বিএনপি প্রার্থী মনজুর এলাহীর প্রার্থিতা স্থগিত করেন।

ফলে এ আসনে ধানের শীর্ষের কোনো প্রার্থী না থাকায় মূল প্রতিদ্বন্দ্বিতা হয় নৌকা প্রতীক নিয়ে জহিরুল হক মোহনের ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সিংহ প্রতীকের সিরাজুল ইসলাম মোল্লার সঙ্গে। এছাড়া নরসিংদীর সদর,পলাশ,মনোহরদী-বেলাব এবং রায়পুরাতে কোনো সহিংসতা ছাড়াই ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ