Alexa নতুন চুল গজানোর উপায়

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ১ ১৪২৬,   ১২ জ্বিলকদ ১৪৪০

নতুন চুল গজানোর উপায়

 প্রকাশিত: ১৪:৪৮ ৮ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ১৪:৪৮ ৮ অক্টোবর ২০১৮

ছবি: সংগৃহিত

ছবি: সংগৃহিত

অকালে চুল পড়ে টাক হয়ে যাওয়ার কারণে অনেকেই দুশ্চিন্তায় থাকেন। ঠিক কি ব্যবহারের মাধ্যমে চুল পড়া বন্ধ করা যাবে তা নিয়ে ভাবতে ভাবতে টাকটা বোধ হয়ে উঁকি মারে। আর প্রাকৃতিক উপাদানের মাধ্যমে চুলের যত্ন না নেয়ার ফলেই অকালে চুল পড়ে যায়। দেহে ফসফরাসের অভাব হলেই চুল পড়ার লক্ষণ দেখা দেয়। অবশ্যই চুল পড়ার শুরু থেকে চুলের যত্ন নেয়া উচিত। তবে টাক হয়ে গেলে তখন কি করণীয়? হতাশ হওয়ার কারণ নেই! জেনে নিন কয়েকটি ঘরোয়া টোটকা-

১. ছোট্ট প্রায় গোলাকৃতি থানকুনি পাতায় মধ্যে রয়েছে ওষুধি সব গুণ। থানকুনি পাতার রস বিভিন্ন রোগ নিরাময়ে অতুলনীয়। থানকুনি পাতার রস রোজ মাথায় লাগালে নতুন চুল গজাতে সাহায্য করে৷ এছাড়াও থানকুনি স্নায়ুতন্ত্রকে সক্রিয় রাখতে সাহায্য করে।

২. রুক্ষ, মলিন, প্রাণহীন চুলকে ঝলমলে, স্বাস্থ্যোজ্বল করে তুলতে নারকেল তেলের জুড়ি নেই। নারকেল তেলের প্রাকৃতিক ময়েশ্চারাইজার চুলকে করে তোলে নরম, কোমল। এছাড়া নারকেল তেলে আছে প্রোটিন, ফ্যাটি এসিড, ভিটামিন বি ও সি, জিংক, পটাশিয়াম যা চুলকে ভিতর থেকে পুষ্টি যোগায়। অন্যদিকে, অ্যালোভেরার রসে ভিটামিন এ, ই, বি, সি প্রচুর পরিমাণে রয়েছে।এছাড়া প্রচুর পরিমাণে ফ্যাটি অ্যাসিড, জিঙ্ক, আয়রনও রয়েছে। এই প্রত্যেকটি উপাদান কিন্তু চুলের পুষ্টির জন্য খুব বেশী মাত্রায় প্রয়োজন। নারিকেল তেল ও এলোভেরা জেল মিশিয়ে মাথায় দিলে নতুন চুল গজায়।

৩. চুলের যত্নে বাদাম তেলের তুলনা নেই। এতে থাকা ভিটামিন- ই, বি-২, বি-৬, এবং ভিটামিন- এ চুলকে শক্ত করে ও নরম রাখে। অকালে চুল ঝরে যাওয়ার মূল কারণ হলো দেহে ফসফরাসের অভাব। কাঠবাদামে আছে প্রচুর পরিমানে ফসফরাস। তার ফলে এটি চুল ঝরে যাওয়া যেমন রোধ করে, তেমনি নতুন চুল গজাতেও বেশ সাহায্য করে। এছাড়াও যারা খুশকির সমস্যায় ভুগছেন তারা বাদাম তেল ও নিমতেল একসঙ্গে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করে সারারাত রাখুন। পরদিন সকালে ধুঁয়ে ফেলুন। খুশকির সমস্যা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে আসবে।

ডেবলি বাংলাদেশ/জেএমএস/এসজেড