রোহিঙ্গা
শিরোনাম:
ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে ভিসি’র অফিসের সামনে বিক্ষোভ-সমাবেশ করছে ঢাবি ছাত্রফ্রন্ট ও ছাত্র ফেডারেশন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্যরা লিংকরোড অবরোধ করেছে ব্লগার নিলয় হত্যার প্রতিবেদন দাখিল ১৫ নভেম্বর ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে জার্মানি, দ্বিতীয় ব্রাজিল, বাংলাদেশের অবস্থান ১৯৬তম ১৯ নভেম্বর মিয়ানমার যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্ব ইজতেমা শুরু ১২ জানুয়ারি
শিরোনাম:
ডাকসু নির্বাচনের দাবিতে ভিসি’র অফিসের সামনে বিক্ষোভ-সমাবেশ করছে ঢাবি ছাত্রফ্রন্ট ও ছাত্র ফেডারেশন ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়ন এবং বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়নের সদস্যরা লিংকরোড অবরোধ করেছে ব্লগার নিলয় হত্যার প্রতিবেদন দাখিল ১৫ নভেম্বর ফিফা র‌্যাঙ্কিংয়ের শীর্ষে জার্মানি, দ্বিতীয় ব্রাজিল, বাংলাদেশের অবস্থান ১৯৬তম ১৯ নভেম্বর মিয়ানমার যাচ্ছেন পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিশ্ব ইজতেমা শুরু ১২ জানুয়ারি...

নগ্ন হয়ে দেশ-বিদেশ

প্রকাশিত: ১৯:০৬, ১২ অক্টোবর ২০১৭

আপডেট: ১৯:৪০, ১৪ অক্টোবর ২০১৭

১৮৮ বার পঠিত

ছবি সংগৃহীত

ছবি সংগৃহীত

নগ্ন হয়ে বেড়াতে যাওয়ার কথা নিশ্চয়ই ভাবতেও কষ্ট হচ্ছে আপনার? যা আমরা ভাবতে পারি না তাই অনেকে করে দেখান খুব সহজে। বেলজিয়ান যুগল নিক এবং লিনস ভালোবাসেন প্রকৃতিকে। তারা মনে করেন, নগ্নতা কোনো লজ্জার বিষয় নয়। বরং আমরা সবাই প্রকৃতির অংশ। তাই নগ্ন থাকা মানে হলো প্রাকৃতিক থাকা, সকল প্রকার কৃত্রিমতাকে বর্জন করা।

নিক আর লিনসের মূল কথা, নগ্নতা আর যৌনতা এক বিষয় নয়।

তারা এখন পর্যন্ত অনেক দেশই ভ্রমণ করেছেন এবং জনপ্রিয়ও হয়েছেন। ত্রিশোর্ধ্ব বয়সের এই যুগল ক্রশিয়া, গ্রিস, বলকান, ইতালি, ব্রাজিল ভ্রমণ করেছেন। তারা নির্দিষ্ট করেছেন এমন কিছু জায়গা যেখানে তারা নিজেদের মতো নগ্ন থাকতে পারবেন।

ন্যুডিস্ট বা ন্যাচারিস্ট এই যুগল শুধু বিশ্ব ভ্রমণ করার লক্ষ্য নিয়ে বের হয়েছেন এমন নয়। তারা নিজেদের ব্লগে নিয়মিত এর প্রচারণাও করে থাকেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে পোস্ট করেন তাদের ভ্রমণের ছবি। ছবিগুলো তোলা হয় বিশেষ কৌশলে। তাই তারা নগ্ন হলেও তাদের ছবি দেখতে অস্বস্তি লাগবে না আপনার। নিক আর লিনসের জনপ্রিয়তার পেছনে এটিও একটি কারণ।

অবাক হলেও সত্য এমন একটি স্রোতের বিপরীতে চলার সিদ্ধান্ত নিয়েও নিক আর লিনসকে কোথাও অপদস্থ হতে হয় নি দু`টি জায়গা ছাড়া! এক হল আলবেনিয়া, যেখানে জনসম্মুখে নগ্নতাকে মেনে নেওয়া হয় না। আর ২য়ত গ্রিস, যেখানে সামান্য কয়েকটি বিচেই কেবল নগ্ন হওয়ার অনুমোদন আছে। তবে হ্যাঁ, নিক আর লিনস এখনো আমাদের এদিকটায় আসেন নি, আর কখনো হয়ত আসবেনও না। কারণ নগ্নতা এখানে ভ্রুকুঞ্চনের মতো সামান্য উপেক্ষার বিষয় নয়, বরং রীতিমত পাপ!

তাদের প্রাকৃতিক সজ্জায় এই ভ্রমণ অভিযানের কারণ জানতে চাইলে তারা বলেন, "আমাদের প্রধান লক্ষ্য হল নগ্নতাবাদকে অন্ধকার থেকে বের করে নিয়ে আসা এবং নগ্নতাকে কম যৌনতাসূচক ও অধিক গ্রহণযোগ্য করা। একইসাথে মানুষকে দেখানো যে নগ্ন হওয়া আনন্দের বিষয় আর নিজের শরীর নিয়ে লজ্জিত হওয়ার কিছু নেই।" সূত্র: ট্রাভেল এন্ড লাইজার

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

Share With Friends!

সর্বাধিক পঠিত