Alexa নকলায় মাঠে নেমেছেন হাতপাখার প্রার্থী

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৬ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ১ ১৪২৬,   ১২ জ্বিলকদ ১৪৪০

নকলায় মাঠে নেমেছেন হাতপাখার প্রার্থী

নকলা (শেরপুর) প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৭:১৭ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৭:২৪ ১৯ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

শেরপুরের নকলায় ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর হাতপাখা প্রতীকের প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা নূরুল ইসলাম ও তার সমর্থকরা ভোট প্রার্থনায় মাঠে নেমেছেন।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় নকলা শহরের বিভিন্ন সড়ক, মহাসড়ক ও অলি গলিতে এ প্রার্থীকে ভোট প্রার্থনায় দেখা গেছে।

নির্বাচনী প্রচারণা গত ১০ ডিসেম্বর শুরু হলেও হাতপাখা প্রার্থীর কোনো তৎপরতা এতদিন লক্ষ্য করা যায়নি।

রাতে নকলা শহরের বিভিন্ন এলাকায় শান্তিকামী জনগণের বরাতে ছাপানো এবং ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমীর মো. রেজাউল করিমের স্বাক্ষরিত লিফলেট বিতরণ ও নির্বাচনী প্রচারসহ বেশ কয়েকটি পথসভা করেন নূরুল ইসলাম ও তার সমর্থকরা।

পথসভার বক্তব্যে হাতপাখার সমর্থকরা বলেন, মানুষের মুক্তির মূলমন্ত্র হলো ইসলামী শাসনতন্ত্র। শুধু নেতা নয় নীতিরও পরিবর্তনের দাবিতে তারা নির্বাচনে এসেছেন। দুর্নীতি, দুঃশাসন, সন্ত্রাস ও মাদকমুক্ত কল্যাণময় রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার লক্ষেই তারা মাঠে নেমেছেন।

নূরুল ইসলাম তার বক্তব্যে বলেন, একজন ভোটার ও দেশপ্রেমিক শান্তিপ্রিয় নাগরিকের ভালো কাজের একটি হলো একজন সৎ, আল্লাহভীরু, আমানতদার ও জনদরদী সবার গ্রহণযোগ্য জনপ্রতিনিধি নির্বাচন করা। ভোট একটি আমানত, তাই ভোট প্রদান না করা অন্যায়।

এখন সুযোগ এসেছে, ইচ্ছা করলে ভোটাররা তাদের মূল্যবান ভোটের মাধ্যমে দেশ, সমাজ ও মানুষের কল্যাণে ভালো কাজটি করতে পারেন। এ সুযোগকে কাজে লাগিয়ে ভোটাররা ইহকাল ও পরকালীন উপকার পেতে পারেন, পাশাপাশি এর অপব্যবহারের ফলে ক্ষতিগ্রস্থ হওয়ারও সম্ভাবনা রয়েছে।

এবিষয়ে হাতপাখার প্রার্থী বলেন, একটি ভোট বা সমর্থনের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে কেউ যদি কোনো ভালো কাজ করেন তাহলে তার সওয়াবের অংশ পাবেন, তেমনি যদি সমর্থনের মাধ্যমে নির্বাচিত হয়ে কেউ কোনো ধরনের পাপাচার করে, আমানতের খেয়ানত করে, দুর্নীতির মাধ্যমে জনগণের সম্পদ লুণ্ঠন করে, ক্ষমতার অপব্যবহার করে মানুষের ওপর জুলুম করে তাহলে তাকে ভোট দিয়ে নির্বাচিত করার কারণে ওই জনপ্রতিনিধির সমান অপরাধ ও পাপের ভাগ ভোটারদের নিতে হবে।

তাই ভোটারদের পাপ থেকে বাঁচানোর জন্য সমাজ এবং রাষ্ট্রের ন্যায়, ইনসাফ ও শক্তি প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ-এর  সভাপতি চরমোনাইয়ের পীর আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে সারাদেশ ব্যাপী হাতপাখা প্রতীকে সৎ, আল্লাহভীরু, আমানতদার ও জনদরদী প্রার্থীদেরকে মনোনয়ন দিয়েছেন। ভোটাররা হাতপাখা মার্কায় সমর্থন দিয়ে ইহকাল ও পরকালীন শান্তিকামী দলের হাতে দেশ পরিচালনার ক্ষমতা তুলে দিবেন।

৫০১ বর্গ কিলোমিটার আয়তন বিশিষ্ট এই আসনটি ২টি পৌরসভা ও ২১টি ইউপি নিয়ে গঠিত। এ আসনে মোট ভোটার ৩ লাখ ৪৯ হাজার ১৫৮ জন। নকলায় ভোটার সংখ্যা এক লাখ ৫১ হাজার ৫৩৩ জন (নারী ভোটার ৭৭ হাজার ৪১ এবং পুরুষ ভোটার ৭৪ হাজার ৪৯২ জন) এবং নালিতাবাড়ীতে ভোটার এক লাখ ৯৭ হাজার ৬২৫জন (পুরুষ ৯৭ হাজার ৪২০ জন এবং মহিলা ভোটার এক লাখ ২০৫ জন)। হিসাব অনুযায়ী শেরপুর-২ (নকলা-নালিতাবাড়ী) আসনে পুরুষ ভোটারের চেয়ে মহিলা ভোটার ৫ হাজার ৩৩৪ জন বেশি।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ