Alexa ধোনির ‘ক্রিকেট রাজনীতি’ ফাঁস করলেন যুবরাজের বাবা!

ঢাকা, মঙ্গলবার   ২৩ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৮ ১৪২৬,   ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪০

ধোনির ‘ক্রিকেট রাজনীতি’ ফাঁস করলেন যুবরাজের বাবা!

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৫৩ ১৬ জুন ২০১৯   আপডেট: ১৯:৪৮ ১৬ জুন ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

গত ১০ জুন সব ধরনের ক্রিকেট থেকে অবসরের ঘোষণা দেন যুবরাজ সিং। আর এর পরপরই বিশ্বকাপের মাঝেও ক্রীড়াঙ্গনে আলোচনার কেন্দ্রবিন্দু হয়ে ওঠে তার অবসরের খবর।

সেই আলোচনার রেশ কাটতে-না-কাটতেই ফের আলোচনার তুঙ্গে রয়েছেন ২০১১ সালে ভারতের বিশ্বকাপ জয়ের অন্যতম এই নায়ক।

এর পুরো কৃতিত্ব আবার দেয়া যায় যুবরাজের বাবাকে। ছেলের অবসরের পর রীতিমতো বোমা ফাটিয়েছেন বাবা যোগরাজ সিং। তিনিও এক সময়কার ভারতীয় ক্রিকেটের সাবেক পেসার।

তার দাবি, ক্রিকেটের নোংরা রাজনীতির শিকার হয়েছেন যুবরাজ সিং। আর এর পেছনে কলকাঠি নেড়েছেন ভারতের সাবেক ও বিশ্বকাপজয়ী অধিনায়ক মহেন্দ্র সিং ধোনী!

যদিও সরাসরি ধোনীর নাম মুখে আনেননি যোগরাজ। অন্য কারও নামেও অভিযোগ করেননি তিনি। তবে আকার-ইঙ্গিতে অভিযুক্ত ক্রিকেটার যে সাবেক ভারতীয় অধিনায়ক ধোনী, তা ভালোভাবে তার কথায় বুঝিয়েছেন যোগরাজ। 

পাক-ভারত ম্যাচের আগে বিভিন্ন ভারতীয় গণমাধ্যমকে দেয়া সাক্ষাতকারে যুবরাজের বাবা বলেন, ‘গত ১৫ বছর ধরে ভারতীয় দলের এক ক্রিকেটার আমার ছেলের সঙ্গে নোংরা রাজনীতি করে যাচ্ছে। আরও অন্যান্য ক্রিকেটারও তার রাজনীতির শিকার। ক্রিকেটারদের জীবন কঠিন করে দিয়েছে সে। আমি আপাতত তার নাম মুখে আনছি না।’

এর কারণ হিসাবে তিনি জানান, এখন নাম বললে চলতি বিশ্বকাপে ভারতীয় খেলোয়াড়দের ওপর তার প্রভাব পড়বে।

তাই বিশ্বকাপ শেষ হওয়ার পর আরও অনেক তথ্য ফাঁস করবেন বলে জানান যুবরাজ সিংয়ের বাবা। ওই ব্যক্তির নোংরা রাজনীতির শিকার শুধু তার ছেলে যুবরাজই হয়নি, ভারতীয় ক্রিকেটার ভিভিএস লক্ষ্মণ, গৌতম গম্ভীর, বীরেন্দ্র শেবাগও ক্ষতিগ্রস্থ হয়েছেন বলে দাবি করেন যোগরাজ। 

তিনি বলেন, ‘গৌতম গম্ভীরকেও ছাড়েনি সে, শেবাগের সঙ্গেও সে নোংরা খেলা খেলেছে। এখন যুবরাজের সঙ্গে এমনটা করল। এসব কিছুর জন্য ওই একজন ব্যক্তিই দায়ী।’ তার মুখোশ খুলে ফেললে সে এটা আজীবন মনে রাখবে বলে মন্তব্য করেন তিনি।

তার এমন বিস্ফোরণে কেঁপে উঠেছে ভারতীয় ক্রিকেটমহল। বিশ্লেষকসহ অনেক ক্রীড়া ব্যক্তিত্ব মনে করছেন, যোগরাজ সিং বারবার মহেন্দ্র সিং ধোনীর দিকে ইঙ্গিত করছেন। দলে বর্তমানে খেলছেন ও গত ১৫ বছর ধরে এসব ক্রিকেটারের সহকর্মী একমাত্র তিনিই।

২০১৭ সালের জুনে উইন্ডিজের বিপক্ষে শেষ বারের মতো আর্ন্তজাতিক ম্যাচে খেলেছিলেন যুবরাজ সিং। এর মাঝে ক্যান্সার ভুগছিলেন এই ক্রিকেটার। ক্যান্সার জয় করে ঘরোয়া ক্রিকেটে ভালো খেলে আবারও জাতীয় দলে ফেরার চেষ্টা করেছিলেন যুবা। কিন্তু পুরনো বিধ্বংসীরূপে আর নিজেকে মেলে ধরতে পারেননি তিনি।

অনেকটা বাধ্য হয়েই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় জানানোর সিদ্ধান্ত নেন যুবরাজ। সূত্র: ইন্ডিয়ান টাইমস।

ডেইলি বাংলাদেশ/সালি