ধেয়ে আসছে ‘তিতলি’, ২ নম্বর সতর্ক সংকেত

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২০ জুন ২০১৯,   আষাঢ় ৭ ১৪২৬,   ১৬ শাওয়াল ১৪৪০

ধেয়ে আসছে ‘তিতলি’, ২ নম্বর সতর্ক সংকেত

 প্রকাশিত: ০০:০৮ ১০ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ০০:০৮ ১০ অক্টোবর ২০১৮

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট গভীর নিম্মচাপটি আরো শক্তিশালী হয়ে ঘূর্ণিঝড়ের রূপ নিয়েছে এবং ক্রমশ উপকুলের দিকে অগ্রসর হচ্ছে।

‘তিতলি’ নামের এ ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে সাগর উত্তাল থাকায় সমুদ্রবন্দরগুলোকে দুই নম্বর হুঁশিয়ারি সংকেত দেখিয়ে যেতে বলেছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সব মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত নিরাপদ আশ্রয়ে থাকতে বলা হয়েছে।

চট্টগ্রাম পতেঙ্গা আবহাওয়া দপ্তরের কর্মকর্তা বিশ্বজিত চৌধুরী জানান, মঙ্গলবার সন্ধ্যা পর্যন্ত ঘূর্ণিঝড় তিতলি চট্টগ্রাম বন্দর থেকে ৯৩০ কিলোমিটার দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। 

ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৫৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৬২ কিলোমিটার, যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ৮৮ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। দুরত্বে থাকলেও ঘূর্ণিঝড়টি ক্রমশ শক্তিশালী হয়ে উঠছে। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মোংলা ও পায়রা সমুদ্রবন্দরকে ২ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’ আগামী বৃহস্পতিবার সকাল নাগাদ ভারতের ওড়িষা উপকূল ঘেঁষে দিঘা ও ২৪ পরগনা উপকূল হয়ে বাংলাদেশের খুলনা উপকূল অতিক্রম করতে পারে। নিম্নচাপের প্রভাবে চট্টগ্রামে মঙ্গলবার সকাল থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টিপাত হচ্ছে।

এর আগে মঙ্গলবার সন্ধ্যায় আবহাওয়ার বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পশ্চিম-মধ্য বঙ্গোপসাগর ও কাছাকাছি এলাকায় অবস্থানরত গভীর নিম্নচাপটি আরও সামান্য পশ্চিম দিকে অগ্রসর ও ঘনীভূত হয়ে একই এলাকায় ঘূর্ণিঝড় ‘তিতলি’-তে পরিণত হয়েছে।

এশীয় ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের সাগর তীরের আট দেশের আবহাওয়া দপ্তর ও বিশ্ব আবহাওয়া সংস্থার দায়িত্বপ্রাপ্ত প্যানেল এ ঝড়ের নাম দিয়েছে ‘তিতলি’। এটির নাম দিয়েছে পাকিস্তান। এর অর্থ সুন্দর প্রজাপতি।

ভারতীয় আবহাওয়া অধিদফতর জানিয়েছে, আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে তিতলি তীব্র ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হবে। বৃহস্পতিবার সকাল নাগাদ এটি ভারতের উড়িষ্যা ও উত্তর অন্ধ্রপ্রদেশ উপকূল অতিক্রম করতে পারে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএ