.ঢাকা, রোববার   ২৪ মার্চ ২০১৯,   চৈত্র ৯ ১৪২৫,   ১৭ রজব ১৪৪০

ধুনটে শেষ হলো আঞ্চলিক ইজতেমা

ধুনট (বগুড়া) প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৫:১৪ ১২ জানুয়ারি ২০১৯   আপডেট: ১৫:১৪ ১২ জানুয়ারি ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

 

বগুড়ার ধুনট উপজেলায় শনিবার সকালে আখেরি মোনাজাতের মধ্যদিয়ে শেষ হলো তিন দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা।

আখেরি মোনাজাতে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। এসময় মুসল্লিদের আমিন আমিন ধ্বন্নিতে মুখরিত হয়ে ওঠে ইজতেমা ময়দান। 

ইজতেমার আয়োজক কমিটি বলেন, দাওয়াতে তাবলিগের মেহনত বৃদ্ধির জন্য বগুড়ার ধুনট উপজেলায় চার দশক আগে থেকে আঞ্চলিক ইজতেমা হয়ে আসছিল। এর ধারাবাহিকতায় এবারো আঞ্চলিক ইজতেমা হচ্ছে। তবে নিজেদের বিভক্তির কারণে এ বছর ধুনট উপজেলায় দুটি ইজতেমা হচ্ছে। এরমধ্যে ধুনট পৌর এলাকার পূর্ব ভরনশাহী গ্রামে প্রথম ইজতেমা হল। 

গত বৃহস্পতিবার বাদ ফজর আম বয়ানের মধ্যদিয়ে তিন দিনব্যাপী ইজতেমার শুরু হয়। ইজতেমায় প্রতিদিন ফজর, যোহর, আছর ও বাদ মাগরিব তাবলিগের মুরুব্বিরা বয়ান করেছেন। এ ইজতেমায় বিদেশি ৬টি দেশের মুসুল্লীরাও অংশ নিয়েছেন। শুক্রবার ইজতেমা ময়দানে জুমার নামাজের জামাত হয়েছে। শনিবার বাদ ফজর কাকরাইলের মুরুব্বি আব্দুর রহিম বয়ান পেশ করেন। শনিবার ভোর থেকে ইজতেমা ময়দানে আখেরি মোনাজাতে অংশ নিতে ধর্মপ্রাণ মুসল্লিরা আসতে থাকেন। সকাল সাড়ে ১০টায় কাকরাইলের মুরব্বি মাওলানা আল ফারুক আখেরি মোনাজাত পরিচালনা করেন। প্রায় ৩০ মিনিট ব্যাপী আখেরি মোনাজাতে বিশ্ব মুসলিম উম্মাহর সুখ-শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়। আখেরি মোনাজাতে মুক্তিযোদ্ধা হাবিবর রহমান এমপিসহ জনপ্রতিনিধি, রাজনৈতিক নেতারা, প্রশাসনিক কর্মকর্তারা অংশ নেন।

ধুনট বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদের পেশ ইমাম হাফেজ আরিফুল্লাহ বলেন, তিন দিনব্যাপী আঞ্চলিক ইজতেমা শান্তিপূর্ণ পরিবেশে হয়েছে। ধুনট সদরে প্রথমবার এ ইজতেমার আয়োজন ছিল। তারপরও বিপুল পরিমান মুসল্লিরা অংশ নিয়েছেন। আগামী ১৭, ১৮ ও ১৯ জানুয়ারি ধুনট উপজেলার সরুগ্রামে দ্বিতীয় দফায় আঞ্চলিক ইজতেমা হবে।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএম