Exim Bank
ঢাকা, মঙ্গলবার ১৯ জুন, ২০১৮
Advertisement

দোয়া কবুলের মাস রমজান

 নিউজ ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১২:৩৭, ১৩ জুন ২০১৮

আপডেট: ১২:৪০, ১৩ জুন ২০১৮

৩১২ বার পঠিত

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

রোজা মুমিন মুসলমানের জীবনকে পবিত্র করে। পবিত্র কোরআনুল কারিমে রমজান মাসের এ রকম মর্যাদার কথাই ঘোষণা করা হয়েছে-

يَا أَيُّهَا الَّذِينَ آمَنُواْ كُتِبَ عَلَيْكُمُ الصِّيَامُ كَمَا كُتِبَ عَلَى الَّذِينَ مِن قَبْلِكُمْ لَعَلَّكُمْ تَتَّقُونَ

মহান আল্লাহ বলেন, “হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছে; যেমনিভাবে তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর রোজা ফরজ করা হয়েছিল। যাতে তোমরা তাকওয়াবান তথা পরহেজগারী অবলম্বন করতে পার।” (সুরা বাকারা : আয়াত ১৮৩)

পবিত্র কোরআন নাজিলের মাস রমজান। লাইলাতুল কদরের মাস রমজান। তাকওয়া অর্জনের মাস রমজান। দোয়া কবুলের মাস রমজান। তাই পবিত্র কোরআন অধ্যয়নের মাধ্যমে ঝিমিয়ে পড়া চেতনাকে জাগ্রত করে সব ধরনের অযাচিত কাজের বলয় থেকে নিজেদের মুক্ত করার মাধ্যমে পরকালের চিরস্থায়ী জীবনের সফলতা অর্জনে আল্লাহর কাছে দোয়া করা আবশ্যক।

রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, “রমজান মাসে দোয়া কবুল হয়। কেননা রমজান মাসে আল্লাহ তাআলা বান্দার সব প্রার্থনা কবুল করে থাকেন।”

কেননা নেকি অর্জনের সীমাহীন সুযোগ ও প্রবৃত্তিকে নিয়ন্ত্রণ করে মহান চরিত্র অর্জনের উত্তম প্রশিক্ষণের মাস এ রমজান। তাকওয়া অর্জনের এ মহান মাসে মুমিনের ওপর অর্পিত হয়েছে গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব।

রমজানের এ গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব যথাযথ পালন এবং এ সুযোগের সদ্ব্যবহার করতে পারলেই মহান আল্লাহ তাআলা বান্দার যাবতীয় নেক উদ্দেশ্য ও চাওয়া-পাওয়াগুলো পূরণ করে দেবেন। আর এ সুযোগে মুসলিমের উচিত নিজেদেরকে চারিত্রিক অধঃপতন থেকে হেফাজত করা।

মানুষের দোয়া কবুল প্রসঙ্গে রাসূলুল্লাহ (সা.) এর ছোট্ট একটি হাদিস তুলে ধরে হলো-

হযরত আবু হুরায়রা রাদিয়াল্লাহু আনহু বর্ণনা করেন, রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়া সাল্লাম বলেছেন, (রমজানের) প্রতি দিন ও রাতে (জাহান্নাম থেকে) আল্লাহর কাছে অনেক বান্দা মুক্তিপ্রাপ্ত হয়ে থাকে। তাদের প্রত্যেক বান্দার দোয়া কবুল হয়ে থাকে (যা সে রমজানে করে থাকে)। (মুসনাদে আহমাদ)

আরো পড়ুন>>> লাইলাতুল কদর এবং এর নিদর্শন

সুতরাং পবিত্র রমজান মাসে ইসলামি শরিয়ত কর্তৃক সুনির্ধারিত যে সব দায়িত্ব ও কাজ মুমিন মুসলমানের ওপর অর্পিত হয়েছে এবং যা থেকে বিরত থাকতে নির্দেশ দেয়া হয়েছে; সেগুলো যথাযথ পালন করে মনের সব আবেদন আল্লাহ তাআলার কাছে পেশ করলে তিনি তা কবুল করে বান্দাকে ক্ষমা করে দেবেন।

ডেইলি বাংলাদেশ/আরএজে

সর্বাধিক পঠিত