Alexa দেশের খাদ্য-পুষ্টির চাহিদা পূরণে উদ্ভিদের গুরুত্ব অপরিসীম: খাদ্যমন্ত্রী

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১৪ ১৪২৬,   ০৩ রজব ১৪৪১

Akash

দেশের খাদ্য-পুষ্টির চাহিদা পূরণে উদ্ভিদের গুরুত্ব অপরিসীম: খাদ্যমন্ত্রী

জাবি প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৪:৪১ ১৮ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৪:৪২ ১৮ জানুয়ারি ২০২০

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার বলেছেন, দেশের খাদ্য-পুষ্টির চাহিদা পূরণ, দারিদ্র্য বিমোচন, প্রচলিত ও অল্প প্রচলিত উদ্ভিদের গুরুত্ব অপরিসীম। প্রাকৃতিক সম্পদ সংরক্ষণ ও টেকসই উন্নয়ন ওতপ্রোতভাবে জড়িত।

শনিবার জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের জহির রায়হান মিলনায়তনের সেমিনার কক্ষে বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটির আয়োজনে বার্ষিক বোটানিক্যাল সম্মেলনে তিনি এসব কথা বলেন।

খাদ্যমন্ত্রী আরো বলেন, দেশের আর্থ-সামাজিক উন্নয়ন ও ঐতিহ্যের মূল চালিকা শক্তি উদ্ভিজ্য প্রাকৃতিক সম্পদ। এর সফল ও টেকসই ব্যবহার অত্যন্ত জরুরি। নিত্য নতুন টেকসই প্রযুক্তি উদ্ভাবনের মাধ্যমে এ প্রাকৃতিক সম্পদকে জাতির কল্যাণে ব্যবহার করতে হবে। উদ্ভিদরাজি প্রকৃতির অমূল্য সম্পদ। এই সম্পদসমূহ টিকে থাকলে জীব জগৎ ও মানুষ বেঁচে থাকবে।

‘নভেল এ্যাপ্রোচ অ্যান্ড রিসেন্ট ডেভেলপমেন্ট ইন প্লান্ট সায়েন্সেস’ প্রতিপাদ্য নিয়ে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত এ সম্মেলনে বিশেষ অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলাম বলেন, প্রকৃতির গুরুত্বপূর্ণ অবদান হলো উদ্ভিদ। এ প্রাকৃতিক সম্পদের বিস্তার লাভের সঙ্গে আমাদের বেঁচে থাকার সম্পর্ক নিবিড়। বিশ্বের অস্তিত্ব রক্ষাসহ সব মনুষের খাদ্য, বস্ত্র, বাসস্থান, শিক্ষা, চিকিৎসা প্রভৃতি মৌলিক চাহিদা মেটাতে আমরা প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে উদ্ভিদজাত দ্রব্যের উপর নির্ভরশীল। ক্রমবর্ধমান জনসংখ্যার চাহিদা পূরণে ও অপরিকল্পিত নগরায়নে অনেক মূল্যবান প্রাকৃতিক সম্পদ হারিয়ে যাচ্ছে কিংবা বিলুপ্ত হচ্ছে। এ বিষয়ে আমাদের অধিক সচেতন হতে হবে।

সরকারি কর্ম কমিশনের সাবেক চেয়ারম্যান অধ্যাপক জেড এন তাহমিদা বেগম বলেন, খাদ্য, বস্ত্র, আবাসনসহ অনেক বিষয়ে মানুষকে উদ্ভিদরাজির শরণাপন্ন হতে হয়। বিশ্বায়নের এসময় পৃথিবীর জনসংখ্যা দ্রুত গতিতে বাড়ছে। অন্যদিকে সভ্যতার বাড়তি চাহিদা মিটাতে শিল্পায়ন ও নগরায়ন সম্প্রসারিত হচ্ছে। কোন গবেষণা শুরু করার আগে বিজ্ঞানী ও প্রযুক্তিবিদদের মধ্যে ফলপ্রসু সংলাপ শুধু যে কাম্য তাই নয়, তা গবেষণা ক্ষেত্রে অগ্রাধিকার নির্ণয় ও সমস্যা সমাধানের পন্থা উদ্ভাবনেও সহায়ক ভূমিকা পালন করবে।

সম্মেলনে আরো বক্তব্য দেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মো. আমির হোসেন, উদ্ভিদবিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি অধ্যাপক মো. নুহু আলম, বাংলাদেশ বোটানিক্যাল সোসাইটির সভাপতি অধ্যাপক এম আবদুল গফুর প্রমুখ।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম