দেশপ্রেমীরা দুর্নীতি করে না: পরশ

ঢাকা, রোববার   ২৯ মার্চ ২০২০,   চৈত্র ১৫ ১৪২৬,   ০৪ শা'বান ১৪৪১

Akash

দেশপ্রেমীরা দুর্নীতি করে না: পরশ

নিজস্ব প্রতিবেদক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:৩১ ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০২০  

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

যুবলীগের চেয়ারম্যান শেখ ফজলে শামস পরশ বলেছেন, দেশপ্রেমীরা কখনোই দুর্নীতি করে না। তাদের বিভেদ, বিশৃঙ্খলা, ভেদাভেদ কিছুই থাকে না। 

মঙ্গলবার আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় রাজনৈতিক কার্যালয়ে আওয়ামী যুবলীগের উদ্যোগে ঢাকা বিভাগের আওতাধীন জেলা, মহানগর নেতাকর্মীদের নিয়ে প্রতিনিধি সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন তিনি। 

পরশ বলেন, দেশপ্রেমে বিশ্বাসী ব্যক্তি যেখানে থাকে সেখানে দুর্নীতি হয় না। আসল দেশপ্রেমীরা কখনোই দুর্নীতি করে না। তাদের বিভেদ বিশৃঙ্খলা ভেদাভেদ কিছুই থাকে না। এ কথাগুলো বলার জন্য কোনো ব্যক্তি দায়ী নয় বা কাউকে দোষ দেব না। এটি একটি সামাজিক অবক্ষয়। 

যুবলীগের চেয়ারম্যান বলেন, আমার একটি ভিশন আছে যুবলীগকে নিয়ে। সেই লক্ষ্যে কাজ করবো। প্রথমেই আমি শৃঙ্খলার কথা বলবো। শৃঙ্খলা একটি ব্যাপক অর্থবহুল শব্দ। শৃঙ্খলা বলতে অনেক কিছু বোঝায়। অতীতে আমাদের যে বিশৃঙ্খলা ভেদাভেদ আছে সেগুলো ভুলে যেতে হবে দলের স্বার্থে।

নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্যে তিনি আরো বলেন, আমরা নিজেদের ইগো নিয়ে এত বড় হয়ে যায় যে, মানুষে মানুষে ভেদাভেদ সৃষ্টি হয়ে যায়। আপনাদের কাছে আমার অনুরোধ- ব্যক্তিগত স্বার্থে নিজেদের ভেদাভেদ ভুলে গিয়ে সংগঠনের স্বার্থের ঊর্ধ্বে কেউ কিছু করবেন না। ভেদাভেদ সৃষ্টি করবেন না। সবার আগে প্রাধান্য দেবেন এই সংগঠনকে। এটি আছে বলেই আমরা আছি। এই সংগঠন হয়েছে বলেই আজ আমরা একেক জন জেলা, থানা পর্যায়ে প্রেসিডেন্ট সেক্রেটারি হতে পেরেছি।

ভবিষ্যতে দলের কঠিন সময় পার করতে হতে পারে নেতাকর্মীদের এমন সর্তক করে শেখ ফজলে শামস পরশ বলেন, টানা ১১ বছর এ দল ক্ষমতায় আছে। এরপর দলের কঠিন সময়ও আসতে পারে। এটাই স্বাভাবিক, এটা স্বাভাবিক নিয়মেই চলে। আমরা যদি বঙ্গবন্ধু আদর্শের বিশ্বাসী রাজনীতি করি, তাহলে অবশ্যই বিশ্বাস রাখতে হবে। আজকে আমরা ক্ষমতায় আছি, ক’দিন পরে নাও থাকতে পারি। তাই সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। নিজে কি পেলাম, না পেলাম এ চিন্তা না করে সংগঠনকে শক্তিশালী করতে হবে। নিজের আত্মসম্মান ভুলে গিয়ে আপনার ভাই বা কর্মী যে পাশে ছিল বা বিপদের সময় যে পাশে ছিল না, সেও যদি আসতে চায় তাহলে তাকে গ্রহণ করেন। দয়া করে দলের মধ্যে কেউ বিভেদ বিভাজন রাখবেন না। এগুলো দূর করাই মঙ্গলদায়ক। 

তিনি বলেন, যেহেতু আপনারা বঙ্গবন্ধুর সংগঠন করেন, শেখ হাসিনার সংগঠন করেন; তাই অন্য সংগঠন, দলের তুলনায় আপনারা অনেক শক্তিশালী। কারণ আপনাদের আছে দেশপ্রেম। সেজন্য ভবিষ্যত প্রজন্মকে উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তাদেরকে এ সংগঠনের সঙ্গে যুক্ত করে দেশকে এগিয়ে নিয়ে যাবেন দেশপ্রেমের ব্যানারে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জাআ/এসআই