দুলাভাই ধরল হাত-পা, ধর্ষণ করল শ্যালক

ঢাকা, সোমবার   ২৭ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ১৩ ১৪২৬,   ২২ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

দুলাভাই ধরল হাত-পা, ধর্ষণ করল শ্যালক

বরগুনা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ০২:১১ ২২ এপ্রিল ২০১৯  

প্রতীকী ছবি

প্রতীকী ছবি

বরগুনার পাথরঘাটায় মাদরাসায় যাওয়ার পথে নবম শ্রেণির এক ছাত্রীকে অপহরণের পর বিয়ে ও একাধিকবার ধর্ষণের অভিযোগ উঠেছে। অভিযুক্ত তিনজনই সম্পর্কে শ্যালক ও দুলাভাই।

১১ এপ্রিল সকালে ওই ছাত্রীকে অপহরণ করে জাকারিয়া, তার দুলাভাই মাহবুব ও সবুজ। পরে ছাত্রীর অমতে তাকে বিয়ে করে জাকারিয়া। ১২ এপ্রিল রাতে ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে জাকারিয়া। সেই সঙ্গে ধর্ষণের ভিডিও মোবাইলে ধারণ করে তারা।

এ ঘটনায় পাঁচজনকে আসামি করে থানায় মামলা করেছে ভুক্তভোগী। অভিযুক্তরা হলেন- পাথরঘাটা উপজেলার চর লাঠিমারা এলাকার আবু মিয়ার ছেলে জাকারিয়া, জাকারিয়ার দুলাভাই মাহবুব, সবুজ ও অজ্ঞাত আরো দুইজন।

মামলার এজাহারে উল্লেখ করা হয়, ১১ এপ্রিল সকালে বরগুনার বামনা উপজেলার বাড়ি থেকে মাদরাসায় যাচ্ছিল ছাত্রী। পথে পাথরঘাটা উপজেলার চর লাঠিমারা এলাকার জাকারিয়া ও তার দুই দুলাভাই মাহবুব ও সবুজ ছাত্রীকে অপহরণ করে পাথরঘাটায় নিয়ে যায়।

পরে ছাত্রীর অমতে স্থানীয় একজন মৌলভীর মাধ্যমে তাকে বিয়ে করে জাকারিয়া। বিয়ের কাজ শেষে যে যার মতো করে চলে যায়। পরদিন রাতে ছাত্রীর সঙ্গে রাত কাটাতে যায় জাকারিয়া। এতে বাধা দেয় ছাত্রী। এ সময় জাকারিয়া জোর করে ছাত্রীর সঙ্গে মেলামেশা করতে চাইলে চিৎকার দেয় ছাত্রী। তার চিৎকার শুনে জাকারিয়ার দুলাভাই মাহবুব এবং সবুজ ও অজ্ঞাত আরো দুই যুবক ছাত্রীর ঘরে প্রবেশ করে।

পরে দুলাভাই মাহবুব ও সবুজ ছাত্রীর হাত-পা চেপে ধরে। ওই সময় ছাত্রীকে একাধিকবার ধর্ষণ করে জাকারিয়া। সেই সঙ্গে ধর্ষণের দৃশ্য মোবাইলে ধারণ করে ঘরে অবস্থান করা অজ্ঞাত এক যুবক। ধর্ষণের ভিডিও জাকারিয়ার মোবাইলে ধারণ করা হয়। ১৩ এপ্রিল জাকারিয়ার বাড়ি থেকে ছাত্রীকে উদ্ধার করে বাড়ি নিয়ে যায় দুলাভাই দুলাল।

পরে এ ঘটনায় পাথরঘাটা থানায় ধর্ষণ মামলা করে ছাত্রী। পাশাপাশি বরগুনা জেনারেল হাসপাতালে ধর্ষণের শিকার ছাত্রীর ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে।

এ বিষয়ে পাথরঘাটা থানার ওসি মো. হানিফ সিকদার বলেন, ভুক্তভোগী বাদী হয়ে পাথরঘাটা থানায় মামলা করেছে। মামলায় পাঁচজনকে আসামি করা হয়েছে। আসামিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এমআর

Best Electronics