Alexa দুর্দান্ত জয়ে সিরিজ শুরু ভারতের

ঢাকা, সোমবার   ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০,   ফাল্গুন ১১ ১৪২৬,   ২৯ জমাদিউস সানি ১৪৪১

Akash

দুর্দান্ত জয়ে সিরিজ শুরু ভারতের

স্পোর্টস ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৬:১৮ ২৪ জানুয়ারি ২০২০   আপডেট: ১৬:৫৩ ২৪ জানুয়ারি ২০২০

লোকেশ রাহুল

লোকেশ রাহুল

পাঁচ ম্যাচ সিরিজের প্রথম টি-টোয়েন্টিতে স্বাগতিক নিউজিল্যান্ডকে ৬ উইকেটে হারিয়েছে ভারত। অকল্যান্ডে আগে ব্যাট করতে নেমে কলিন মুনরো-কেন উইলিয়ামসনে অর্ধশতকে নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে ২০৩ রান তোলে কিউইরা। জবাবে ৬ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় ভারত।

নিউজিল্যান্ডের দেয়া পাহাড়সম লক্ষ্যে ব্যাট করতে নামা ভারত শুরুতেই রোহিত শর্মার উইকেট হারায়। ৬ বলে ৭ রান করে ফিরে যান রোহিত। এরপরই কিউই বোলারদের ওপর তাণ্ডব চালাতে থাকেন ওপেনার লোকেশ রাহুল ও অধিনায়ক বিরাট কোহলি। তাদের ৫০ বলে ৯৯ রানের জুটি ভাঙেন ইশ শোধি। ২৭ বলে ৫৬ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে ফিরে যান রাহুল। তার ইনিংসটি সাজানো ছিলো ৪টি চার ও ৩টি ছয়ের মার। 

এর পরপরই ফিরে যান বিরাট কোহলি। ৩২ বলে  ৪৫ রান করে ব্লেয়ার টিকনারের শিকারে পরিণত হন তিনি। আশা জাগিয়েও দ্রুতই ফিরে যান শিভম দ্যুবে। ৯ বলে ১৩ রান করে সোধির বলে সাউদির হাতে ধরা পড়েন তিনি।

অল্প রানের মধ্যে তিন উইকেট হারিয়ে কিছুটা ব্যাকফুটে চলে যায় সফরকারীরা। তবে শ্রেয়াস আয়ারের ক্যামিওর সামনে দাঁড়াতে পারেনি কিউই বোলাররা। ৬ বল ও ৬ উইকেট হাতে রেখে জয় তুলে নেয় ভারত। ২৯ বলে ৫৮ রানে অপরাজিত থাকেন শ্রেয়াস। ৫টি চারের পাশাপাশি ৩টি ছক্কা হাঁকান তিনি। অপরপ্রান্তে ১২ বলে ১৪ রান নিয়ে অপরাজিত থাকেন মনিশ পান্ডে। 

 

এর আগে,  টস হেরে ব্যাট করতে নামা নিউজিল্যান্ডকে উড়ন্ত সূচনা এনে দেন দুই ওপেনার মার্টিন গাপটিল ও কলিন মুনরো। ৭.৫ ওভারে ৮০ রান তুলে নিউজিল্যান্ডকে বড় রানের ভিত গড়ে দেন তারা। ১৯ বলে ৩০ রান করা গাপটিলকে ফিরিয়ে ভারতকে ব্রেক থ্রু এনে দেন তরুণ শিভম দ্যুবে। 

আরেক ওপেনার কলিন মুনরোর পর অর্ধশতকে পর অধিনায়ক কেন উইলিয়ামসন ও অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান রস টেইললের ঝড়ো ব্যাটিংয়ে ২০৩ রানের পুঁজি পায় স্বাগতিকরা। ৪২ বলে ৬টি চার ও ২টি ছয়ের মারে ৫৯ রান করেন মুনরো। 

সমান চারটি করে চার ও ছক্কা হাঁকিয়ে ২৬ বলে ৫১ রান করেন উইলিয়ামসন। আর শেষের দিকে তাণ্ডব চালানো টেইলরের ব্যাট থেকে আসে ৫৪ রান। তার ২৭ বলের ইনিংসটি সাজানো ছিলো ৩টি করে চার ও ছয়ের মারে। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এম