দরপত্র ছাড়াই বুড়িচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হচ্ছে বৃক্ষহীন
SELECT bn_content_arch.*, bn_bas_category.*, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeInserted, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeInserted, DATE_FORMAT(bn_content_arch.DateTimeUpdated, '%H:%i %e %M %Y') AS fDateTimeUpdated, bn_totalhit.TotalHit FROM bn_content_arch INNER JOIN bn_bas_category ON bn_bas_category.CategoryID=bn_content_arch.CategoryID INNER JOIN bn_totalhit ON bn_totalhit.ContentID=bn_content_arch.ContentID WHERE bn_content_arch.Deletable=1 AND bn_content_arch.ShowContent=1 AND bn_content_arch.ContentID=40002 LIMIT 1

ঢাকা, শনিবার   ০৮ আগস্ট ২০২০,   শ্রাবণ ২৪ ১৪২৭,   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪১

Beximco LPG Gas

দরপত্র ছাড়াই বুড়িচং স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স হচ্ছে বৃক্ষহীন

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ

 প্রকাশিত: ১০:০০ ৬ জুন ২০১৮   আপডেট: ১৫:০২ ৬ মার্চ ২০১৯

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কুমিল্লার বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের লাখ লাখ টাকার গাছ কাটা হচ্ছে কোন দরপত্র ছাড়াই। ফলে স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সটি এখন প্রায় বৃক্ষহীন হয়ে যাচ্ছে।

সরকারি প্রতিষ্ঠানের কোন গাছ কাটতে হলে আগে দরপত্র বা টেন্ডার আহ্বান করতে হয়। কিন্তু বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও ভিতর থাকা এ সকল গাছগুলো কোন নিয়ম নীতির তোয়াক্কা না করেই কাটা হচ্ছে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুড়িচং উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সেও সীমানা প্রাচীরের ভিতর থাকা ১০/১২ টি মেহগনি গাছ গত ৪ জুন থেকে কাটা শুরু হয়। এরই মাঝে প্রায় সবগুলো গাছ কেটে ফেলা হয়েছে।

বিষয়টি জানতে চাইলে উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা রত্না দাস সাংবাদিকদের বলেন, গাছগুলো কেটে লাকড়ি করে বিক্রি শেষে টাকা সরকারি কোষাগারে জমা দেয়া হবে। মূল্যবান এই গাছ থেকে কাঠ করা হলেও কেন উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা লাকড়ি করে বিক্রি করবেন সেটা বোধগম্য হচ্ছে না।

তিনি আরো বলেন, যথাযথভাবে নিয়ম অনুসরণ করে গাছ কাটা হচ্ছে। ঐ স্থানে উপজেলা পরিবার পরিকল্পনা অফিস নির্মাণ করা হবে। তাই দ্রুত গাছগুলো কাটতে হলো, এখানে কোন অনিয়ম দুর্নীতি হয়নি। পরবর্তীতে টেন্ডার আহ্বান করা হবে।

সূত্রমতে, মূল্যবান মেহগনি গাছগুলোর মূল্য কমপক্ষে ৩ থেকে ৪ লাখ টাকা।

এ বিষয়ে কুমিল্লা বিভাগীয় বন কর্মকর্তা কাজী মুহাম্মদ নুরুল কবির বলেন, গাছ কাটতে হলে লিখিতভাবে বনবিভাগের কাছে অনুমতি নিতে হয়। এক্ষেত্রে কোন আবেদনই করেনি সংশ্লিষ্ট উপজেলা প্রশাসন।

ডেইলি বাংলাদেশ/টিআরএইচ