দক্ষ পরিচালনার অভাব ছিল দলে

ঢাকা, শনিবার   ০৪ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২১ ১৪২৬,   ১০ শা'বান ১৪৪১

Akash

প্রত্যাশা-প্রাপ্তির বিশ্বকাপ, পর্ব ৫ (পরিচালনা)

দক্ষ পরিচালনার অভাব ছিল দলে

আসাদুজ্জামান লিটন ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২০:২৭ ১৩ জুলাই ২০১৯   আপডেট: ২০:৪০ ১৩ জুলাই ২০১৯

ছবি: সংগৃহীত

ছবি: সংগৃহীত

এবারের ক্রিকেট বিশ্বকাপ নিয়ে বাংলাদেশী ক্রিকেটার ও সমর্থক সবারই স্বপ্ন ছিল কমপক্ষে সেমিফাইনাল খেলা। অভিজ্ঞতা, দল সহ বিভিন্ন কারণে এই চাওয়া অমূলক মনে হয়নি কারও কাছেই। তবে বিশ্বকাপের গ্রুপপর্ব শেষে এ মিশন যেনো ব্যর্থতাই চোখে পড়ছে বেশি। ১০ দলের বিশ্বকাপে সেরা চারের লক্ষ্যে থাকা দল টুর্নামেন্ট শেষ করছে অষ্টম স্থানে থেকে, এটি মানতেই যেনো বেশি কষ্ট হচ্ছে সমর্থকদের।

কিন্ত কেনো এমন হতাশাজনক পারফরমেন্স? কি হতে পারে এর পেছনের কারণ? বিশ্বকাপের ঠিক আগে ট্রাইনেশন সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হওয়া দলের কেনো এ অবস্থা? এর উত্তর খোঁজার চেষ্টা শেষে কয়েকটি কারণ পাওয়া গিয়েছে। যার পঞ্চম ও শেষ পর্বে থাকছে দলীয় ম্যানেজমেন্ট সংক্রান্ত কারণ। 

যেকোন টুর্নামেন্টে দল ভালো করার অন্যতম প্রধান শর্ত হলো দলের ঠিকভাবে পরিচালনা করা। অবাক হলেও সত্য, কিছু কিছু ক্ষেত্রে দলের ম্যানেজমেন্টের দায়িত্বে থাকা ব্যক্তিবর্গ ব্যর্থ হয়েছেন। 

এর মধ্যে উদাহরণ হিসেবে দেখানো যায় ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগের অবস্থা। আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচের পর ৭ দিন বিরতী পায় বাংলাদেশ। ভারতের বিপক্ষে ম্যাচের আগে ও টুর্নামেন্টে টিকে থাকার জন্য যেখানে অনুশীলন অতি প্রয়োজনীয় সেখানে কিনা জাতীয় দলের অনেককেই ঘুরে বেড়াতে দেখা যায়! 

এ নিয়ে অনুসন্ধান করে পরে জানা যায় বিসিবি নাকি আফগানিস্তান ম্যাচের পরের ৩-৪ দিনের জন্য দলের অনুশীলনের প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করতে পারেনি। কোন মাঠ, ইনডোর বা নেট কোথাও প্র্যাক্টিস করার মতো প্রয়োজনীয় উদ্যোগ নিতে পারেনি টীম ম্যানেজমেন্ট। ফলে ঘুরতে বের হন ক্রিকেটাররা। ভারতের বিপক্ষে গুরুত্বপূর্ন ম্যাচ হারের এটিও একটি কারণ হতে পারে। যা বাংলাদেশকেই ছিটকে দেয় টুর্নামেন্ট থেকে। 

এছাড়া টুর্নামেন্ট চলাকালীন সময়ে নানা ধরণের নেতিবাচক খবরও প্রভাব ফেলেছে দলের উপর। প্রথমে শুরু হয় সাইফউদ্দিনকে নিয়ে। এই অলরাউন্ডার নাকি বড় দলের বিপক্ষে ইচ্ছে করে মাঠে নামেন না। যে কোন পর্যায়ের ক্রিকেটারের জন্যই এটি অনেক নেতিবাচক একটি খবর। যা নিঃসন্দেহে দলের ভেতর প্রভাব ফেলতে সক্ষম। 

এছাড়া হেড কোচ স্টিভ রোডসকে নিয়েও নেতিবাচক খবর ছাপা হয়। সত্য মিথ্যা যেটাই হোক, বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্ট চলার সময় এমন খবরও দলে খারাপ প্রভাব ফেলতে বাধ্য। 

এভাবে ছোটখাটো কিছু ঘটনা দলের পারফরম্যান্সে নেতিবাচক প্রভাব ফেলেছে বলাই যায়। যা নিঃসন্দেহে দলের জন্য ভালো কিছু ছিলোনা।

দলের ম্যানেজমেন্টের ব্যাপারেও ভবিষ্যতে আরো সচেতন থাকবে বিসিবি এটাই এখন প্রত্যাশা। 

ডেইলি বাংলাদেশ/এএল/সালি