ত্রাণ চাওয়ায় রিকশাচালককে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালো মেম্বার

ঢাকা, রোববার   ৩১ মে ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ১৭ ১৪২৭,   ০৭ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

ত্রাণ চাওয়ায় রিকশাচালককে পিটিয়ে হাসপাতালে পাঠালো মেম্বার

কুমিল্লা প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৩৩ ১৯ মে ২০২০   আপডেট: ১১:০১ ২০ মে ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

কুমিল্লার নাঙ্গলকোটে ত্রাণ চাওয়ায় আইয়ুব আলী নামে এক অটোরিকশা চালককে পিটিয়ে গুরুতর আহত করার অভিযোগ উঠেছে। 

ওই অটোরিকশা চালকের অভিযোগ উপজেলার মক্রবপুর ইউপির ৭ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার ইব্রাহিম খলিল তাকে পিটিয়েছে।

মঙ্গলবার দুপুরে মক্রবপুর ইউনিয়ন পরিষদে এ ঘটনা ঘটে। 

আহত ওই অটোরিকশা চালক মক্রবপুর গ্রামের আমজাদ মার্কেট এলাকার নোয়াব আলীর ছেলে।

স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, মঙ্গলবার সকালে মক্রবপুর ইউনিয়ন পরিষদের সামনে বিভিন্ন এলাকার অসহায় মানুষের মাঝে ত্রাণ সামগ্রী বিতরণ করেন ইউপি চেয়রাম্যান গোলাম মুর্তুজা চৌধুরী মুকুল। এ সময় ত্রাণের জন্য ইউনিয়ন পরিষদে যান অটোরিকশা চালক আইয়ুব আলী। পরে ত্রাণ না পাওয়ায় ৭ নম্বর ইউপি মেম্বার ইব্রাহিম খলিলের সঙ্গে আইয়ুবের কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে মেম্বার ইব্রাহিম খলিল ও গ্রাম পুলিশ মিজানসহ ১০-১২ জন মিলে লাঠি দিয়ে পিটিয়ে আইয়ুবকে গুরুতর আহত করে। পরে স্থানীয় লোকজন এসে তাকে উদ্ধার করে নাঙ্গলকোট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে।

আহত আইয়ুব আলী বলেন, গত ৪ বছর ধরে একটিবারের জন্য কোনো সরকারি সহয়তা পাইনি। লকডাউন থাকার কারণে রোডে রিকশা চালাতে পারি না। পরিবার পরিজন নিয়ে অনেক কষ্ট থাকার কারণে চাল দেয়ার কথা শুনে ইউনিয়ন পরিষদের যাই। সেখানে গিয়ে ইব্রাহিম মেম্বারের কাছে গিয়ে ত্রাণ চাইলে সে তার লোকজন নিয়ে আমাকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করে।

এই বিষয়ে অভিযুক্ত মেম্বার ইব্রাহিম খলিল বলেন, আমি চেয়ারম্যান সাহেবসহ পরিষদের  ভেতরে বসে ছিলাম। এ সময় ত্রাণ না পাওয়ার কারণে ওই অটোরিকশা চালক আমাদের চরম গালমন্দ করে। একপর্যায়ে চেয়ারম্যানের টেবিলে থাপ্পড় দেয় সে। পরে আমি তাকে পরিষদ থেকে বের করে দিয়েছি। কিন্তু তাকে পিটিয়েছি এই অভিযোগ সম্পূর্ণ মিথ্যা।

তবে এই বিষয়ে ইউপি চেয়রাম্যানের গোলাম মুর্তুজা চৌধুরী মুকুল বলেন, তিনি ইউনিয়ন পরিষদের যাওয়ার আগে এই অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনাটি ঘটে। এখন স্থানীয়ভাবে এটি মীমাংসা করার চেষ্টা চলছে।

নাঙ্গলকোট থানার ওসি বখতিয়ার উদ্দিন চৌধুরী বলেন, ঘটনাটি এই মাত্র শুনেছি। অভিযোগ পেলে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে। 

ইউএনও লামইয়া সাইফুল বলেন, ঘটনাটি শুনেছি। অভিযোগের আলোকে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ/আরএম