তুরস্ক যাওয়ার পথে নিখোঁজ ছাতকের যুবক

ঢাকা, রোববার   ০৭ জুন ২০২০,   জ্যৈষ্ঠ ২৪ ১৪২৭,   ১৪ শাওয়াল ১৪৪১

Beximco LPG Gas

তুরস্ক যাওয়ার পথে নিখোঁজ ছাতকের যুবক

সিলেট প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১৮:৩১ ৮ এপ্রিল ২০২০   আপডেট: ১৯:২৭ ৮ এপ্রিল ২০২০

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

দালালের মাধ্যমে ইরান থেকে তুরস্ক যাওয়ার পথে এক মাস থেকে নিখোঁজ সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার এক যুবক। নিখোঁজ যুবক আবু জাফর নোমান উপজেলার রাধানগর গ্রামের বদরুল আলমের ছেলে।

এ ঘটনার পর থেকে ইরানে অবস্থানরত বাংলাদেশি দালাল সাইদ গা ঢাকা দিয়েছেন। তার বাড়ি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলার ১১ নম্বর গজনাইপুর ইউপির সতক সইদাবাদ গ্রামে।

এদিকে এ ঘটনার পর থেকে উদ্বেগ উৎকণ্ঠায় দিন কাটছে নোমানের পরিবারে। একমাত্র ছেলের সন্ধান না পাওয়ায় বাকরুদ্ধ নোমানের মা।

নোমানের বোন জান্নাত আক্তার সুমি ডেইলি বাংলাদেশকে জানান, গত ফেব্রুয়ারিতে ইরান যান নোমান। সেখান থেকে ১ মার্চ নোমানসহ ৬ জন বাংলাদেশি তুরস্কের উদ্দেশে রওনা দেন। বরফের উপর দিয়ে প্রায় ১৬ ঘণ্টা হেঁটে গত ২ মার্চ বাংলাদেশ সময় সকাল ৭টায় তুরস্কের সীমান্তে পৌঁছান।

দালাল সাইদ

এ সময় তিনি তুরস্ক সীমান্তে পৌঁছে গেছেন বলে পরিবারের সদস্যদের ফোনে জানান। পরে নেটওয়ার্কেও সমস্যার কথা বলে ফোন কেটে দেন। এরপর ছয়জনের মধ্যে পাঁচজন তুরস্ক সীমান্ত থেকে দুই ঘণ্টা হেঁটে ইস্তাম্বুল শহরের কাছাকাছি পৌঁছান। এ সময় নিখোঁজ হয়ে যান নোমান।

নোমানের সহযাত্রীরা জানান, তারা ছয়জনই তুরস্কের সীমান্তে প্রবেশ করেছেন। মাঝপথে পানি খাওয়ার জন্য নোমান পেছনে পড়ে যান। এরপর আর তার কোনো খোঁজ মিলেনি বলে জানান সুমি।

সুমি আরো জানান, নিখোঁজের পর ইরানে অবস্থানরত দালাল সাইদের সঙ্গে তারা যোগাযোগ করলে প্রথমে ফোন কল রিসিভ করলেও পরে সংযোগ বিচ্ছিন্ন করে দেন। নিখোঁজের আগে তার ভাই নোমান জানিয়েছেন সে যে দালালের মাধ্যমে তুরস্ক যাচ্ছে তার নাম সাইদ। বাড়ি হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ উপজেলায়।

 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেএইচ