Alexa তিন আসনেই খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল

ঢাকা, সোমবার   ১৯ আগস্ট ২০১৯,   ভাদ্র ৪ ১৪২৬,   ১৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪০

Akash

তিন আসনেই খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল

বগুড়া ও ফেনী প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৬:২৬ ২ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৪:১৩ ৬ মার্চ ২০১৯

খালেদা জিয়া

খালেদা জিয়া

দুর্নীতির মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার তিনটি মনোনয়নপত্রই বাতিল করে দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা। রোববার মনোনয়নপত্র যাচাই-বাছাই শেষে ফেনীর রিটার্নিং কর্মকর্তা মো. ওয়াহিদুজ্জামান ফেনী-১ আসনে এবং বগুড়ার রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়েজ আহম্মদ বগুড়া-৬ ও বগুড়া-৭ আসনে খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন।

দুর্নীতি মামলায় দুই বছরের বেশি সাজা হওয়ার বিষয়টিকেই মনোনয়নপত্র বাতিলের কারণ হিসেবে উল্লেখ করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তারা।

রিটার্নিং কর্মকর্তারদের এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে নির্বাচন কমিশনে আপিল করা হবে বলে জানিয়েছে স্থানীয় বিএনপি নেতারা। আর বিএনপির জ্যেষ্ঠ যুগ্ম মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী বলেছেন, খালেদা জিয়ার মনোনয়নপত্র বাতিল ‘সরকারের নীল নকশার অংশ’।

জিয়া এতিমখানা ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর এবং জিয়া দাতব্য ট্রাস্ট দুর্নীতি মামলায় ৭ বছরের দণ্ড নিয়ে গত ফেব্রুয়ারি থেকে কারাগারে আছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। বিএনপি নেতারা আশা করছিলেন, রায়ের বিরুদ্ধে আপিল করে তিনি ৩০ ডিসেম্বর অনুষ্ঠেয় সংসদ নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন। সে অনুযায়ী ফেনী ও বগুড়ার তিনটি আসনে তাকে ধানের শীষের মনোনয়ন দেয়া হয়েছিল।

কিন্তু হাইকোর্টে এক মামলার রায়ের পর্যবেক্ষণে বলা হয়, সংবিধানের ৬৬ (২) (ঘ) অনুচ্ছেদ অনুযায়ী কারও দুই বছরের বেশি সাজা বা দণ্ড হলে সেই দণ্ড বা সাজার বিরুদ্ধে উচ্চ আদালতে আপিল বিচারাধীন থাকা অবস্থায় তিনি নির্বাচনে অংশ নিতে পারবেন না, যতক্ষণ না আপিলে ওই দণ্ড বাতিল বা স্থগিত হয়।

এর ফলে খালেদা জিয়াসহ বেশ কয়েকজন বিএনপি নেতার আপিল করে নির্বাচনে অংশ নেয়ার সুযোগ আটকে যায়। এই পরিস্থিতিতে খালেদা জিয়ার পাশাপাশি তিনজন বিকল্প প্রার্থী তিন আসনে ধানের শীষের মনোনয়নপত্র জমা দেন।

বগুড়া: বগুড়া-৬ (সদর) আসনে খালেদা জিয়ার পাশাপাশি বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন দলের মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদার মনোনয়ন বাতিল হয়ে গেলেও মির্জা খরুলের প্রার্থিতা বৈধ ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা।

রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়েজ আহম্মদ জানান, এ আসনে জমা পড়া ১১টি মনোনয়নপত্রের মধ্যে তিনটি বাতিল হয়ে গেছে। খালেদা জিয়ার উপদেষ্টা বগুড়ার পৌর মেয়র অ্যাডভোকেট একেএম মাহবুবুর রহমানও এ আসনে ধানের শীষের জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় প্রত্যয়ন না থাকায় তা বাতিল হয়ে গেছে।

এদিকে গাবতলী-শাজাহানপুর নিয়ে বগুড়া-৭ আসনে খালেদা জিয়ার পাশাপাশি তার বিকল্প প্রার্থী গাবতলী উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান বিএনপি নেতা মোরশেদ মিল্টনের মনোনয়নপত্রও বাতিল করে দিয়েছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। খালেদা ও মিল্টনের মনোনয়ন বাতিল হওয়ায় বগুড়া-৭ আসনে ধানের শীষের কোনো প্রার্থী থাকল না। 

রিটার্নিং কর্মকর্তা ফয়েজ আহম্মদ বলেছেন, মিল্টন উপজেলা চেয়ারম্যানের পদ ছেড়ে মনোনয়নপত্র জমা দিলেও তা গৃহীত না হওয়ায় মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। তবে তিনি এ সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে আপিল করতে পারবেন। 

জেলা বিএনপির নির্বাহী কমিটির সদস্য ও শাজাহানপুর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সরকার বাদল দলীয় মনোনয়ন না পেলেও মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় প্রত্যয়ন না থাকায় রিটার্নিং কর্মকর্তা তা বাতিল করে দিয়েছেন।  

বর্তমান সংসদ সদস্য জাতীয় পার্টির অ্যাডভোকেট আলতাফ আলী এবারও এ আসনে মহাজোটের প্রার্থী। আওয়ামী  লীগের মোস্তফা আলম নান্নু মনোনয়নপত্র জমা দিলেও দলীয় প্রত্যয়ন না থাকায় তা বাতিল হয়ে গেছে। 

রিটার্নিং কর্মকর্তা জানিয়েছেন, এ আসনে মোট ১৪টি মনোনয়নপত্র জমা পড়েছিল, তার মধ্যে সাতটি বাতিল হয়ে যাওয়ায় বৈধ প্রার্থী থাকছেন সাতজন।

ফেনী: ফেনী-১ আসনে খালেদা জিয়ার পাশাপাশি ঢাকা মহানগর দক্ষিণ যুবদলের সভাপতি রফিকুল ইসলাম মজনু বিএনপির বিকল্প প্রার্থী হিসেবে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তার মনোনয়ন বৈধ ঘোষণা করেছেন রিটার্নিং কর্মকর্তা। এছাড়া বিএনপির ছাগলনাইয়া উপজেলা সভাপতি নূর আহমেদ মজুমদারও এ আসনে ধানের শীষে ভোট করার জন্য মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। কিন্তু দলীয় প্রত্যয়নপত্র না থাকায় তা বাতিল হয়ে গেছে।

ফেনী-১ আসনের বর্তমান সংসদ সদস্য জাসদের শিরীন আখতার এবারও ক্ষমতাসীন জোটের পক্ষে প্রার্থী হয়েছেন। আওয়ামী লীগের নৌকা প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে লড়বেন তিনি। রিটার্নিং কর্মকর্তার যাচাইয়ে তার মনোনয়নপত্রও বৈধতা পেয়েছে। 

রিটার্নিং কর্মকর্তা জানান, ২৯ নভেম্বর মনোনয়ন জমার শেষ সময় পর্যন্ত মোট ১৪ জন এ আসনে মনোনয়নপত্র জমা দিয়েছিলেন। তাদের মধ্যে বৈধতা পেয়েছে দশজনের মনোনয়নপত্র। খালেদা জিয়া, নূর আহমেদ মজুমদার ছাড়াও দুই স্বতন্ত্র প্রার্থী মিজানুর রহমান ও আবুল বাশার চৌধুরীর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়ে গেছে।

বৈধতা পেয়েছে জাসদের শিরীন আখতার, বিএনপির রফিকুল আলম মজনু, ইসলামী আন্দোলনের কাজী গোলাম কিবরিয়া, বাংলাদেশ ন্যাশনালিস্ট ফ্রন্ট-বিএনএফের শাহরিয়ার ইকবাল, গণফোরামের এবিএম গোলাম মাওলা চৌধুরী, খেলাফত আন্দোলনের আনোয়ার উল্লাহ ভুঁইয়া, স্বতন্ত্র প্রার্থী (আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী) শেখ আবদুল্লাহ ও খায়রুল বাশার মজুমদার, বাংলাদেশ মুসলিম লীগের তারেকুল ইসলাম এবং বাংলাদেশ ইসলামী ফ্রন্টের কাজী নুরুল আলমের মনোনয়নপত্র।

ডেইলি বাংলাদেশ/এস

Best Electronics
Best Electronics

শিরোনাম

শিরোনামকুমিল্লার বাগমারায় বাস-অটোরিকশা সংঘর্ষে নারীসহ নিহত ৭ শিরোনামবন্যায় কৃষিখাতে ২শ’ কোটি টাকার বেশি ক্ষতি হবে না: কৃষিমন্ত্রী শিরোনামচামড়ার অস্বাভাবিক দরপতনের তদন্ত চেয়ে করা রিট শুনানিতে হাইকোর্টের দুই বেঞ্চের অপারগতা প্রকাশ শিরোনামচামড়া নিয়ে অস্থিতিশীল পরিস্থিতি সমাধানে বিকেলে সচিবালয়ে বৈঠক শিরোনামডেঙ্গু: গত ২৪ ঘণ্টায় হাসপাতালে ভর্তি ১৭০৬ জন: স্বাস্থ্য অধিদফতর শিরোনামডেঙ্গু নিয়ে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের প্রতিবেদন দুপুরে আদালতে উপস্থাপন শিরোনামডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা কমছে: সোহরাওয়ার্দী হাসপাতালের পরিচালক শিরোনামইন্দোনেশিয়ায় ফেরিতে আগুন, দুই শিশুসহ নিহত ৭ শিরোনামআফগানিস্তানে বিয়ের অনুষ্ঠানে বোমা হামলা, নিহত বেড়ে ৬৩