Alexa তারেককে দ্রুত ফিরিয়ে আনা হবে: কাদের

ঢাকা, মঙ্গলবার   ১৫ অক্টোবর ২০১৯,   আশ্বিন ৩০ ১৪২৬,   ১৫ সফর ১৪৪১

Akash

তারেককে দ্রুত ফিরিয়ে আনা হবে: কাদের

 প্রকাশিত: ১৮:৪৩ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮   আপডেট: ১৮:৪৩ ১২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের

সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারপারসন তারেক রহমানকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে বলে জানিয়েছেন সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

সোমবার দুপুরে কক্সবাজারে এক অনুষ্ঠানে মন্ত্রী এ কথা বলেন। এ সময় তিনি কক্সবাজার-টেকনাফ শহীদ এ টি এম জাফর আলম আরাকান সড়কে এ টি এম জাফর স্মরণে স্মৃতি তোরণ উদ্বোধন করেন।

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, দেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী তারেক রহমানকে ফিরিয়ে আনতে ইন্টারপোলের সহযোগিতা চেয়েছে। যথাসম্ভব তাকে দ্রুত দেশে ফিরিয়ে আনা হবে।

ওবায়দুল কাদের বলেন, রাজনীতিকে একটি লজ্জাজনক পরিস্থিতির মুখোমুখি করেছেন বেগম খালেদা জিয়া ও তার সন্তান। মা দুর্নীতির দায়ে সাজা পেয়ে কারান্তরীণ হয়েছেন। আর সেই কারাগারকে তার গুলশানের বাড়ি বলে মনে করছেন দলের অনেকে। ধরছেন কত রকমের বায়না। তার পদমর্যাদার নিয়মানুসারে তাকে সুযোগ-সুবিধা দেয়া হচ্ছে। এরপরও দলের ভেতরে একেক জন একেক রকম কথা বলছেন।

সেতুমন্ত্রী বলেন, বিএনপি দুর্নীতিবাজদের রক্ষা করতে রাতারাতি গঠনতন্ত্রের ৭ম ধারা বাতিল করেছে। একজন সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তিকে দলের প্রধানের দায়িত্ব নেয়া বড়ই লজ্জার। যে ব্যক্তি ভিনদেশে (লন্ডনে) নিজ দেশের দূতাবাসে হামলার ইন্ধন দিতে পারে তার ভেতর কখনো দেশপ্রেম আশা করা যায় না।

কক্সবাজার-টেকনাফ শহীদ এ টি এম জাফর আলম আরাকান সড়কের এক কিলোমিটার এলাকায় দৃষ্টিনন্দন ফলকটি উদ্বোধনকালে এমপি আবদুর রহমান বদি, সাইমুম সরওযার কমল, কক্সবাজার জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান মোস্তাক আহমদ চৌধুরী, কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ চেয়ারম্যান লেফটেন্যান্ট কর্নেল (অব.) ফোরকান আহমদ, জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি অ্যাডভোকেট সিরাজুল মোস্তফা, সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমানসহ আওয়ামী লীগের নেতাকর্মী ও সরকারি কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। এটি উদ্বোধনের পর মন্ত্রী উখিয়ায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প পরিদর্শন করেন।

কক্সবাজারের উখিয়ার এ টি এম জাফর আলম ১৯৭১ সালের ২৫ মার্চ প্রথম প্রহরে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে প্রাক্তন ইকবাল হলে (বর্তমান জহুরুল হক হল) পাকিস্তানি হানাদারদের প্রতিহত করতে গিয়ে শহীদ হন। তার স্মৃতির সম্মানে সড়ক বিভাগ ২২ লাখ টাকা ব্যয়ে তোরণটি নির্মাণ করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই