তবে কি প্রতারক সাহেদেরই টানা রিমান্ডের রেকর্ড

ঢাকা, সোমবার   ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০,   আশ্বিন ১৩ ১৪২৭,   ১০ সফর ১৪৪২

তবে কি প্রতারক সাহেদেরই টানা রিমান্ডের রেকর্ড

আহমেদ তানভীর ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২২:০০ ২৬ জুলাই ২০২০   আপডেট: ২২:০৭ ২৬ জুলাই ২০২০

সাহেদ করিম

সাহেদ করিম

রিজেন্ট হাসপাতালের চেয়ারম্যান সাহেদ ওরফে সাহেদ করিমের টানা ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছে আদালত। আর এতেই আদালতপাড়ার আলোচনার কেন্দ্রবিন্দুতে উঠে এসেছে দেশের ইতিহাসের টানা রিমান্ডের ঘটনা। সাহেদ করিমই কি সবচেয়ে বেশি রিমান্ডের আদেশ পেলো না কি অন্য কেউ?

টানা ১০ দিন রিমান্ড শেষে রোববার সাহেদ করিমকে ফের ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে আদালত। উত্তরা পূর্ব থানার একটি ও উত্তরা পশ্চিম থানায় দায়ের করা তিন মামলায় মোট ৪০ দিনের রিমান্ড আবেদন করে পুলিশ। শুনানি শেষে ২৮ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন ঢাকা মেট্রোপলিটন আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট রাজেশ চৌধুরী। 

এর আগে গত ১৬ জুলাই প্রতারণার মামলায় সাহেদকে ১০ দিনের রিমান্ডে নেয় মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি)।

এদিকে আদালত সূত্রে জানা যায়, দেশের ইতিহাসে টানা সর্বোচ্চ রিমান্ড খেটেছেন হরকাতুল জিহাদ আল ইসলামী বাংলাদেশ (হুজি-বি) এর শীর্ষ নেতা মুফতি হান্নান। বিভিন্ন মামলায় টানা ১২০ দিন রিমান্ডে ছিলেন তিনি। বোমা ও গ্রেনেড হামলার ঘটনায় মুফতি হান্নানের বিরুদ্ধে ১৭টি মামলা হয় দেশের বিভিন্ন আদালতে।

মুফতি হান্নানকে রিমান্ডে নেয়ার পর বেরিয়ে আসে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে হত্যাচেষ্টার হামলাসহ বিভিন্ন চাঞ্চল্যকর ঘটনার তথ্য। তার দেয়া তথ্য মতে জঙ্গিরা দেশে সাত বছরে অন্তত ১৩টি নাশকতামূলক ঘটনা ঘটায়। এসব ঘটনায় নিহত হয়েছেন ১০১ জন। আহত হয়েছেন ৬০৯ জন। এসব হত্যার মূল পরিকল্পনাকারী ছিলেন হুজি-বি ও হরকাতুল মুজাহিদীনের অন্যতম শীর্ষ নেতা মুফতি আবদুল হান্নান।

টানা রিমান্ডের বিষয়ে জানতে চাইলে রাষ্ট্রের সর্বোচ্চ আইন কর্মকর্তা অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম বলেন, মামলার তদন্ত ও বিচারের স্বার্থে আসামির জিজ্ঞাসাবাদের প্রয়োজন হয়। তাই রাষ্ট্রপক্ষের আবেদনের পরিপ্রেক্ষিতে আদালত বিবেচনা করে। মামলার গুরুত্ব অনুসারে আদালত সেটি বিবেচনা করে।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই