ঢাকা, রোববার   ১৭ ফেব্রুয়ারি ২০১৯,   ফাল্গুন ৪ ১৪২৫,   ১১ জমাদিউস সানি ১৪৪০

ঢাবিতে সবার প্রিয় স্বপন মামা

ঢাবি প্রতিনিধি

 প্রকাশিত: ১৯:২৬ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮   আপডেট: ১৯:২৬ ৭ ডিসেম্বর ২০১৮

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

স্বপন মামা। একজন প্রাণবন্ত মানুষ। সবার সাথে সব সময়ই হাসিখুশি তিনি। গত ৩৫ বছর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে যারা  ছাত্র, শিক্ষক অথবা কর্মকর্তা-কর্মচারী হিসেবে সম্পৃক্ত হয়েছেন তাদের মধ্যে স্বপন মামার চা খান নি এমন কাউকে খুজে পাওয়া যাবে না।

‘টিএসসি’র কথা ভাবলে যে ছবিগুলো মনে ভেসে উঠে, তা হলো  বন্ধুদের সাথে মন খুলে আড্ডা, বিভিন্ন সংগঠনের সাংগঠনিক আড্ডা, হাসি-ঠাট্টা, আবেগ, রাজনীতি, শিল্প  প্রভৃতি আলোচনা-তর্কেই মেতে উঠা এক মুখরিত আঙিনা। এসব আড্ডা জমে উঠে টিএসসির চায়ের দোকানগুলো ঘিরেই। একইসাথে আড্ডা প্রাণবন্ত হয় স্বপন মামার নিপুণ হাতের চা খেয়েই।

১৯৮৪ সালে টিএসসিতে প্রথম আসেন স্বপন মামা। এর পর এখানেই থিতু হন। নিজ হাতে ধরেন চায়ের কেটলি। চায়ের কেটলি থেকে ফুটন্ত গরম পানি বাষ্প হয়ে উড়ে যাওয়ার মতো কত গল্প তিনি বদলে যেতে দেখেছেন, আবার নতুন করে জন্ম নিতে দেখেছেন তার হিসাব মেলানো ভার।

সৈরাচার বিরোধী এরশাদ হটাও আন্দোলন, ২০০৭ সালে সেনাবাহিনী কর্তৃক জরুরি অবস্থা জারির মত ঘটনাও ঘটেছে স্বপন মামার চোখের সামনেই। এই টিএসসি থেকেই তিনি দেখেছেন বিভিন্ন সময় সরকারের অদল বদল, কত তরুণ-তরুণীর প্রেমের ভাঙ্গা গড়া, কত জীবনের লেনাদেনা এবং হাজার হাজার জীবনের স্বপ্নের বাস্তবায়ন।  

ডেইলি বাংলাদেশ/এমএইচ