ঢাকা ছেড়ে আসা ৫০ হাজার যাত্রী শিমুলিয়া ঘাটে আটকা

ঢাকা, বৃহস্পতিবার   ০৯ এপ্রিল ২০২০,   চৈত্র ২৬ ১৪২৬,   ১৫ শা'বান ১৪৪১

Akash

ঢাকা ছেড়ে আসা ৫০ হাজার যাত্রী শিমুলিয়া ঘাটে আটকা

মুন্সিগঞ্জ প্রতিনিধি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২৩:৩৯ ২৪ মার্চ ২০২০   আপডেট: ২৩:৫২ ২৪ মার্চ ২০২০

ফেরিঘাটে আটকাপড়া যাত্রীদের ভিড়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

ফেরিঘাটে আটকাপড়া যাত্রীদের ভিড়। ছবি: ডেইলি বাংলাদেশ

শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌপথে ফেরি, লঞ্চ, সি-বোটসহ সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেয়ায় ঢাকা ছেড়ে আসা ৫০ হাজার যাত্রী আটকা পড়েছেন।

মঙ্গলবার রাত পর্যন্ত শিমুলিয়া ফেরিঘাট এলাকায় আটকাপড়া ওই সব যাত্রীদের মধ্যে বাড়ি ফেরা নিয়ে উদ্বেগ-উৎকন্ঠা ছড়িয়ে পড়েছে।

এর আগে এদিন দুপুর থেকে করোনাভাইরাস সংক্রমণ ঠেকাতে সরকারিভাবে এই নৌরুটের সব নৌযান বন্ধ ঘোষণা করেছে বিআইডব্লিউটিসি ও বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃপক্ষ।

শিমুলিয়া ঘাটের ট্রাফিক পরিদর্শক মো. হেলালউদ্দিন জানান, বিআইডব্লিউটিসি ও বিআইডব্লিউটিএ পূর্ব ঘোষণা ছাড়াই  মঙ্গলবার দুপুর ১২টার দিকে ফেরি, লঞ্চ, সি-বোটসহ শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে সব ধরনের নৌযান চলাচল বন্ধ করে দেয়। দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত অ্যাম্বুলেন্সসহ জরুরি কিছু যানবাহন চললেও পরে তা বন্ধ করে দেয়।

শিমুলিয়া নৌপুলিশ ফাঁড়ির ওসি সিরাজুল কবীর জানান, শিমুলিয়া প্রান্তে অন্তত ৫০ হাজারের বেশি যাত্রী পারাপারের অপেক্ষা করছে। দীর্ঘ অপেক্ষার পর কেউ কেউ ঢাকায় ফিরে যাচ্ছে।

এদিকে শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ি নৌরুটে চলাচলকারী সব নৌযান বন্ধ থাকলেও অসাধু সি-বোট মালিক ও চালকরা তাদের নৌযানগুলো চালিয়েছেন। এতে করে নদী পারাপারে সি-বোট ঘাটে যাত্রীদের উপচে পড়া ভিড় লক্ষ্য করা গেছে। করোনা অজুহাতে সি-বোট ভাড়াও নিচ্ছে দ্বিগুণ।

স্থানীয়রা জানান, কিন্তু ঘাট ইজারাদার আশরাফ হোসেন তা মানছেন না। তিনি সব সি-বোট সচল রেখে ভাড়াও নিচ্ছে দ্বিগুণ।

এদিকে লৌহজংয়ের ইউএনও কাবিরুল ইসলাম বলেন, মঙ্গলবার দুপুর থেকে লঞ্চ, সি-বোট ও ট্রলার বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। তবে কেউ তা অমান্য করে নৌযান চালালে আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে।
 

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর