Alexa ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে এক বছর সময় চাইলেন এলজিআরডি মন্ত্রী

ঢাকা, বুধবার   ১৭ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ২ ১৪২৬,   ১৩ জ্বিলকদ ১৪৪০

ঢাকার জলাবদ্ধতা নিরসনে এক বছর সময় চাইলেন এলজিআরডি মন্ত্রী

 প্রকাশিত: ১৮:৫৪ ২২ অক্টোবর ২০১৭  

ফাইল ছবি

ফাইল ছবি

ঢাকার জলাবদ্ধতার স্থায়ী কোনো সমাধান সম্ভব নয়। তবে আগামী বর্ষায় রাজধানীতে আর জলাবদ্ধতা থাকবে না। সমস্যা সমাধানে এক বছর পর্যন্ত সময় চাইলেন স্থানীয় সরকারমন্ত্রী ইঞ্জিনিয়ার খোন্দকার মোশাররফ হোসেন। রোববার সকালে রাজধানীতে এক অনুষ্ঠানে এ কথা জানান তিনি।

এই সময়ের মধ্যে ওয়াসাসহ দুটি সিটি করপোরেশন যেসব সেবাদানকারী সংস্থা রয়েছে তাদের মধ্যে একটি সমন্বয়ের আশ্বাস দিয়েছেন মন্ত্রী।

টানা বৃষ্টিতে নগরবাসীর দুর্ভোগ নিয়ে পুরোপুরি অসহায় দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন।

তিন দিনের বৃষ্টিতে অলিগলি থেকে রাজপথ সবই পানিতে তলিয়ে গেছে। গত শনিবার অনেকটাই থমকে ছিল রাজধানীর চলাচল। ভারী বর্ষণে প্রায়ই এমনি দৃশ্যে দেখা মিলে ঢাকায়। নগরবাসীর জন্য সুখবর নেই স্থানীয় সরকার বা সিটি করপোরেশনের মেয়রদের কাছেও তাদের কাছে কেবলই আশ্বাসের বাণী, তুলে ধরলেন নিজেদের অসহায়ত্ব।

পল্লী উন্নয়ন ও সমবায়মন্ত্রী, স্থানীয় সরকার ইঞ্জিনিয়ার খোন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, আপনার যতটা উদ্বিগ্ন আমরাও তো উদ্বিগ্ন। কাজেই এই বিষয়টা আমাদের সরকার নিষ্ঠার সাথে দেখছে, আমরা পর্যবেক্ষণ করছি। আগামী বর্ষা মৌসুমে আশা করছি এরকম থাকবে না। একটা বছর সময় দেন এটা আমি তিন মাস আগে বলছি। কাজ চলছে।

ঢাকার শহরে প্রায় ৬ টি সংস্থা কিন্তু পানি নিষ্কাশনের সঙ্গে জড়িয়ে আছে। এটার মূল দায়িত্ব ঢাকা ওয়াসার। আমরা আশা করি যে সমস্ত সমস্যা গুলো আছে এটা সমন্বয়ের মধ্য দিয়ে সমাধান করতে পারবো।

ঢাকার ভেতরে ও আশেপাশে প্রায় ৪৭ টি খাল দখল হয়ে যাওয়াকে রাজধানীর জলবদ্ধতা বড় কারণ বলছেন স্থানীয় সরকার মন্ত্রী।

তবে সেবাদানকারী সংস্থার মধ্যে সমন্বয় করা গেলে পরিস্থিতির উন্নতি সম্ভব। এটা সমাধানে অন্তত এক বছর সময় চাইলেন তিনি।

মেডিকেল বর্জ্য ব্যবস্থাপনা নিয়ে দুই সিটি করপোরেশনের সেমিনার শেষে সাংবাদিকদের এসব কথা জানান তারা। সেমিনারে বলা হয় প্রতিদিন ঢাকা ও আশেপাশে গড়ে ৮টন মেডিকেল বর্জ্য সংরক্ষণের পর তা ধংস করে দক্ষিণ সিটি করপোরেশন।

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই