ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন অতীতে সফল হয়েছে, এবারো হবে

ঢাকা, বুধবার   ২২ মে ২০১৯,   জ্যৈষ্ঠ ৭ ১৪২৬,   ১৬ রমজান ১৪৪০

Best Electronics

ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন অতীতে সফল হয়েছে, এবারো হবে

 প্রকাশিত: ১৮:৪৪ ৭ অক্টোবর ২০১৮   আপডেট: ২০:৫৮ ৭ অক্টোবর ২০১৮

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখছেন ড. কামাল হোসেন

মানববন্ধনে বক্তব্য রাখছেন ড. কামাল হোসেন

জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার আহ্বায়ক ও গণফোরাম সভাপতি ড. কামাল হোসেন বলেছেন, ১৬ কোটি মানুষের ঐক্যবদ্ধ আন্দোলনের মাধ্যমে গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠা করতে হবে। এ দেশ আমাদের সবার, কোনো ব্যক্তির কিংবা কোনো দল ও পরিবারের নয়। অতীতে যেমন ঐক্যবদ্ধ আন্দোলন সফল হয়েছে, এবারো হবে। জনগণের মালিকানা ফিরে আসবে।

তিনি বলেন, জনগণের ঐক্যের সামনে দাঁড়িয়ে কেউ আমাদের বঞ্চিত করতে পারবে না। অবাধ ও নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে এবার আমরাই সরকার গঠন করব।

রোববার বিকেলে জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে ভোটের অধিকারের দাবিতে আয়োজিত মানববন্ধনে তিনি এসব কথা বলেন। 

জনগণের মালিকানা না থাকলে পাইকারীভাবে লুটপাট হয় দাবি করে ড. কামাল বলেন, বর্তমানে জনগণের সম্পত্তি পাচার হয়। পত্রপত্রিকায় দেখা যায়, হাজার হাজার কোটি টাকা ব্যাংক থেকে লুটপাট হচ্ছে। এগুলো যায় কোথায়? দেশে বিনিয়োগ হচ্ছে না, কলকারখানা হচ্ছে না, নতুন কর্মসংস্থান হচ্ছে না। অর্থাৎ স্বাধীনতার প্রতিশ্রুতি পালন হচ্ছে না। 

১৬ কোটি মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে পরিবর্তন আনবে- এমন আশাবাদ ব্যক্ত করে তিনি বলেন, এখন জনগণও বুঝতে পারছে। আমরা যেখানেই যাই অসাধারণ সাড়া পাই। এখন বোঝা যাচ্ছে দেশবাসী ঐক্যবদ্ধ হয়েই পরিবর্তন আনবে।

তিনি আরো বলেন, আমরা এখনো অবাধ সুষ্ঠু নির্বাচনের পরিবেশ তৈরির দাবি জানাচ্ছি। কারণ আমরা মনে করি পরিবর্তন আসতে হলে অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের বিকল্প নাই। অবাধ, সুষ্ঠু, নিরপেক্ষ নির্বাচনের দাবি করে আমরা জনগণের ঐক্য প্রক্রিয়ায় নিয়োজিত। 

কোনো দাবি আদায় করতে হলে ঐক্যবদ্ধ জনগণের শক্তি দিয়ে সেটা আদায় করা যায় বলেও উল্লেখ করেন ড. কামাল। 

এই সংবিধান প্রণেতা বলেন, আমি বিশ্বাস করি আমাদের আন্দোলন অবশ্যই সফল হবে। এ দেশের মানুষ ইতিহাস সৃষ্টি করেছে। ভাষা আন্দোলন থেকে শুরু করে সবকটি আন্দোলনে আমরা ঐক্যবদ্ধ ছিলাম। অসম্ভবকে সম্ভব করেছি। জনগণের মালিকানা প্রতিষ্ঠা হোক এটা তো অসম্ভব কিছু নয়। সংবিধানে আছে এদেশের মালিক জনগণ। কিন্তু প্রকৃত অর্থে বর্তমানে আপনারা কি মালিক আছেন? সবাই নিজেকে অসহায় বোধ করে। মালিকানা রাখতে হলে মালিকের ভূমিকা রাখতে হবে। 

মানববন্ধনে আরো বক্তব্য দেন জাতীয় ঐক্য প্রক্রিয়ার সদস্য সচিব আ ব ম মোস্তফা আমিন, ডাকসুর সাবেক ভিপি সুলতান মুহাম্মদ মনসুর, গণফোরামের সাধারণ সম্পাদক মোস্তফা মহসিন মন্টু, গণদল সভাপতি এটিএম গোলাম মাওলা চৌধুরী, গণফোরামের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আ ন ম ফাহিম উল্লাহ, সাংগঠনিক সম্পাদক মোস্তাক আহমেদ, ভাসানী ফাউন্ডেশনের সভাপতি সিদ্দিকুর ইসলাম, ন্যাশনাল পিপলস পার্টির সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তফা, লেবার পার্টির (একাংশ) সাধারণ সম্পাদক হামদুল্লাহ আল মেহেদী ও গণতান্ত্রিক দলের সভাপতি সামছুল আলম চৌধুরী প্রমুখ।

এতে উপস্থিত ছিলেন ঐক্য প্রক্রিয়ার ঢাকা মহানগরের সদস্য সচিব মোস্তাক আহমেদ, গণফোরামের তথ্য ও গণমাধ্যম সম্পাদক রফিকুল ইসলাম পথিক, জিনাফ সভাপ‌তি লায়ন মিয়া মো. আ‌নোয়ার, দেশ বাঁচাও মানুষ বাঁচাও আন্দোলনের সভাপ‌তি কে এম র‌কিবুল ইসলাম রিপন প্রমুখ

ডেইলি বাংলাদেশ/এসআই/এলকে

Best Electronics