Alexa ডা. বেকারের জায়গায় অন্য দম্পতি, চিকিৎসা পাচ্ছে গ্রামের দরিদ্ররা

ঢাকা, সোমবার   ১৬ ডিসেম্বর ২০১৯,   পৌষ ১ ১৪২৬,   ১৮ রবিউস সানি ১৪৪১

ডা. বেকারের জায়গায় অন্য দম্পতি, চিকিৎসা পাচ্ছে গ্রামের দরিদ্ররা

ফরিদ আহমেদ জয়, জাবি ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ১১:৪৫ ৩০ নভেম্বর ২০১৯   আপডেট: ১০:৪৩ ২ ডিসেম্বর ২০১৯

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

ছবিঃ ডেইলি বাংলাদেশ

তাকে সবাই চেনেন। ডাকেন ‘ডাক্তার ভাই’ নামে। কিন্তু একজন ভিনদেশি। ১৯৮৯ সালে বাংলাদেশে আসেন। টাঙ্গাইলের মধুপুরের কাইলাকুড়ি গ্রামে গড়ে তোলেন একটি হাসপাতাল। এই হাসপাতালের নাম দিলেন ‘কাইলাকুড়ি হেলথ কেয়ার সেন্টার’। যা এখন জামালপুর, ময়মনসিংহ জেলার দরিদ্র মানুষদের জন্য এই স্বাস্থ্যকেন্দ্র এক আশির্বাদ। 

গ্রামের দরিদ্র মানুষদের চিকিৎসা দেয়ার পর ২০১৫ সালে মারা যান ‘ডাক্তার ভাই’ হিসেবে পরিচিত এড্রিক বেকার। তার পুরো নাম এড্রিক সার্জিসন বেকার। নিউজিল্যান্ডের ওয়েলিংটনে ১৯৪১ সালে জন্মগ্রহণ করেন। এই শহরেই প্রাথমিক এবং উচ্চমাধ্যমিক লেখাপড়া শেষ করে ১৯৬০ সালে তিনি ডুনেডিন শহরের ওটাগো মেডিকেল কলেজে ভর্তি হন। ১৯৬৫ সালে চিকিৎসা শাস্ত্রে স্নাতক শেষ করেন।

ডা. বেকার মারা যাওয়ার পর তার হাসপাতালের পরিচালনায় ছুটে আসেন ডাক্তার দম্পতি জেসিন-মেরিন্ডি। 

বেকার জীবিত থাকা অবস্থায় জেসিন এই হাসপাতালটি পরিদর্শন করেছিলেন। কিন্তু যখন ডা. বেকারের মৃত্যুর খবর শুনে তিনি অস্থির হয়ে উঠেন কিন্তু তার বিভিন্ন ব্যস্তায় তখন আসতে পারেননি। অবশেষে নিজের দেশ আমেরিকা এবং সম্পদ ও সকল সুখ ত্যাগ করে ২০১৮ সালে বাংলাদেশে চলে আসেন। 

শুধু নিজেরা যে এসেছেন তা না। নিজেদের সন্তানদেরও সাথে করে নিয়ে এসেছেন। ভর্তি করে দিয়েছেন গ্রামেরই স্কুলে। গ্রামের শিশুদের সঙ্গে খেলছে। দম্পতি  জেসিন এবং মেরিন্ডির চারটি মেয়ে সন্তান রয়েছে। ডাক্তার জেসিন কী সুন্দর করে লুঙ্গি পরে ঘুরে বেড়াচ্ছেন। আর গ্রামে জেসিন হয়ে উঠেন নতুন ‘ডাক্তার ভাই’ এবং মেরিন্ডি হয়ে উঠেন নতুন ‘ডাক্তার দিদি’। তারা দুজন নিয়মিত সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডএম