Alexa ডায়মন্ডের রিং কিনে মিলল খালি বাক্স!

ঢাকা, রোববার   ২১ জুলাই ২০১৯,   শ্রাবণ ৭ ১৪২৬,   ১৮ জ্বিলকদ ১৪৪০

ডায়মন্ডের রিং কিনে মিলল খালি বাক্স!

সোশ্যাল মিডিয়া ডেস্ক ডেইলি-বাংলাদেশ ডটকম

 প্রকাশিত: ২১:৪২ ১৮ জুন ২০১৯   আপডেট: ২১:৪৮ ১৮ জুন ২০১৯

ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

ছবি: ফেসবুক থেকে সংগৃহীত

বিশ্বজুড়ে জনপ্রিয় চায়নাভিত্তিক অনলাইন রিটেইল সার্ভিস থেকে ডায়মন্ডের রিং কিনে প্রতারণার শিকার হয়েছেন বাংলাদেশী এক যুবক। 

মঙ্গলবার রাত ৯টার দিকে সাদিফ সৈকত (Sadif Shoykot) নামে ওই যুবক তার ফেসবুকে একটি পোস্ট দেন। এতে তিনি তার প্রতারিত হওয়ার বিষয়টি জানান।

জানা গেছে, আলিএক্সপ্রেস নামে এই অনলাইন রিটেইল সার্ভিসটি আলিবাবাডটকম এর সহযোগী প্রতিষ্ঠান। পণ্য ক্রয়-বিক্রয়ের ক্ষেত্রে বিশ্বজুড়ে এই দুটি প্রতিষ্ঠানের যথেষ্ট সুখ্যাতি রয়েছে। 

এতো বড় নামকরা রিটেইল সার্ভিস থেকে পণ্য অর্ডার করেও কাঙ্খিত পণ্য হাতে না পাওয়ায় ভীষণ হতাশা ব্যাক্ত করেছেন সাদিফ সৈকত। এই বিষয়টি তার ফেসবুক স্ট্যাটাসেই প্রতীয়মান হয়। 

তার ফেসবুকে ওয়ালে দেয়া পোস্টটি নিচে তুলে ধরা হলো-

কিছুদিন আগে AliExpress থেকে একটা ডায়মন্ড এর রিং অর্ডার করেছিলাম। আজ সে পন্য আমি হাতে পাই।

যখন পার্সেল দেয়ার জন্য কুরিয়ার সার্ভিসের লোক আসলো সে আমাকে প্রোডাক্টটি হাতে দিয়ে সাইন করতে বললো। আমি দেখলাম প্রোডাক্ট টেপ দিয়ে ভালোই প্যাক করা। আমি প্রোডাক্ট রিসিভ করে উনাকে বিদায় করলাম।

কিছুক্ষণ পরের কথা, আমি প্রোডাক্ট নিয়ে বসলাম। যখন টেপটা টেনে তুলতে গেলাম দেখলাম যে, টেপের নিচে কাচি দিয়ে আমার প্যাকেটটা আলতো করে কাটা।

আমি সযন্তে টেপ টেনে তুলে ভেতর থেকে রিং এর বক্সটি বের করলাম। এর পর্যন্ত হলে ভালোই ছিলো। রিং এর বক্সটি এবার খুলে যা দেখতে পেলাম, সেটা দেখার জন্য আমি আসলেই প্রস্তুত ছিলাম না।

দেখলাম ভেতরে রিং নেই! এবার ভালো করে তন্নতন্ন করে পুরোটা বক্স এর সঙ্গে পার্সেল প্যাকেটটিও খুঁজলাম। ভেবেছিলাম হয়তো থাকবে, কিন্তু সেখানে ছিলো না প্রোডাক্ট।

আলি বহু বছর ধরেই সুনামের সঙ্গে তাদের পণ্য ভোক্তাদের কাছে পৌঁছে থাকে, সেটা নিয়ে এ পর্যন্ত কেউ হয়তো আঙ্গুল তুলতে পারবে না তাদের বিরুদ্ধে।

তাহলে এখনে দোষটা কার?
আলি কি প্রোডাক্ট না দিয়ে আমাকে খালি বক্স প্যাকেজ করে পাঠিয়ে দিয়েছে? নাকি যখন বাংলাদেশে এই প্রোডাক্ট এসেছে সেখান থেকেই প্যাকেজটি কেটে ভেতর থেকে প্রোডাক্ট বের করে আবার টেপ দিয়ে আটকিয়ে দিয়েছে!

বাংলাদেশ সরকারের এদিকে নজর আশা করছি, এসব কারণে আমাদের দেশে আলি এক্সপ্রেস তাদের পণ্য পাঠাতে চায় না। সরকার যদি একটু সুদৃষ্টি দিতো, তাহলে হয়তো অনেকেই ভবিষ্যতে বাইরে থেকে কাঙ্ক্ষিত পণ্য আনতে উদ্বুদ্ধ হতো।

ডেইলি বাংলাদেশ/জেডআর